mirja_bnp

সরকারের ষড়যন্ত্রে সাংবাদিক রুহুল আমিন গাজী গ্রেফতার: ফখরুল

সরকারের করা ষড়যন্ত্রমূলক রাষ্ট্রদ্রোহের মামলায় সম্মিলিত পেশাজীবী পরিষদের ভারপ্রাপ্ত আহ্বায়ক ও বিএফইউজে (একাংশ) সভাপতি রুহুল আমিন গাজীকে গ্রেফতারের ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

বৃহস্পতিবার (২২ অক্টোবর) দলটির ভারপ্রাপ্ত দফতর সম্পাদক সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স স্বাক্ষরিত এক বিবৃতিতে এ ঘটনায় নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান।

বিবৃতিতে বিএনপি মহাসচিব বলেন, রুহুল আমিন গাজীকে গ্রেফতারের মধ্য দিয়ে সরকার মত প্রকাশের স্বাধীনতাকে স্তব্ধ করতে আরও একটি ঘৃণ্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করলো। আগামী দিনে আওয়ামী ফ্যাসিবাদের চেহারা কী বিভৎস রূপ ধারণ করবে সেটারই কুনজির এটা।

কথায় কথায় ভিন্ন মতাবলম্বীদের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহের মামলা দিয়ে সরকার দেশে প্রতিহিংসার রাজনীতিকে চরম পর্যায়ে নিয়ে গেছে। রুহুল আমিন গাজীকে রাষ্ট্রদ্রোহের বানোয়াট মামলায় গ্রেফতারের মাধ্যমে সরকারের সমালোচক, প্রতিবাদী কলামিস্ট, বিবেকবান লেখক-বুদ্ধিজীবীদেরকে বর্তমান ফ্যাসিস্ট সরকার এক অশুভ বার্তা জানান দিলো।

তিনি আরও বলেন, সরকার শুধু বিএনপিসহ বিরোধী দলীয় নেতাকর্মীরাই নয়, তারা এখন টার্গেট করেছে ফ্যাসিবাদ বিরোধী প্রতিবাদী কণ্ঠস্বরকে। সরকারের পায়ের তলা থেকে মাটি সরে গেছে। জনসমর্থনহীন এই সরকার হিতাহিত-বিবেচনাহীন। অন্তঃহীন ক্ষমতালিপ্সার জন্য এরা প্রতিবাদী সাংবাদিকদের মুখ বন্ধ করতে বেপরোয়া হয়ে উঠেছে। তাই প্রতিবাদী সাংবাদিক, নির্ভীক লেখক ও অকুতোভয় গণতন্ত্রকামী বরেণ্য সাংবাদিকদের মিথ্যা মামলায় গ্রেফতারের খেলায় মাতোয়ারা হয়ে গেছে।

মির্জা ফখরুল বলেন, সরকার গণভিত্তি হারিয়ে কোনো রকমে ক্ষমতায় টিকে থাকার জন্য আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে দিয়ে যারা জাতির বিবেক, তাদের ওপর মরণকামড় দিতে শুরু করেছে। রুহুল আমিন গাজীকে গ্রেফতারের ঘটনায় আমি তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি এবং অবিলম্বে তার বিরুদ্ধে করা রাষ্ট্রদ্রোহের মনগড়া মামলা প্রত্যাহার ও নিঃশর্ত মুক্তির জোর দাবি করছি।

উল্লেখ্য, বুধবার (২১ অক্টোবর) বিকেলে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন ও রাষ্ট্রদ্রোহিতার অভিযোগে পৃথক দুটি মামলার ওয়ারেন্টভুক্ত আসামি হিসেবে হাতিরঝিল থানা পুলিশ সাংবাদিক রুহুল আমিন গাজীকে গ্রেফতার করে।

Check Also

bnp-flag

নতুন সংকটে বিএনপি

দীর্ঘদিন ক্ষমতায় বাইরে থাকার ফলে দলীয় কোন্দল ও উপনির্বাচন-স্থানীয় সরকার নির্বাচনে ভরাড়ুবি এবং সাংগঠনিক দুর্বলতাসহ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Share
Pin