কার মনের কথা জাফর উল্লাহর মুখে?

গত কয়েকদিন ধরেই সরব ডা: জাফর উল্লাহ। কোন রাজনৈতিক দলের নেতা না হলেও রাজনৈতিক বক্তব্য দিয়ে তিনি আলোচনায় আছেন। তিন দিন আগে তিনি মধ্যবর্ত্তী নির্বাচন চাইলেন। এরপর রোহিঙ্গাদের সামরিক প্রশিক্ষন দিয়ে মিয়ানমারে পাঠানোর প্রস্তাব দিলেন।

সর্বশেষ গতকাল, তিনি প্রধানমন্ত্রীকে বিশ্রামে যাবার পরামর্শ দিয়েছেন।

প্রশ্ন উঠেছে, হঠাৎ গণস্বাস্থ্যের ট্রাস্টি ডা: জাফর উল্লাহ এতো সরব হলেন কেন? এসব স্পর্শকাতর বিষয় নিয়ে তিনি কথা বলছেন কেন? এসব কি জাফর উল্লাহর বক্তব্য, নাকি তাকে দিয়ে কেউ এসব বলাচ্ছে? রাজনৈতিক অঙ্গনে এই প্রশ্ন গুলো আলোচনা হচ্ছে।

আপাত: তার তিনটি বক্তব্যের মধ্যে যোগসূত্র রয়েছে। তিনটি বক্তব্যের লক্ষ্য এক। দেশে একটা অস্থিতিশীল পরিস্থিতি তৈরী করা। এই বক্তব্য গুলো স্রেফ যে মেঠো বক্তব্য তা নয়। কারণ তিনটি বিষয়ের কোন একটিও সমসাময়িক নয়।

মধ্যবর্ত্তী নির্বাচন প্রসঙ্গেই আসা যাক। বিএনপি বলে দিয়েছে তারা মধ্যবর্ত্তী নির্বাচন চায় না। তাহলে মধ্যবর্ত্তী নির্বাচন কোন রাজনৈতিক দলের দাবী না? এটা আসলে কার দাবী? দাবীটা যে ডা: জাফর উল্লাহর নয় তা বুঝতে পন্ডিত হবার দরকার নেই। কারন, তিনি তো নির্বাচন করেন না। তাহলে কার দাবী এটি?

রোহিঙ্গাদের নিয়ে জাফর উল্লাহর বক্তব্য উস্কানী মূলক। এমন এক সময় তিনি এই বক্তব্য রাখলেন, যখন সরকার রোহিঙ্গাদের ভাষান চরে নিয়ে যাওয়ার প্রস্তুতি শুরু করেছে। রোহিঙ্গাদের ভাষানচরে নিয়ে যাওয়ার বিরোধিতা করছে কিছু এনজিও ও আন্তর্জাতিক সংস্থা। তাদের মাঠে নামার সুযোগ করে দেয়ার জন্যই কি, একথা বললেন ডা: জাফর উল্লাহ?

গতকাল জাফর উল্লাহ সবচেয়ে বিতর্কিত বক্তব্য রেখেছেন। তিনি প্রধানমন্ত্রীকে বিশ্রাম নিতে বলেছেন। যার নেতৃত্বে দেশ চলছে। যিনি একাই সব সমস্যা ও সংকট সামাল দিচ্ছেন। একমাত্র যার উপর দেশের মানুষের নিরঙ্কুশ আস্থা, তাকে বিশ্রামে যাওয়ার কথা কেন বললেন ডা: জাফর উল্লাহ।

বাংলাদেশে কেউ বলেননি যে, প্রধানমন্ত্রীর জন্যই বাংলাদেশ সংকট মোকাবেলা করতে পারছেন। তখন জাফর উল্লাহর এই বক্তব্য অনেক প্রশ্নের জন্ম দিয়েছে। বিশ্রাম মানে অবসর। অর্থাৎ ওয়ান ইলেভেনের সময় যে মাইনাস ফর্মূলা, সেই ফর্মূলার অনুরনন কি জাফর উল্লাহর কন্ঠে?

এজন্যই তিনি মধ্যবর্ত্তী নির্বাচন চাইছেন, এজন্যই তিনি রোহিঙ্গা নিয়ে অনাকাংখিত উত্তেজনা সৃষ্টির চেষ্টা করছেন? এজন্যই তিনি শেখ হাসিনাকে বিশ্রাম নিতে বলছেন? ওয়ান ইলেভেনের ভুত কি জাফর উল্লাহর উপর সাওয়ার হয়েছে। তিনি কি তাদের কথাই বলছেন।

Check Also

ঢাকায় আল-জাজিরার ৫ গুপ্তচর?

গণমাধ্যমে গুঞ্জন চলছে। আল-জাজিরার পক্ষে তথ্য সংগ্রহের কাজ করছেন ঢাকায় প্রতিষ্ঠিত ৪ সংবাদকর্মী। এদের মধ্যে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Share
Pin