নৌকা প্রতীক মানেই সাত খুন মাফ : মেয়রপ্রার্থী ডা. শাহাদাত

চট্টগ্রাম রেলওয়ে স্টেশনে বিএনপিকে সংবর্ধনা অনুষ্ঠান করতে না দেয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন সিটি করপোরেশন নির্বাচনে দলটির মেয়রপ্রার্থী ডা. শাহাদাত হোসেন। তিনি বলেছেন, ‘নৌকার প্রতীক মানেই সাত খুন মাফ, নৌকার প্রতীক মানেই ভোট ডাকাতি, নৌকার প্রতীক মানেই যেখানে ইচ্ছা সেখানে সমাবেশ।‌’

বুধবার (২৬ ফেব্রুয়ারি) বিকেল সাড়ে ৪টায় নগর বিএনপির দলীয় কার্যালয় নসিমন ভবনে এক সমাবেশে তিনি এসব কথা বলেন।

ডা. শাহাদাত বলেন, ‘এমন একটি সময়ে আমাদের এখানে প্রোগ্রাম করার কথা ছিল না। আপনারা দেখেছেন, আওয়ামী লীগের মেয়রপ্রার্থী ওই রেলওয়ে চত্বরে জনসমাবেশ করেছে, আর আমাদের সেখানে করতে দেয়া হয় না। নির্বাচনের আগে প্রশাসন সমতার জায়গায় দাঁড়াতে পারেনি। আমরা আজকের এ সমাবেশ থেকে এর তীব্র প্রতিবাদ জানাচ্ছি।’

এর আগে দুপুর আড়াইটায় ঢাকা থেকে চট্টগ্রাম রেল স্টেশনে পৌঁছে প্রশাসনকে একচোখা নীতি পরিহারের আহ্বান জানান বিএনপির মেয়র প্রার্থী ডা. শাহাদাত হোসেন।

তিনি বলেন, ‘ঢাকায় ৮০ ভাগ মানুষ ভোটকেন্দ্রে যায়নি। এর কারণ, প্রশাসনের একচোখা ভূমিকা। চসিক নির্বাচনের শুরুতে তারা আবারও একই ভূমিকায় নেমেছে। আওয়ামী লীগ বিশাল আকারে সমাবেশের অনুমতি পায়। তখন নিরাপত্তার কোনো প্রশ্ন থাকে না। আওয়ামী লীগ অনুমতি পেলে বিএনপি কেন পাবে না? আপনারা একচোখা নীতি পরিহার করে জনগণের পাশে দাঁড়ান।’

সমাবেশে অংশ নিয়ে শাহাদাত বলেন, ‘ঢাকা সিটি করপোরেশন নির্বাচন, চট্টগ্রামের উপনির্বাচনে আপনারা দেখেছেন, জনগণ ভোটকেন্দ্র বিমুখ হয়ে গেছে। তাদের এই ভোটকেন্দ্রমুখী করার জন্য আমাদের কাজ করতে হবে। ইসিকে নিরপেক্ষ ভূমিকা পালন করতে হবে।’

রাষ্ট্রযন্ত্র আওয়ামী যন্ত্রে পরিণত হয়ে গেছে মন্তব্য করে তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশের সরকার, ইসি, রাষ্ট্রযন্ত্র, আওয়ামী লীগ সবাই মিশে একাকার হয়ে গেছে। আজকে রাষ্ট্রযন্ত্র আওয়ামী যন্ত্রে পরিণত হয়ে গেছে। নৌকার প্রতীক মানেই সাত খুন মাফ, নৌকার প্রতিক মানেই লালদিঘীতে সমাবেশ, নৌকার প্রতীক মানেই রেলওয়ে চত্বরে সমাবেশ, যেখানে ইচ্ছা সেখানে সমাবেশ, ভোট ডাকাতি।’

নগরবাসীকে ধানের শীষে ভোট দেওয়ার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, ‘আধুনিক গ্রিন ও হেলদি (স্বাস্থ্যসম্মত) নগর গড়াই আমার লক্ষ্য। নির্বাচিত হলে- চট্টগ্রামকে পৃথিবীর অন্যতম পর্যটন নগরীতে পরিণত করব। জলাবদ্ধতামুক্ত একটি সুন্দর নগরীতে পরিণত করব। এখন সময় এসেছে, নৌকার প্রতীক মানেই বিজয় এমন হীন ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে দাঁত ভাঙা জবাব দেয়ার। নির্বাচনের দিন স্ব-স্ব কেন্দ্র পাহারা দেবেন, নিজের ভোট নিজে দেবেন, অন্যকে উৎসাহিত করবেন।’

নগর বিএনপির সিনিয়র সহ সভাপতি আবু সুফিয়ানের সভাপতিত্বে সমাবেশে আরও বক্তব্য রাখেন- নগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আবুল হাসেম বক্কর। উপস্থিতি ছিলেন- কেন্দ্রীয় বিএনপির সদস্য ও সাবেক মেয়র নাছির উদ্দিনের ছেলে ব্যারিস্টার মীর হেলাল উদ্দিন।

সূত্র: জাগো নিউজ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.