nirbachon_commission

সংখ্যালঘুদের ওপর হামলা নির্বাচনে প্রভাব ফেলবে না: ইসি

রংপুরে সংখ্যালঘুদের ওপর যে হামলা হয়েছে, তা সিটি করপোরেশনের আসন্ন নির্বাচনে প্রভাব ফেলবে না বলে আশা করছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)।

রংপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচন নিয়ে আজ রোববার আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সঙ্গে বৈঠক শেষে প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নুরুল হুদা এই আশার কথা বলেন। এ সময় অন্য চার কমিশনার উপস্থিত ছিলেন।

রংপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচন প্রসঙ্গে নুরুল হুদা বলেন, সুষ্ঠু ও গ্রহণযোগ্য নির্বাচনের স্বার্থে যা যা করণীয়, তার সবকিছুই করা হবে।

সিইসি বলেন, প্রত্যেক প্রার্থী সমান সুযোগ পাবেন। ভোটাররা যাতে ভোট দিতে পারেন, তা নিশ্চিত করা হবে। প্রার্থীরা যাতে কাজ করতে পারেন, সে পরিবেশ তৈরি করা হবে।

এক প্রশ্নের জবাবে নুরুল হুদা বলেন, রংপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচন সেনা মোতায়েন নিয়ে বৈঠকে কোনো আলোচনা হয়নি। কেউ এ বিষয়ে প্রস্তাবও দেয়নি।

আগামী ২১ ডিসেম্বর রংপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচন হবে। এই নির্বাচন নিয়ে আশঙ্কার কোনো কারণ নেই বলে মন্তব্য করেন নুরুল হুদা।

সিইসি জানান, রংপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে পুলিশ, র‍্যাব, এপিবিএন, আনসার মিলিয়ে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সাড়ে তিন হাজারের বেশি সদস্য মোতায়েন থাকবে। ১৯৩টি কেন্দ্রের প্রতিটিতে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর ২২ জন করে সশস্ত্র সদস্য মোতায়েন থাকবে। আর ঝুঁকিপূর্ণ কেন্দ্র থাকবে ২৪ জন করে সদস্য।

সিইসি জানান, পুলিশ-এপিবিএনের সমন্বয়ে ৩৩টি, র‍্যাবের ৩৩টি ও বিজিবির ৩৩ টহল দল নির্বাচনের মাঠে থাকবে।

প্রথম আলো

৭ মার্চের ভাষণ নিষিদ্ধ করেছিল ফখরুলরা: তোফায়েল

বিএনপির প্রতি ইঙ্গিত করে বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ বলেছেন, ১৯৭১ সালের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৭ মার্চের ঐতিহাসিক ভাষণ এক সময় এই দেশে নিষিদ্ধ করেছিল ফখরুলরা (বিএনপির মহাসচিব) নিষিদ্ধ করেছিল। তিনি বলেন, ‘আমরা এই ভাষণ প্রচার করতে পারিনি, মাইক কেড়ে নিত।’

রবিবার সচিবালয়ে ঢাকায় ব্রাজিলের রাষ্ট্রদূত যাও তাবাযারা দি ওলিভেরা জুনিয়রের সঙ্গে বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন তোফায়েল।

৭ মার্চের ভাষণকে ইউনেস্কো বিশ্ব প্রামাণ্য ঐহিত্যের অংশ হিসেবে স্বীকৃতি দেয়ায় শনিবার সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে যে নাগরিক সমাবেশ ডাকা হয়, তাতে মানুষকে যোগ দিতে বাধ্য করা হয়েছে-বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের এমন বক্তব্য নিয়েও কথা বলেন তোফায়েল। বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, ‘গতকাল (শনিবার) সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে নাগরিক কমিটি আয়োজিত সমাবেশ হয়েছে। ৭ মার্চের ভাষণকে ইউনেস্কো স্বীকৃতি দেয়ায় দেশের নাগরিক সমাজ এ সভার আয়োজন করে। কিন্তু এ সভাকেও মির্জা ফখরুলরা ছোট করে।’

‘বিএনপি মহাসচিব অবশ্য বলেছিলেন ৭ মার্চের স্বীকৃতি আনন্দের। এতটুকুই তিনি বলেছেন। কিন্তু এতটুকু বলতেও তার খুব কষ্ট হয়েছে। কারণ, এই ফখরুলরাই তো তারা, যারা ৭ মার্চের ভাষণকে নিষিদ্ধ করেছিল।’

‘প্রথমে এ ভাষণ নিষিদ্ধ করেছিল পাকিস্তানিরা। এরপরে বাংলাদেশে নিষিদ্ধ করেছিল জিয়া-খালেদারা।’

তোফায়েল আহমেদ বলেন, ‘গতকাল মির্জা ফখরুল যে বক্তব্য দিয়েছেন সেটি তার মুখে মানায় না। এমন কোনো বিষয় নেই যার মধ্যে তারা নেতিবাচক কিছু খুঁজে বেড়ায় না। সরকারের ভাল কোনো উদ্যোগই তাদের ভাল লাগে না। এভাবে ছোটো মন নিয়ে রাজনীতি করা যায় না। রাজনীতি করতে হলে বড় মন লাগে।’

বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, ৭ মার্চের যে ভাষণ পৃথিবীর শ্রেষ্ঠ ভাষণ। কারণ, এই ভাষণটি ২০ লক্ষাধিক মানুষের সামনে দেয়া হয়েছে। পৃথিবীর অন্য কোনো ভাষণ এত লোকের সামনে দেয়া হয়নি। আব্রাহাম লিংকন, মার্টিন লুতার কিংসহ অনান্যদের বক্তব্য ছিল লিখিত এবং এগুলো সভা-সেমিনারে দেয়া বক্তব্য। এদিক বিবেচনায় বঙ্গবন্ধুর ভাষণ অদ্বিতীয়।

ঢাকাটাইমস

ভারতের সঙ্গে সরকারের সম্পর্ক নষ্ট করতে হিন্দুদের বাড়িঘরে আগুন: সেতুমন্ত্রী

ভারতের সঙ্গে বর্তমান সরকারের সম্পর্ক নষ্ট করতেই রংপুরে হিন্দুদের বাড়িঘরে হামলা-ভাঙচুর ও আগুন দেয়া হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

রোববার রংপুরে দুর্বৃত্তদের আগুনে পুড়ে যাওয়া হিন্দুদের বাড়িঘর পরিদর্শনে গিয়ে ওবায়দুল কাদের সাংবাদিকদের কাছে এ মন্তব্য করেন।

সেতুমন্ত্রী বলেন, আগামী একাদশ জাতীয় সংসদের সাধারণ নির্বাচনকে সামনে রেখে একটি রাজনৈতিক স্বার্থান্বেষী মহল ও অপশক্তি দেশের পরিস্থিতিকে ঘোলাটে করতে হিন্দুদের বাড়িঘরে আগুন দিয়েছে। তারা অত্যন্ত পরিকল্পিতভাবে এসব ঘটনার মাধ্যমে মানুষের মধ্যে আতঙ্ক সৃষ্টি করতে চায়।

তিনি বলেন, ভারতের সঙ্গে সরকারের সম্পর্ক নষ্ট করতে এসব ঘটনা ঘটিয়েছে। যারা ভারতের সঙ্গে সরকারের সম্পর্ক বিনষ্ট করতে চায় তারা বুকার স্বর্গে বাস করছে। এসব করে ভারতের সঙ্গে সম্পর্ক নষ্ট করতে পারবে না।

এসময় তিনি ক্ষতিগ্রস্ত প্রতি পরিবারকে ২৫ হাজার, ঘর তৈরির জন্য ৭ হাজার ও মন্দির নির্মাণের জন্য ৭ হাজার টাকা অনুদান দেন। লাগলে আরও দেয়া হবে বলেও জানান তিনি।

শীর্ষ নিউজ

ঢাকায় ক্ষমতাধর চার পররাষ্ট্রমন্ত্রী – কেন আসলেন তারা?

বিশ্ব ক্ষমতার কেন্দ্রবিন্দুতে থাকা চীন, জাপান, সুইডেন ও জার্মানির পররাষ্ট্রমন্ত্রী একই সঙ্গে ঢাকায় অবস্থান করছেন। গতকাল সকাল থেকে মধ্যরাত পর্যন্ত বিভিন্ন সময়ে তারা ঢাকা এসে পৌঁছান।

সফরে এসেছে মার্কিন সিনেটর ও কংগ্রেসম্যানদের একটি প্রতিনিধি দলও। আজ ভোরে এসে পৌঁছবেন ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিসেবে পরিচিত ইইউ হাই-রিপ্রেজেন্টেটিভ। অতিথি জাপান, সুইডেন ও জার্মানির পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও ইইউ প্রতিনিধিকে নিয়ে আজ একসঙ্গে কক্সবাজার রোহিঙ্গা ক্যাম্প পরিদর্শনে যাচ্ছেন বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

গতকাল দুপুরের আগে আগে বিশেষ বিমানে ঢাকা এসে পৌঁছান চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়াং ই। রাত ৮টার পরপরই ঢাকার হযরত শাহজালাল (রহ.) আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে বিশেষ বিমানে পৌঁছান জার্মান পররাষ্ট্রমন্ত্রী সিগমার গ্যাব্রিয়েল। এর ঘণ্টাখানেক পর আসেন সুইডেনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মারগট ওয়ালস্টার। জাপানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী তারা কোনো মধ্যরাত ১২টার পরপরই পৌঁছান ঢাকায়।

আজ ভোরে পৌঁছাবেন ইউরোপীয় ইউনিয়নের পররাষ্ট্র বিষয়ক হাই-রিপ্রেজেন্টেটিভ ফেদেরিকা মোগেরিনি। পরে আজ সকাল ১০টার দিকে হেলিকপ্টারে করে বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে কক্সবাজার যাবেন জাপানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী তারা কোনো, জার্মান পররাষ্ট্রমন্ত্রী সিগমার গ্যাব্রিয়েল, সুইডেনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মারগট ওয়ালস্টার ও ইইউ হাই-রিপ্রেজেন্টেটিভ ফেদেরিকা মোগেরিনি।

