cricket

Bangladesh vs Zimbabwe Live – খেলা দেখুন সরাসরি (23 Jan 2018)

 

বাংলাদেশকে হারাবে জিম্বাবুয়ে!

‘সিরিজে এখন যে অবস্থা তাতে শ্রীলঙ্কা-জিম্বাবুয়ের দুই দলই এখন বাংলাদেশের কৃপাপ্রার্থী হতে পারে।’ ত্রিদেশীয় সিরিজে পয়েন্ট তালিকার এখন যে অবস্থা তাতে বাংলাদেশের সাধারণ কোনো ক্রিকেটপ্রেমী এ রকম বলে ফেললে তাঁকে দোষ দেওয়া যাবে না। নিজেদের মধ্যে একটি করে ম্যাচ জিতে এখন মোটামুটি একই বিন্দুতে দাঁড়িয়ে জিম্বাবুয়ে ও শ্রীলঙ্কা। দুই দলের পয়েন্টই সমান (৪), তবে নেট রানরেটের ব্যবধানে সামান্য এগিয়ে জিম্বাবুয়ে। কাজেই ফাইনালে যাওয়াটা দুই দলের জন্যই নির্ভর করছে বাংলাদেশের বিপক্ষে ম্যাচের ওপর।

কাল অনুশীলন শেষে জিম্বাবুয়ের মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যান পিটার মুরও বলে গেলেন সে কথা, ‘আমরা একটি লক্ষ্য নিয়ে এখানে এসেছি, শুধু অংশগ্রহণের জন্য নয়। বাংলাদেশের বিপক্ষে ভালো খেলতে দলের সবাই খুবই আত্মবিশ্বাসী। ফাইনাল খেলতে পারলে সেটা বিশাল ব্যাপার হবে দলের জন্য।’

মার্চে অনুষ্ঠেয় বিশ্বকাপ বাছাইপর্বের জন্য জিম্বাবুয়ে আত্মবিশ্বাস নিয়ে যেতে পারে বাংলাদেশের এই ত্রিদেশীয় সিরিজ থেকেই। কিন্তু প্রথম ম্যাচে অমন হতাশা-জাগানিয়া হারের পর বাংলাদেশকে হারানোর স্বপ্নটা কি ‘দুঃসাহস’ হয়ে যাচ্ছে না! মুর একেবারেই একমত নন এর সঙ্গে, ‘প্রথম ম্যাচে অনেক কিছুই আমাদের নিয়ন্ত্রণে ছিল না। কিন্তু উইকেট আর কন্ডিশনের সঙ্গে মানিয়ে নেওয়ার পর দ্বিতীয় ম্যাচে আমরা সামর্থ্যের প্রমাণ দিয়েছি। আমাদের সম্ভাবনাগুলো কাজে লাগাতে পারলে বাংলাদেশকে হারানো সম্ভব।’

বাংলাদেশ VS জিম্বাবুয়ে LIVE – ম্যাচ সরাসরি দেখুন (23 Jan 2018)

তবে বলাটা যত সহজ, করে দেখানোটা যে অত সহজ নয়, সেটা স্বীকার করছেন জিম্বাবুয়ের এই ক্রিকেটার, ‘আমরা সবাই জানি, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় শক্তি স্পিন। তা ছাড়া শেষের দিককার ওভারগুলোয় মোস্তাফিজ আর রুবেল রীতিমতো ভয়ংকর। এই বিষয়গুলো বিবেচনায় এনেই আমরা প্রস্তুতি নিয়েছি। ম্যাচের গুরুত্বপূর্ণ পরিস্থিতিগুলোর নিয়ন্ত্রণ নিতে হবে। আমার বিশ্বাস আমরা সেটা করতে সক্ষম।’

