kader_fakhrul

একই বিমানে রংপুর যাচ্ছেন কাদের ফখরুল

একই বিমানে রংপুর সফরে যাচ্ছেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের ও বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। সকাল পৌনে ৯টায় ইউএস বাংলার একটি ফ্লাইটে তারা সৈয়দপুর যাবেন।

সেখান থেকে পৃথকভাবে রংপুরে হিন্দুদের ঘরবাড়িতে অগ্নিসংযোগের ঘটনাস্থল পরিদর্শন করবেন। দুই দলের শীর্ষ পর্যায়ের দুই নেতা একই বিমানে ঢাকা থেকে সৈয়দপুর বিমানবন্দরে যাবেন বলে প্রশাসন ও দলীয় সূত্রে জানানো হয়েছে। ফেসবুকে ধর্ম অবমাননার অভিযোগ তুলে ১০ নভেম্বর রংপুর সদরের ঠাকুরপাড়ায় হিন্দুদের ঘরবাড়িতে হামলা ও অগ্নিসংযোগ করে একদল লোক। এতে নয়টি হিন্দু পরিবারের ১৮টি ঘর ভস্মীভূত হয়। এ সময় পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে গুলিবিদ্ধ হয়ে হাবিবুর রহমান (৩০) নামে একজন নিহত হন। পুলিশসহ আহত হন আরও অন্তত ৩০ জন।

রংপুরের জেলা প্রশাসক মুহাম্মদ ওয়াহিদুজ্জামান বলেন, আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের স্যার ইউএস বাংলার একটি ফ্লাইটে সকাল পৌনে ৯টায় সৈয়দপুর বিমানবন্দরের উদ্দেশে রওনা দেবেন। সেখান থেকে সড়কপথে সকাল ১০টায় ঠাকুরপাড়ায় যাবেন। ঘটনাস্থল পরিদর্শন ছাড়াও মন্ত্রী ক্ষতিগ্রস্তদের মধ্যে ত্রাণসামগ্রী বিতরণ করবেন বলে জানান জেলা প্রশাসক।

এদিকে রংপুর মহানগর বিএনপি সাধারণ সম্পাদক শহীদুল ইসলাম মিজু জানান, মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ঢাকা থেকে ইউএস বাংলার একটি ফ্লাইটে সকাল পৌনে ৯টায় সৈয়দপুর বিমানবন্দরে আসবেন। সেখান থেকে সড়কপথে ১০টায় ঠাকুরপাড়ায় আসার কথা ছিল। কিন্তু আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের ওই সময় ঠাকুরপাড়ায় আসবেন জানার পর আমরা সময় পরিবর্তন করেছি। ওবায়দুল কাদের পরিদর্শন করে ফিরে যাওয়ার পর আমাদের মহাসচিব ঠাকুরপাড়ায় আসবেন। পরিদর্শনকালে তিনি ক্ষতিগ্রস্তদের মধ্যে অনুদান প্রদান করবেন।

উৎসঃ   purboposhchim

দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনে না যাওয়ার সিদ্ধান্ত বিএনপির

দলীয় সরকারের অধীনে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে না যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিএনপি। বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া ও দলের নির্বাহী কমিটির সর্বোচ্চ পদে থাকা ভাইস চেয়ারম্যানদের মধ্যে রুদ্ধদ্বার বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।শনিবার রাতে গুলশানে চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে এই বৈঠক হয়। বৈঠকে দেশের রাজনৈতিক পরিস্থিতিসহ সাংগঠনিক বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়।

দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনে না যাওয়া, বিচারিক ক্ষমতা দিয়ে সেনা মোতায়েনের দাবির পক্ষে সবাই একমত প্রকাশ করেন। বৈঠকে খালেদা জিয়ার বিভাগ ও জেলা সফর নিয়ে আলোচনা হয়।কোন্দল মিটিয়ে দলকে শক্তিশালী করতে সিনিয়র নেতাদের নির্দেশ দিয়েছেন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে দলে যাতে কোনো দুর্বলতা না থাকে সেজন্য এখন থেকে সবাইকে গুরুত্বের সঙ্গে দায়িত্ব পালনের নির্দেশ দেন তিনি।

সংগঠনের ভিত মজবুত করতে বিশৃঙ্খলাকারীদের হুশিয়ার করে দিয়েছেন বিএনপি চেয়ারপারসন। দ্রুত ঝুলে থাকা জেলা, থানা ও অঙ্গসংগঠনের কমিটি গঠনের নির্দেশ দেন তিনি। সবাইকে এলাকায় গিয়ে সরকারের ব্যর্থতা তুলে ধরার পাশাপাশি তত্ত্বাবধায়ক ইসু্যতে জনমত তৈরির নির্দেশ দেন খালেদা জিয়া।সংগঠন দ্রুত গোছানোর তাগিদ দিয়ে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া বলেন, তরুণদের জায়গা করে দিতে হবে। যারা বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করতে চায় তাদের ছাড় দেয়া যাবে না।

খালেদা জিয়ার সভাপতিত্বে এই বৈঠকে ভাইস চেয়ারম্যানদের মধ্যে ২৫ জন উপস্থিত ছিলেন। তারা হলেন- এম মোরশেদ খান, হারুন আল রশিদ, আবদুল্লাহ আল নোমান, অধ্যাপক আবদুল মান্নান, আবদুল মান্নান, ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু, শাহজাহান ওমর, হাফিজ উদ্দিন আহমেদ, চৌধুরী কামাল ইবনে ইউসুফ, সেলিমা রহমান, আলতাফ হোসেন চেৌধুরী, বরকতউল্লাহ বুলু, মোহাম্মদ শাহজাহান, মীর মো. নাসিরউদ্দিন, খন্দকার মাহবুব হোসেন, মাহমুদুল হাসান, ইনাম আহমেদ চেৌধুরী, আমিনুল হক, অধ্যাপক এজেডএম জাহিদ হোসেন, শামসুজ্জামান দুদু, আহমেদ আজম খান, জয়নাল আবেদীন, নিতাই রায় চৌধুরী, গিয়াসউদ্দিন কাদের চৌধুরী ও শওকত মাহমুদ। এ ছাড়াও বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর উপস্থিত ছিলেন।

বিডি প্রতিদিন

এর চেয়ে দুঃখজনক আর কী হতে পারে?