একই সময়ে চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়াং ই ঢাকায় অবস্থান করলেও তিনি কক্সকাজার পরিদর্শনে যাবেন না। অন্যদিকে গতকাল দুপুরের আগে ঢাকা পৌঁছানোর পর সরাসরি কক্সবাজারের উদ্দেশে রওনা দেন দুই মার্কিন সিনেটর জেফ মার্কলে ও রিচার্ড ডারবিনের নেতৃত্বাধীন সাত সদস্যের মার্কিন প্রতিনিধি দল। এই দলে আছেন আরও তিন কংগ্রেসম্যান এবং চারজন স্টাফার।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, আজ সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত উখিয়ার ক্যাম্পে সময় কাটাবেন জাপান, সুইডেন, জার্মানি ও ইইউ পররাষ্ট্রমন্ত্রীরা। পররাষ্ট্রমন্ত্রী, সচিব, চিফ অব প্রটোকল এবং পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জ্যেষ্ঠ কূটনীতিকরা তাদের সঙ্গে থেকে বাংলাদেশ ও জাতিসংঘের বিভিন্ন সংস্থার ত্রাণ তত্পরতা ঘুরে দেখাবেন। সরাসরি আশ্রিত রোহিঙ্গাদের কথাও শুনবেন পররাষ্ট্রমন্ত্রীরা। বিকালে ঢাকায় ফিরে তারা পৃথকভাবে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে সাক্ষাৎ-বৈঠক করবেন। জাপানের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে আলাদা দ্বিপক্ষীয় বৈঠক হবে বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর।

পরে আজ সন্ধ্যায়ই নিজ নিজ বিশেষ বিমানে মিয়ানমারের উদ্দেশে ঢাকা ছাড়বেন জাপান, সুইডেন ও ইইউ পররাষ্ট্রমন্ত্রীরা। তাদের বিদায় জানিয়ে রাত ৯টার দিকে জার্মান পররাষ্ট্রমন্ত্রীর বিশেষ বিমানে মিয়ানমারের উদ্দেশে রওনা দেবেন বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী। একই দিন সফর শেষে ঢাকা ছাড়বেন মার্কিন প্রতিনিধিরাও। এর আগে তারা কক্সবাজার থেকে ঢাকা ফিরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাহমুদ আলীসহ সরকারের বিভিন্ন পর্যায়ে সাক্ষাৎ, বৈঠক ও মতবিনিময় করবেন।

ঢাকায় চার পররাষ্ট্রমন্ত্রী : মিয়ানমার থেকে বাংলাদেশে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গাদের কাছে পাওয়া সব তথ্য যুক্তরাষ্ট্রের কংগ্রেসে উপস্থাপন করা হবে বলে জানিয়েছেন সে দেশের প্রতিনিধিরা। গতকাল কক্সবাজারের উখিয়া উপজেলার বালুখালী রোহিঙ্গা ক্যাম্প পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের এ কথা বলেন যুক্তরাষ্ট্রের সিনেটর জেফ মার্কলে। গতকাল বেলা ১১টার কিছু পরে আমেরিকার ১০ সদস্যের প্রতিনিধি দল কক্সবাজারের রোহিঙ্গা ক্যাম্পে পৌঁছায়। এর মধ্যে দুজন সিনেটর ও তিনজন কংগ্রেসম্যান ছিলেন। সঙ্গে ছিলেন বাংলাদেশে নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত মার্শা বার্নিকাট। উখিয়া উপজেলার বালুখালী ক্যাম্পে গিয়ে সেখানে অবস্থানরত রোহিঙ্গাদের সঙ্গে আলাপ করেন তারা।

এ সময় জেফ মার্কলে সাংবাদিকদের জানান, রোহিঙ্গাদের সঙ্গে কথা বলে নির্যাতনের নানা তথ্য পাওয়া গেছে। বাংলাদেশ সফর শেষে তারা মিয়ানমারে যাবেন। ওখান থেকেও তথ্য সংগ্রহ করে যুক্তরাষ্ট্রে ফিরে তা কংগ্রেসে জানাবেন তারা।

উল্লেখ্য, মার্কিন প্রতিনিধিরা শুক্রবার রাতে ঢাকায় পৌঁছান, কক্সবাজার আসেন গতকাল সকালে। রোহিঙ্গা পরিস্থিতি জানতে চীন ও জাপানের পররাষ্ট্রমন্ত্রীদেরও গতকাল ঢাকায় আসার কথা রয়েছে। এ ছাড়া আজ বাংলাদেশ সফরে আসছেন জার্মানি ও সুইডেনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এবং ইউরোপীয় ইউনিয়নের নিরাপত্তা ও পররাষ্ট্র নীতিবিষয়ক মন্ত্রী।

উৎসঃ   বিডি-প্রতিদিন

Check Also

হাজী সেলিমের হাতে জিম্মি লালবাগ?

গতকাল রাতে হাজী সেলিমের পুত্রের হাতে একজন নৌ-বাহিনী কর্মকর্তার লাঞ্ছিত হওয়ার ঘটনার পর মুখ খুলেছে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Share
Pin