জিম্বাবুয়ে আজ সত্যিই বাংলাদেশকে হারিয়ে দিলেও তাতেই সবকিছু হয়ে যাচ্ছে না। চাতকের মতো চেয়ে থাকতে হবে বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কা ম্যাচের দিকে। আপাতত অত দূর না ভেবে নিজেদের কাজ নিয়েই ভাবতে চায় ক্রেমারের দল। জিম্বাবুয়েকে ভাবাচ্ছে মিরপুরের উইকেটও। তিন ম্যাচে তিন ধরনের উইকেট পেয়ে খানিকটা অবাক মুর, ‘আমরা যে তিনটা ম্যাচ খেলেছি, তিন ম্যাচের উইকেটই আলাদা।

সেটা এক দিয়ে ভালো, তিনটি উইকেট সম্পর্কে একটা ভালো ধারণা হয়ে গেছে। কোনো দিন ২৮০ ভালো স্কোর, কোনো দিন ২৫০ আবার কোনো দিন ২০০ রানও ভালো। এখন আমাদের কাজ হলো, যে উইকেটই বাংলাদেশ তৈরি করুক না কেন তার জন্য প্রস্তুত থাকা। যত দ্রুত সম্ভব উইকেটের সঙ্গে মানিয়ে নেওয়া।’

জিম্বাবুয়ের ফাইনালে যাওয়ার স্বপ্ন পূরণের প্রাথমিক শর্ত সেটাই।

টস জিতে ব্যাটিংয়ে বাংলাদেশ

ত্রিদেশীয় সিরিজের পঞ্চম ম্যাচে নিজেদের দ্বিতীয় দেখায় স্বাগতিক বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের মুখোমুখি হয়েছে সফরকারী জিম্বাবুয়ে ক্রিকেট দল। মিরপুরের হোম অব ক্রিকেট শেরে বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে টস জিতে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে প্রথমে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বাংলাদেশের অধিনায়ক মাশরাফি মুর্তজা।

প্রতিযোগিতার ফাইনাল নিশ্চিতের জন্য আজকের ম্যাচে জিম্বাবুয়ের জন্য জয়ের বিকল্প নেই। অন্যদিকে, বাংলাদেশ ইতোমধ্যে প্রতিযোগিতার প্রথম দুই ম্যাচ বোনাস পয়েন্টসহ জিতে প্রতিযোগিতার ফাইনালে খেলার যোগ্যতা অর্জন করেছে। যযার ফলে আজকের ম্যাচটি মাশরাফিদের জনে আনুষ্ঠানিকতা মাত্র।

এদিকে আজকের খেলায় জিম্বাবুয়ে স্বাগতিক বাংলাদেশকে হারাতে পারলে প্রতিযোগিতা থেকে ছিটকে যাবে শ্রীলঙ্কা। আর যদি বাংলাদেশ আজও জিম্বাবুয়েকে হারায় তবে সিরিজের শেষ ম্যাচে স্বাগতিক বাংলাদেশের বিপক্ষে ম্যাচ জিতে আসরের ফাইনালে খেলার শেষ সুযোগটুকু থাকবে লঙ্কানদের বিপক্ষে।

প্রসঙ্গত, একদিনের ক্রিকেটে ১৯৯৭ সাল থেকে প্রতিযোগিতার প্রথম ম্যাচ পর্যন্ত মোট ৬৮টি একদিনের আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলেছে জিম্বাবুয়ে ও বাংলাদেশ। দু’দলের মুখোমুখি লড়াইয়ে যেখানে সবচেয়ে বেশি সংখ্যক ম্যাচ জিতেছে বাংলাদেশ। জিম্বাবুয়ের ২৮ জয়ের বিপরীতে বাংলাদেশের জয় ৪০টি ম্যাচে।

খেলাটির বল বাই বল লাইভ স্কোর পেতে ক্লিক করুন এখানে-

বাংলাদেশ একাদশঃ তামিম ইকবাল, এনামুল হক, সাকিব আল হাসান, মুশফিকুর রহিম , মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, সাব্বির রহমান, নাসির হোসেন, মাশরাফি মুর্তজা (অধিনায়ক), রুবেল হোসেন, মুস্তাফিজুর রহমান ও সানজামুল ইসলাম।

