ফেনসিডিলসহ আটক ওলামা লীগের কেন্দ্রীয় নেতা

নারায়ণগঞ্জে ফেনসিডিলসহ রুপগঞ্জ উপজেলা ওলামা লীগের সভাপতি ও ওলামা লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম সম্পাদক মোশারফ হোসেন নাঈমকে (৪০) আটক করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার ভোরে সোনারগাঁ উপজেলার মেঘনা টোলপ্লাজার সামনে থেকে তাকে আটক করা হয়।

সোনারগাঁ থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) ফয়সাল বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, মাদকবিরোধী অভিযানের অংশ হিসেবে মেঘনা টোলপ্লাজার সামনে অভিযান চালিয়ে মোশারফ হোসেন নাঈমকে আটক করা হয়েছে।

এ সময় তার কাছ থেকে ২৬ বোতল ফেনসিডিল উদ্ধার করা হয়। তার বিরুদ্ধে মাদক আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে বলে জানান তিনি।

মোশারফের বাড়ি রূপগঞ্জ উপজেলার মুড়াপাড়ার দড়িকান্দি এলাকায়। তিনি উপজেলা চেয়ারম্যান শাহজাহান ভূঁইয়ার অনুসারী হিসেবে পরিচিত।

খেলা হবে ৩০ সেপ্টেম্বরের পর: শামীম ওসমান
নারায়ণগঞ্জ সংবাদদাতা

নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের এমপি শামীম ওসমান বলেছেন, সামনে কঠিন খেলা হবে। আগামী ৩০ সেপ্টেম্বর খেলা শুরু হবে। অক্টোবর মাস হতে খেলা হবে। অক্টোবরে যেদিন ক্ষমতা ছেড়ে দিবো তখন হয়ে যাবো বিরোধী দল। তখন অন্য দলও বিরোধী দল হওয়ার পর আমরা হয়ে যাবো সমান সমান। তখন কেউ বলতে পারবে না। আতেল সুশীলরা খেলবে একটি পক্ষের খেলা। আমরা মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের শক্তি হয়ে সাধারণ মানুষকে নিয়ে খেলবো একটি খেলা। ইনশাআল্লাহ আমরা জয়ী হবো। আমরা এই খেলায় জিততে চাই।

রোববার বিকেলে ফতুল্লার কাশিপুর উত্তর নরসিংপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে কাশিপুর ইউনিয়ন ১,২, ৩ ওয়ার্ড নির্বাচনী পরিচালনা কেন্দ্র কমিটির উদ্দেগে মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

শামীম ওসমান নেতাকর্মীদের উদ্দেশে বলেন, আমি তৃণমূলের উপর আস্থা রেখে রাজনীতি করতে চাই কোন নেতাদের উপর নয়। তৃণমূল হচ্ছে দলের চালিকা শক্তি। বড় বড় নেতারা সুবিধা পেয়ে অন্য দিকে চলে যাবে। কিন্তু তৃনমূলের নেতাকর্মীরা দল ছেড়ে কখনো অন্য জায়গায় যাবে না। তৃনমূলের নেতাকর্মীরা বঙ্গবন্ধু ও আওয়ামীলীগ ভাল বাসে। তারা কখনো সুবিধার দিকে তাকিয়ে থাকে না। আর ৭৫ সালের ১৫ আগস্ট এর পর অনেক আওয়ামীলীগের নেতারাই বঙ্গবন্ধুর লাশের উপর পারা দিয়ে মন্ত্রী পরিষদের সদস্য হয়েছে। কিন্তু তৃনমূলের নেতাকর্মীরা কখনো বঙ্গবন্ধুর সাথে বেঈমানী করেনি এবং কখনো করবে না। আর যারা বঙ্গবন্ধুকে ভালোবসে আওয়ামীলীগের রাজনীতি করে তাদের প্রতি সুদৃষ্টি রয়েছে শেখ হাসিনার।

