নমনীয় হোন সমাধান দিন: প্রধানমন্ত্রীকে কর্নেল অলি

দেশের রাজনীতিতে চলমান সংকট সমাধানে প্রধানমন্ত্রীর ‘নমনীয় হস্তক্ষেপ’ কামনা করে লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টি এলডিপি’র সভাপতি কর্নেল (অব.) অলি আহমদ বলেছেন, ‘বঙ্গবন্ধুর কন্যার জন্য সমস্যাগুলো মোটেই কঠিন নয়।

প্রয়োজনে তাঁকে আরও নমনীয় হতে হবে। সমাধান দিতে হবে। সবকিছুর ঊর্ধ্বে উঠতে হবে। জাতিকে মুক্ত করতে হবে। জাতীয় ঐক্য গড়ে তুলতে হবে। অন্যথায় যা হওয়ার তাই হবে। রক্তপাত এড়ানো সম্ভব না-ও হতে পারে।’

শনিবার (৮ সেপ্টেম্বর) দুপুরে এলডিপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতাকর্মীর এলডিপিতে যোগদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

কর্নেল অলি বলেন, ‘আজ আমরা একটা কঠিন সময় পার করছি। সকলের মনে একটি প্রশ্ন- নির্বানকে ঘিরে দেশে কী হতে যাচ্ছে? দেশে কি শান্তি ফিরে আসবে? মানুষ কি শান্তিতে ও নির্বিঘ্নে বসবাস করতে পারবে? উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ড কি অব্যাহত থাকবে? সুশাসন ও ন্যায়বিচার কি প্রতিষ্ঠিত হবে? জনগণ কি ভোট দিতে পারবে? আমি মনে করি সরকারি দল ও বিরোধীদলসমূহ পারস্পরিক আলাপ আলোচনার মাধ্যমে জনগণকে আশার আলো দেখাতে পারে।’

তিনি বলেন, ‘আমরা সকলে আত্মকেন্দ্রীক, ফায়দার রাজনীতিতে অভ্যস্ত। ক্ষমতার লোভ এবং মোহ আমাদেরকে গ্রাস করেছে। ক্ষমতা ভাগাভাগি নিয়ে ব্যস্ত আমরা। জনগণের কল্যাণে কোনও আগ্রহ নেই রাজনীতিকদের। কেউ কাউকে বিন্দুমাত্র ছাড় দিতে রাজি নই। নির্বাচনকে সামনে রেখে রণসাজে আমরা সজ্জিত হচ্ছি। মনে হয় দেশ পুনরায় রক্তপাতের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে।’

সুষ্ঠু, অবাধ, নিরপেক্ষ ও অশুভ প্রভাবমুক্ত সকলের অংশগ্রহণে জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠানের উদ্যোগ প্রধানমন্ত্রীকেই নিতে হবে উল্লেখ করে কর্নেল অলি বলেন, ‘বিএনপি একটি বড় রাজনৈতিক দল। তাদেরকে অবহেলা করা ঠিক হবে না। জাতীয়তাবাদী শক্তির উত্থান ঠেকানো সম্ভব হবে না। সরকারকে আরও নমনীয় হতে হবে। আলাপ আলোচনার মাধ্যমে জাতীয় ঐক্য গড়ে তোলা সম্ভব।’

বিএনপিকেও অধিকতর কৌশলী এবং বাস্তববাদী হতে হবে জানিয়ে অলি বলেন, ‘জনবিচ্ছিন্ন ব্যক্তিদের নিয়ে এগোলে কোনো ফলাফল আসবে না। বিএনপি একটি শক্তিশালী দল। বিএনপিকে পুনর্গঠন করে এদেশে যেকোনো কাজ করা সম্ভব। সেই বিশ্বাস নিয়ে নেতাদেরকে মাঠে নামতে হবে।’

নির্বাচন কমিশনে ১০ পার্সেন্ট কমিশন খাওয়ার জন্য কিছু লোক বসে আছে উল্লেখ করে এই প্রবীণ রাজনীতিক বলেন, ‘সাড়ে ৪ হাজার কোটি টাকা দিয়ে ইভিএম কিনলে তারা সাড়ে চারশো কোটি টাকা চুরি করতে পারবে। প্রধানমন্ত্রীকে বলবো, এই টাকা নদীর জলে ভাসাবেন না। এ টাকা দেশের উন্নয়নে ব্যয় করুন।’

প্রধানমন্ত্রীর উদ্দেশ্যে এলডিপি প্রধান আরও বলেন, ‘আমার বক্তব্যে যদি কোনো সম্মান থাকে দেশের শান্তির জন্য সেটা গ্রহণ করবেন। জাতির স্বার্থে নমনীয় হোন, সমাধান দিন।’

বিএনপিকে আরও বাস্তববাদী হওয়ার পরামর্শ দিয়ে তিনি বলেন, ‘আমি বিএনপিকেও বলবো- আপনারা বাস্তববাদী হোন, কৌশলী হোন। যাদের কোনো নির্বাচনে আসন নাই, যাদের কোনো সাপোর্টার নাই এ ধরনের লোকদের ঐক্যবদ্ধ করে কোনো লাভ হবে না। নিজেদেরকে সংগঠিত করেন। সঠিক নেতৃত্ব পেলে বিএনপির পক্ষে যেকোনো কিছু করা সম্ভব। জ্বালাও-পোড়াও দিয়ে দেশের মঙ্গল হবে না।’

অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন, এলডিপির মহাসচিব রেদোয়ান আহমেদ, প্রেসিডিয়াম সদস্য আব্দুল করিম আব্বাসী, আব্দুল গনি, ইঞ্জিনিয়ার কামাল উদ্দিন মোস্তফা, সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব শাহাদাত হোসেন সেলিম, চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌর আওয়ামী লীগের সাবেক সহ-সভাপতি সদ্য এলডিপিতে যোগদান করা শফিকুল ইসলাম স্বাধীন, চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা জাপা নেতা (যিনি এই অনুষ্ঠানে এলডিপিতে যোগ দেন) ইদ্রিস আহমদ প্রমুখ।

অনুষ্ঠানে বিভিন্নদল থেকে কয়েকজন নেতাকর্মী এলডিপিতে যোগ দেন।

ব্রেকিংনিউজ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.