জিম্বাবুয়ে একাদশঃ হ্যামিল্টন মাসাকাদজা, সোলমন মিরে, ক্রেইগ আরভিন, ব্রেন্ডন টেইলর (উইকেটরক্ষক), সিকান্দার রাজা, পিটার মুরে, ম্যালকম ওয়ালার, গ্রায়েম ক্রেমার (অধিনায়ক), কাইল জার্ভিস, টেন্ডাই চাতারা ও মুজারাবাণী।

বাংলাদেশ-জিম্বাবুয়ের দুই রকম ম্যাচ

অনুশীলন শেষ হয়ে গেছে সাড়ে ১২টার আগে। খামোখা দেড়টা পর্যন্ত মাঠে বসে থাকা কেন! ম্যানেজার লাভমোর বান্ডার সঙ্গে জিম্বাবুয়ে দলের প্রতিনিধি পিটার মুর তাই এক ঘণ্টা আগেই চলে এলেন সংবাদ সম্মেলনকক্ষে। খবর শুনে এদিক-সেদিক ছড়িয়ে-ছিটিয়ে থাকা সাংবাদিকেরা তড়িঘড়ি করে সেখানে হাজির। দেরিতে খবর পাওয়ায় অনেকে ঢুকলেন সংবাদ সম্মেলনের মাঝপথে।

কালকের এই একখণ্ড চিত্রেই ফুটে উঠছে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে আজকের ম্যাচটি বাংলাদেশের দৃষ্টিকোণ থেকে কতটা অগুরুত্বপূর্ণ। বোনাস পয়েন্ট সমৃদ্ধ হয়ে প্রথম দুই ম্যাচেই ফাইনাল খেলা নিশ্চিত করে ফেলেছে মাশরাফি বিন মুর্তজার দল।

জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে আজকের ম্যাচ নিয়ে তাই অন্তত বাহ্যত কোনো উত্তেজনা নেই। গোটা মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামেই একটা ঢিলেঢালা ভাব। সংবাদ সম্মেলনে ম্যাচ নিয়ে মুরের আনুষ্ঠানিক কথাবার্তার চেয়েও সাংবাদিকদের বেশি টানল বাংলাদেশ দলের ডাগআউটে মাশরাফি বিন মুর্তজার সঙ্গে আড্ডা, ইনডোর থেকে অনুশীলনফেরত খেলোয়াড়দের সঙ্গে সৌজন্য বিনিময়।

তাই বলে এটা ভাববেন না যে বাংলাদেশ দলের মধ্যেও ঢিলেঢালা ভাব চলে এসেছে। ইনডোরের দীর্ঘ অনুশীলন, তামিম ইকবালের সংবাদ সম্মেলন, আজকের ম্যাচের একাদশ নিয়ে পরিকল্পনা-কোথাও ফুটে ওঠেনি সেই ছাপ। দীর্ঘ সংবাদ সম্মেলনে তামিমের কাছ থেকেও জানা গেল একই কথা, ‘আমি কারও মধ্যেই দেখছি না যে আয়েশি ভাবটা চলে এসেছে। দুটি ম্যাচ জিতে গেছি, হারলে কিছু হবে না, এই জিনিসটা দেখছি না।

প্রতিটি আন্তর্জাতিক ম্যাচেই একজন খেলোয়াড়ের লক্ষ্য থাকে সেঞ্চুরি করার বা ৫ উইকেট নেওয়ার। এই দলটাকে দেখলেই আমার মনে হয় সবাই সে রকম কিছু করতে চায়।’

ত্রিদেশীয় সিরিজ হলেও খেলা শুরুর আগে মনে হচ্ছিল সিরিজটা বোধ হয় বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কার মধ্যেই সীমাবদ্ধ হয়ে পড়বে। জিম্বাবুয়ের উপস্থিতি কেবলই তৃতীয় দলের আনুষ্ঠানিকতা রক্ষার জন্য। হতে পারে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে তাদের নিকট অতীত ভালো, কিন্তু এবার তো খেলা উপমহাদেশে! কিন্তু চার ম্যাচ পর দেখা যাচ্ছে নামে ভারী শ্রীলঙ্কারই সবচেয়ে করুণ অবস্থা।

