করোনা নয়, রিজভী ভুগছেন বমি ও পেটে ব্যথায়

করোনাভাইরাস সংক্রমণের ঝুঁকি মাথায় নিয়ে ঢাকাসহ বিভিন্ন এলাকায় ত্রাণ বিতরণ কার্যক্রমে অংশ নিয়ে অসুস্থ হয়ে পড়েছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। তবে তিনি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত নন। পেটে প্রচণ্ড ব্যথা এবং বারবার বমি হওয়ার কারণে শারীরিকভাবে খুবই দুর্বল হয়ে পড়েছেন।

সোমবার (২৭ এপ্রিল) বিকেলে যোগাযোগ করা হলে রুহুল কবির রিজভী নিজে এসব তথ্য জানান। বিএনপির এ নেতা জানান, তিনি এই মুহূর্তে রাজধানীর আদাবরের বাসায় আছেন। বিএনপির স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক ডা. রফিকুল ইসলাম তাকে চিকিৎসা দিচ্ছেন।

রিজভী বলেন, আমার মাঝে-মধ্যে যেটা হয়— পেটে প্রচণ্ড ব্যথা আর বমি। সেটাই হয়েছে। আমি বাসায় আছি, চিকিৎসা নিচ্ছি।

করোনাভাইরাসের কোনো লক্ষণ আছে কি-না জানতে চাইলে রিজভী বলেন, করোনার কোনো লক্ষণ— জ্বর, কাশি, সর্দি, গলা ব্যথা একেবারেই নেই। আমার সমস্যা হলো পেটে ব্যথা আর বমি।

রিজভীর চিকিৎসক ও বিএনপির স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক ডা. রফিকুল ইসলাম বলেন, স্বৈরাচারবিরোধী আন্দোলনের সময় ১৯৮৪ সালে রুহুল কবির রিজভীর পেটে গুলি লেগেছিল। সেই কারণে মাঝে মধ্যে তার পেটে প্রচণ্ড ব্যথা অনুভূত হয়। গত রোববার (২৬ এপ্রিল) তিনি হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়েন। পেটে ব্যথার সঙ্গে বমিও আছে। পরিস্থিতির কারণে হাসপাতালে না নিয়ে বাসায়ই তার চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হয়েছে।

নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে কখনো সরাসরি কখনো ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে সংবাদ সম্মেলন চালিয়ে আসছিলেন বিএনপির এ সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব। তাছাড়া দল এবং অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের ত্রাণ তৎপরতায়ও নিয়মিত অংশ নিচ্ছিলেন তিনি। সম্প্রতি ঢাকার বাইরে নারায়ণগঞ্জে একদিন এবং পার্শ্ববর্তী জেলা মুন্সিগঞ্জে একদিন ত্রাণ বিতরণ কার্যক্রমে অংশ নেন তিনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.