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ও সাবেক আইনমন্ত্রী ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ বলেছেন, কী করে প্রধান বিচারপতিকে পদত্যাগ করানো হয়েছে আপনারা সবাই জানেন। এর ফলে সুপ্রিমকোর্টের মর্যাদা ও সম্মান বলে আর কিছুই নেই। তিনি বলেন, প্রধান বিচারপতির এই পদত্যাগের মাধ্যমে বাংলাদেশে বিচার বিভাগের স্বাধীনতার মৃত্যু ঘটেছে। মামলা দিয়ে,ব্ল্যাকমেইল করে তার কাছ থেকে পদত্যাগপত্র নেয়া হয়েছে। এর চেয়ে দুঃখজনক দেশের মানুষের জন্য আর কী হতে পারে? অর্থাৎ সুবিচার পাওয়ার সব পথ বন্ধ করে দেয়া হয়েছে।

শনিবার দুপুরে এক আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন। জাতীয় প্রেস ক্লাবে অপরাজেয় বাংলাদেশ নামক সংগঠনের উদ্যোগে বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের ৫৩তম জন্মদিন উপলক্ষে এই আলোচনা সভা হয়। এতে সংগঠনের সহসভাপতি ভিপি ইব্রাহীমের সভাপতিত্বে আরও বক্তব্য রাখেন বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা আবদুস সালাম, ফরিদা মনি শহীদুল্লাহ, খালেদা ইয়াসমীন, আবু নাসের মুহাম্মদ রহমাতুল্লাহ,মিলন মেহেদী প্রমুখ।

প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার পদত্যাগের মধ্য দিয়ে দেশের বিচার বিভাগের স্বাধীনতার মৃত্যু ঘটেছে বলে অভিযোগ করেন ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ।

তিনি বলেন,এখন কী হবে? এখন আর সংবিধানের ষোড়শ সংশোধনীর দরকার নেই। অর্থাৎ সংসদ দ্বারা বিচারপতিদের অপসারণ করার যে ব্যবস্থা ষোড়শ সংশোধনীতে করা হয়েছে,ওইটাও যদি থাকে সেটারও আর দরকার নেই। আর সুপ্রিম জুডিশিয়াল কাউন্সিল যেটা ওই রায়ে বলা হয়েছিল,সেটা বলবৎ থাকবে- সেই কাউন্সিলেরও আর প্রয়োজন নেই। এখন একটা পথ তো সরকার দেখিয়ে দিয়েছে, কোনো রায় যদি পছন্দ না হয়, তাহলে সেই বিচারপতিকে কীভাবে অপসারণ করা যায়,কীভাবে তার বিরুদ্ধে মামলা এনে ব্ল্যাকমেইল করে তার থেকে পদত্যাগপত্র নেয়া যায়।

‘আর অপসারণ করার জন্য তো আর আইনের প্রয়োজন নেই,সংবিধানের কোনো প্রয়োজন নেই। এটা এত বড় ব্ল্যান্ডার, এ পলিটিক্যাল মিসটেকের জন্য একদিন না একদিন নিশ্চয়ই ক্ষমতাসীনরা অনুশোচনা করবেন। এরকম অবস্থায় বিচারপতিরা মুক্তমনে বিচার করতে পারবে কিনা- তা নিয়েও শংকা রয়েছে।’

এদিকে শনিবার দুপুরে বাংলাদেশ ন্যাপের আরেক আলোচনা সভায় বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান বরকত উল্লা বুলু বলেন, আন্দোলন-সংগ্রাম ছাড়া মুক্তি নাই। আর এই আন্দোলন-সংগ্রামের পথপ্রদর্শক হলেন মজলুম জননেতা মওলানা আবদুল হামিদ খান ভাসানী। তোপখানা রোডের বাংলাদেশ শিশুকল্যাণ মিলনায়তনে মওলানা আবদুল হামিদ খান ভাসানীর ৪১তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে এই আলোচনা সভা হয়। এতে বাংলাদেশ ন্যাপের মহাসচিব এম. গোলাম মোস্তফা ভুঁইয়ার সভাপতিত্বে আরও বক্তব্য রাখেন বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল,জাতীয় দলের চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট সৈয়দ এহসানুল হুদা,ডিএল সাধারণ সম্পাদক সাইফুদ্দিন আহমেদ মনি,এনপিপি মহাসচিব মোস্তাফিজুর রহমান মোস্তফা প্রমুখ।

উৎসঃ   যুগান্তর

Check Also

‘হাজী’ পরিবারের বিস্ময়কর উত্থান

পিতার দুই সংসারের দ্বিতীয় পক্ষের সন্তান তিনি। অভাব-অনটনে বেড়ে ওঠা। অর্থভাবে লেখাপড়া করতে পারেননি। কিশোর …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Share
Pin