যে জিম্বাবুয়ের প্রতি মানুষের আস্থা কম ছিল, শ্রীলঙ্কার চেয়ে তারাই বরং কিছুটা ভালো ক্রিকেট খেলেছে। সবচেয়ে সুবিধাজনক অবস্থায় বাংলাদেশ। সেটা এতটাই যে, যে ম্যাচ সচরাচর তাদের খেলার সুযোগ হয় না, শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে আজ সে রকমই এক ম্যাচ খেলতে নামবে দলটা। কী সেই ম্যাচ? কোনো চাওয়া-পাওয়ার চাপ মাথায় না রেখে শুধুই খেলার জন্য খেলার ম্যাচ।

এই ধারণাটাও অবশ্য বাইরে থেকেই করা। কোনো দলই তো আর হারার জন্য খেলে না। যাদের আগের ম্যাচেই হারানো গেছে দোর্দণ্ড প্রতাপে, তাদের বিপক্ষে তো না-ই। বরং ফাইনালের আগে জয়ের ধারা ধরে রাখাটাই লক্ষ্য থাকে সবার। তামিমের ভাষায়, ‘ফাইনালে উঠে গেলেও এই ম্যাচগুলো সমান গুরুত্বপূর্ণ। এই দুই ম্যাচে আমাদের অর্জনের অনেক কিছুই আছে।’

সে জন্য আজ কোনো পরীক্ষা-নিরীক্ষায়ও যাচ্ছে না বাংলাদেশ। প্রথম দুই ম্যাচে একাদশে না থাকা খেলোয়াড়দের চাইলেই এ ম্যাচে সুযোগ দেওয়া যেত। কিন্তু সেটি না করে খেলানো হচ্ছে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে প্রথম ম্যাচে জয় পাওয়া দলটাকেই। সব ঠিক থাকলে শ্রীলঙ্কার ম্যাচের দল থেকে পেসার সাইফউদ্দিনকে বাদ দিয়ে একাদশে আনা হবে বাঁহাতি স্পিনার সানজামুল ইসলামকে।

বাংলাদেশের জন্য এটি বাড়তি কিছু পাওয়ার ম্যাচ হলেও জিম্বাবুয়ের জন্য অস্তিত্ব ধরে রাখার লড়াই। তাদের সবকিছুতেই তাই খুব ‘সিরিয়াস’ ভাব। একাডেমি মাঠে অনুশীলনের পর পিটার মুর এসে বলে গেলেন, ‘আমরা একটি লক্ষ্য নিয়ে এখানে এসেছি, শুধু অংশগ্রহণের জন্য নয়।’ পরে আবার বলেছেন, শক্তির জায়গাগুলো কাজে লাগাতে পারলে বাংলাদেশের বিপক্ষে আজ তাদের জেতা অসম্ভব হবে না।

ব্রেন্ডন টেলর, কাইল জার্ভিসরা ফিরে আসার পর আসলেই অন্য চেহারায় দেখা যাচ্ছে জিম্বাবুয়ে দলটাকে। টিম ম্যানেজমেন্টে হিথ স্ট্রিক, টাটেন্ডা টাইবুরা আসার পর অনুশীলনেও কারও উৎসাহের কমতি নেই। ১২ জানুয়ারি ঢাকায় এসে গত ১০ দিনে মাত্র এক দিন বিশ্রাম নিয়েছে দলটা। তাতে কন্ডিশনের সঙ্গে মানিয়ে নেওয়ার কাজটাও এত দিনে হয়ে যাওয়ার কথা ভালোভাবে।

অক্লান্ত পরিশ্রমের ফল কি আজ পাবে জিম্বাবুয়ে? নাকি ফাইনালের আগে আত্মবিশ্বাসটা আরও উঁচুতে নিয়ে যাবে বাংলাদেশ!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.