তিনি আরও বলেন, বিএনপির অনেক ভোট আছে আমি অস্বীকার করবো না। বিএনপিকে নিয়ে অনেকে খেলা খেলতে চাইছে। সেই খেলায় খালেদা জিয়া নায়িকা হবে না। খেলার নায়ক হবে অন্য লোক। বিএনপির উপর ভর করে শেখ হাসিনা হটাও রাজনীতি করতে চাইছে। তারা খালেদার কাধে বন্ধুক রেখে খেলা খেলবে। অনেক ডক্টর ফক্টররা খালেদার কাধে বন্ধুক রেখে সুবিধা নেয়ার চেষ্টা করবে। ড. ইউনুছসহ দেশ বিদেশের অনেকে এদেশকে অনেকেই গিলে খেতে চায়, কেউ সমুদ্র, কেউ ব্যবসা, কেউ সুন্দরবন নিতে চায়। কিন্তু বঙ্গবন্ধুর কন্যা শেখ হাসিনার জন্য পারে না। সামনে একটি নির্বাচন হবে, নির্বাচনে খেলা হবে স্বাধীনতার পক্ষ ও বিপক্ষের। নারায়ণগঞ্জের অবস্থা তো আরো করুণ। রাস্তায় দাঁড়িয়ে দাঁড়িয়ে মনোনয়ন দিয়ে দিচ্ছে। যারা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে যেতে পারে না তারাই রাস্তায় দাঁড়িয়ে মনোনয়ন দেয়। আমি স্পষ্টভাবে বলতে চাই, মনোনয়ন দেয়ার মালিক শেখ হাসিনা। তিনিই ভাল জানেন কাকে কোথায় মনোনয়ন দিবেন।

শামীম ওসমান আরও বলেন, আমি ফতুল্লাবাসীর কাছে কৃতজ্ঞ। বিশেষ করে বাদল ভাই, শওকত ভাই ও আমার দলীয় নেতাকর্মীর কাছে। আমি যখন বিদেশ ছিলাম তখন মোবাইল ফোনের মাধ্যমে তারাই আমাকে বাঁচিয়ে রেখেছেন। আমি ভাল লোক চাই। দুনিয়াতে ৪ শ্রেণির লোক আছে। খারাপ, খুব খারাপ, ভাল ও খুব ভাল। আমি ভাল ও খুব ভাল লোকদেরকে খুব সম্মান করি। এবার আমার নির্বাচনী এলাকায় ৭ হাজার ১’শ কোটি টাকার কাজ হয়েছে। যা কিনা অতীতে আমার উন্নয়নের রেকর্ড ভঙ্গ করেছে। তাই সবাইকে বলতে চাই উন্নয়নের জন্য চিন্তা করবেন না। কাজের দায়িত্ব আমার।

মতবিনিময় সভায় কাশিপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক গিয়াস উদ্দিনের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক আবু হাসনাত শহীদ মোহাম্মদ বাদল, মহানগর আওয়ামীলীগের সিনিয়র সহসভাপতি ও ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির সভাপতি বাবু চন্দন শীল, ফতুল্লা থানা আওয়ামীলীগের সভাপতি এম সাইফউল্লাহ বাদল, সাধারন সম্পাদক শওকত আলী, মহানগর আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জাকিরুল আলম হেলাল, যুগ্ম সাধারন সম্পাদক শাহ নিজাম, মহানগর স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি মো: জুয়েল হোসেন, জেলা পরিষদের সদস্য জাহাঙ্গীর হোসেন, জেলা যুবলীগ নেতা মাইনুল হোসেন মানু, জেলা আওয়ামীলীগ নেতা হাবিবুর রহমান হাবিব, কাশিপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি আইয়ুব আলী, সাধারন সম্পাদক (ভারপ্রাপ্ত) এমএ সাত্তার, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি এহসানুল হক নিপু, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি সাফায়েত আলম সানী, ফতুল্লা থানা ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক এমএ মান্নান, কাশিপর ইউনিয়ন পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান শামীম আহম্মেদ, কাশিপুর ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য ও ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারন সম্পাদক শামীম আহম্মেদ, কাশিপুর ইউনিয়ন কৃষকলীগের সভাপতি আবুল কালামসহ অন্যান্য নেতা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.