খালেদার এই ছবি নিয়ে সামাজিক মাধ্যমে তোলপাড়

শর্ত সাপেক্ষে কারামুক্ত বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার একটি ছবি নিয়ে সামাজিক মাধ্যমে বেশ তোলপাড় চলছে। ছাত্রদল-যুবদল স্বেচ্ছাসেবক দলের বেশ কয়েকজন নেতাকর্মী ছবিটি ফেসবুকে পোস্ট করেছেন। তাতে অনেক মানুষ প্রতিক্রিয়াও জানিয়েছেন।

ছবিটিতে দেখা যায় পিঙ্ক কালারের হিজাব পরে একটি সোফায় বসে আছেন খালেদা জিয়া আর তার পাশে কফি কালারের বোরকা পরিহিত অবস্থায় দাঁড়িয়ে রয়েছেন তার কনিষ্ঠপুত্র প্রয়াত আরাফাত রহমান কোকোর স্ত্রী শর্মিলা রহমান সিঁথি।

১৯ এপ্রিল রোববার দুপুরের দিকে এই ছবিটি ফেসবুকে পোস্ট করেন ছাত্রদলের সাবেক কয়েকজন কেন্দ্রীয় নেতা। এর মধ্যে রয়েছেন- সেলিনা সুলতানা নিশিতা, বহিষ্কৃত এজমল হোসেন পাইলট, স্বেচ্ছাসেবক দলেরর কেন্দ্রীয় নেতাসহ বেশ কয়েকজন। ছবিটিকে অনেকেই সাম্প্রতিক সময়ের ছবি হিসেবে মনে করছেন। তবে পোস্টদাতারা এ বিষয়ে কিছু উল্লেখ করেননি।

সেলিনা সুলতানা নিশিতা ‘আলহামদুলিল্লাহ’ ক্যাপশনে ছবিটা পোস্ট করেছেন তার ফেসবুক আইডি থেকে। এতে প্রায় সাড়ে চার হাজার ফেসবুক ব্যবহারকারী প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন।

এজমল হোসেন পাইলট ‘পরম আপনাকে হেফাজত করুন, আমিন’ এই ক্যাপশনে ছবিটি পোস্ট করেছেন; তাতে প্রায় দেড় হাজার জন প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন।

স্বেচ্ছাসেবক দলের কেন্দ্রীয় নেতা মোরশেদ আলম এই ছবি পোস্ট করে লিখেছেন, ‘করোনার মধ্যে নামাজ, পত্রপত্রিকা ও টেলিভিশনে সংবাদ দেখে সময় কাটান বিএনপির চেয়ারপারসন ও সাবেক তিনবারের প্রধানমন্ত্রী দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার সবচেয়ে জনপ্রিয় নেত্রী, আপসহীন নেত্রী, দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া।’

সোমবার ২০ এপ্রিল দৈনিক দিনকালের ফটো সাংবাদিক বাবুল তালুকদার (যিনি খালেদা জিয়ার কর্মসূচির ছবি তুলে থাকেন) ফেসবুকে এই ছবি পোস্ট করে লিখেছেন, ‘প্লিজ, কেউ বিভ্রান্তি ছড়াবেন না, বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার এই ছবিটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বুঝে অথবা না বুঝে অনেকেই শেয়ার করছেন, যা অত্যন্ত দুঃখজনক! এই ছবিটি অনেক পুরোনো ! তিনি অসুস্থ অবস্থায় এখনো বাসায় অবস্থান করছেন। প্রিয় নেত্রীর চিকিৎসার জন্য ডা. জোবায়দা রহমানের তত্ত্বাবধানে মেডিকেল টিম চিকিৎসা দিয়ে যাচ্ছে। শুধু ওনার চিকিৎসকরাই তার বর্তমান শারীরিক অবস্থার কথা বলতে পারবেন। আমরা প্রিয় নেত্রীর সুস্থতার জন্য দোয়া কামনা করি, আমিন।’

তিনি আরও লেখেন, ‘বিশেষ দ্রষ্টব্য, বিএনপি চেয়ারপারসন আমাদের সর্বোচ্চ নেতা, ওনার সম্পর্কে যেকোনো কিছুই শেয়ার করার ক্ষেত্রে আমাদের আরও সাবধানী হওয়া উচিত। কারণ এতে লক্ষ কোটি সমর্থক ও জনতার কাছে ভুল মেসেজ যেতে পারে, যা বড় ক্ষতির কারণ হয়ে দাঁড়াতে পারে। পরিশেষে বলব, বেয়াদবি নেবেন না, আমি কখনোই ফেসবুকে কোনো মিথ্যা জিনিস প্রচার করি না, আপনাদের সবাইকে ধন্যবাদ ও শুভ কামনা রইল।’

বাবুল তালুকদারের এই পোস্টে এজমল হোসেন পাইলট মন্তব্য করেন, ছবিটি আমিও দিয়েছি। তবে কবেকার ছবি বা গতকালকের ছবি এমন কিছু লিখি নাই। আমার কাছেও মনে হয়েছে ছবিটি পুরোনো। সবার ভ্রান্তি দূর করার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ।’

ছবিটির বিষয়ে জানতে চাইলে পাইলট জাগো নিউজকে বলেন, ‘এটা কবেকার ছবি, কোথাকার ছবি তা জানি না। আমাদের নেত্রী মুক্তি পেয়েছেন। তার একটা ছবি ফেসবুকে পেয়েছি, তাই তার সুস্থতা কামনা করে পোস্ট দিয়েছি।’

এ বিষয়ে বিএনপি চেয়ারপারসনের প্রেস উইং সদস্য শায়রুল কবির খান বলেন, ‘ছবিটিতে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার সঙ্গে তার পুত্রবধূ শর্মিলা রহমান সিঁথি রয়েছেন। ছবিটা কবেকার, কোথাকার তা জানা নেই। আর এই মুহূর্তে শর্মিলা রহমান সিঁথি লন্ডনে অবস্থান করছেন।’

সূত্র: জাগো নিউজ

Check Also

bnp-flag

নতুন সংকটে বিএনপি

দীর্ঘদিন ক্ষমতায় বাইরে থাকার ফলে দলীয় কোন্দল ও উপনির্বাচন-স্থানীয় সরকার নির্বাচনে ভরাড়ুবি এবং সাংগঠনিক দুর্বলতাসহ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Share
Pin