goyessor

সমঝোতা বা প্যারোলে খালেদা জিয়া মুক্তি নেবেন না : গয়েশ্বর

বিএনপি চেয়ারপারসন আপসহীন নেত্রী এই উপাধি খারিজ করতে গিয়ে ধরা খেয়েছে সরকার এমন মন্তব্য করে দলটির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেছেন, বেগম খালেদা জিয়া কোনো আপস, সরকারের সাথে সমঝোতা বা প্যারোলে মুক্তি নেবেন না।

তিনি বলেন, গণতন্ত্রের প্রতি শ্রদ্ধাশীল থেকে, দায়িত্ববোধ থাকার কারণে খালেদা জিয়ার মুক্তির আন্দোলন আমরা করছি, ভবিষ্যতেও করবো। আন্দোলনের মধ্য দিয়ে বেগম খালেদা জিয়া মুক্তি লাভ করবেন।

শনিবার (৫ অক্টোবর) দুপুরে জাতীয় প্রেস ক্লাবে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে জিয়া শিশু-কিশোর মেলা কেন্দ্রীয় সংসদ আয়োজিত প্রতিবাদ সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

জিয়া শিশু-কিশোর মেলা কেন্দ্রীয় সংসদের আহ্বায়ক জাহাঙ্গীর শিকদারের সভাপতিত্বে প্রতিবাদ সভায় অন্যদের মধ্যে বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলালসহ সংগঠনটির নেতারা বক্তব্য রাখেন।

গয়েশ্বর বলেন, জিয়াউর রহমান জাতীয়তাবাদী শক্তি একত্রিত করেছিলেন, দেশপ্রেমী শক্তিকে ঐক্যবদ্ধ করেছিলেন। যার দেশপ্রেম নেই, সে তো দেশের কিছু হলে প্রতিবাদ করতে পারবে না। দেশপ্রেমিকদের সমবেত করার জন্যই জিয়াউর রহমান মাঠে মাঠে ঘুরেছেন। আজ দেশাত্মবোধের অভাব। দেশপ্রেমিক লোক আছে, জনগণ আছে। কিন্তু দেশপ্রেমিক রাজনৈতিক নেতা নেই।

তিনি বলেন, বেগম খালেদা জিয়া আপসহীন নেত্রী এই উপাধি খারিজ করতে গিয়ে ধরা খেয়েছে সরকার। বেগম খালেদা জিয়া কোনো ধরনের আপস, সরকারের সাথে সমঝোতা বা প্যারোলে মুক্তি নেবেন না। গণতন্ত্রের প্রতি শ্রদ্ধাশীল থেকে, দায়িত্ববোধ থাকার কারণে খালেদা জিয়ার মুক্তির আন্দোলন আমরা করছি, ভবিষ্যতেও করবো। আন্দোলনের মধ্য দিয়ে বেগম খালেদা জিয়া মুক্তি লাভ করবেন।

তিনি আরও বলেন, প্রতিদিন কত মামলার রায় হয় কিন্তু খালেদা জিয়ার মামলার রায় হয় না। আদালত বিব্রতবোধ করেন। আজ যারা ক্ষমতার অপব্যবহার করছেন তারা একদিন এর পরিণতি ভোগ করবেন।

গয়েশ্বর বলেন, যে দেশের প্রধানমন্ত্রী দুর্নীতিকে লালন করেন, প্রশ্রয় দেন সেই দেশে ছোটখাটো দু-একটা টোকাই ধরে কিছু সময়ের জন্য চমক সৃষ্টি করা যেতে পারে। প্রকৃত অর্থে দুর্নীতির হাত থেকে দেশকে রক্ষা করা যায় না।

তিনি বলেন, আমরা মনে করি এই জনসমর্থনহীন সরকার, ভোটারবিহীন সরকার অর্থনৈতিক সংকট, ব্যাংক খাত নিঃস্ব করার মধ্য দিয়ে দেশকে একটি দেউলিয়া রাষ্ট্রে পরিণত করছে। পরিস্থিতি থেকে জনগণের দৃষ্টি অন্যদিকে সরানোর জন্য ছোটখাটো খুচরা নাটক করছে।

গয়েশ্বর বলেন, ব্যাংকে গচ্ছিত টাকার হিসাব অনুযায়ী দেশে ৭৬ হাজার কোটিপতি রয়েছেন। পাঁচ বছর আগে যা ছিল ১৯ হাজার। যে পরিমাণে টাকা বিদেশে পাচার হয়েছে সেই হিসাব করলে দেশে কোটিপতির সংখ্যা কত হবে তার ঠিক নেই। কোটিপতিদের তালিকা প্রকাশ করা হলে দেখা যাবে সবাই আওয়ামী লীগ করেন। আওয়ামী লীগ ছাড়া কেউ কোটিপতি হয়নি। সাধারণ মানুষ নিঃস্ব হয়ে গেছে।

সূত্র: জাগো নিউজ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.