সিলেটে ফের দুই কর্মীকে ছাড়াতে অবস্থান কর্মসূচিতে আরিফুল

ধানের শীষের পক্ষে প্রচারণা চালানোর সময় আটক দুই কর্মীকে ছাড়াতে সিলেট মহানগর উপ-পুলিশ কমিশনার কার্যালয়ের সামনে অবস্থান কর্মসূচি পালন করেছেন বিএনপি প্রার্থী আরিফুল হক চৌধুরীসহ নেতৃবৃন্দ।

শনিবার বেলা দেড়টা থেকে বিকেল ৪ টা পর্যন্ত আড়াই ঘণ্টা আটক কর্মীদের মুক্তির দাবিতে তারা এ কর্মসূচি পালন করেন।

আরিফুল হক চৌধুরী বলেন, ‘পুলিশ সিলেটের রাজনৈতিক সম্প্রীতি নষ্ট করছে। কোনো মামলা-ওয়ারেন্ট ছাড়াই আমার কর্মীদের ধরপাকড় করছে। সিলেটে এই ধরনের কর্মকাণ্ড সহ্য করা হবে না। আমরা এমন ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে তীব্র আন্দোলন গড়ে তুলবো।’

এর আগে গত ১২ জুলাই মধ্যরাতে এক কর্মীকে আটকের অভিযোগে নগরীর বন্দরবাজার পুলিশ ফাঁড়ির সামনে অবস্থান নিয়েছিলেন সিলেট সিটি করপোরেশন (সিসিক) নির্বাচনে বিএনপির মেয়র প্রার্থী আরিফুল হক চৌধুরী। প্রায় ৪০ মিনিট অবস্থানের পর সে রাতে আটক কর্মীকে ছাড়িয়ে আনতে সক্ষম হন আরিফ।

কিন্তু আজ মহানগর পুলিশের উপ কমিশনার (দক্ষিণ)-এর কার্যালয়ের সামনে দলবল নিয়ে বসে পড়লেও ব্যর্থ হয়েই ফিরতে হয় আরিফুলকে। গ্রেপ্তার করা দুই ব্যক্তিকে ছেড়ে দেয়নি পুলিশ। তাদের সুনির্দিষ্ট মামলার ভিত্তিতেই গ্রেপ্তার করা হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

ফলে বেলা সাড়ে ৪টার দিকে অবস্থান তুলে নিয়ে নেতৃবৃন্দদের নিয়ে বাসায় ফিরে যান আরিফুল হক। আদালতের মাধ্যমে কর্মীদের ছাড়িয়ে আনবেন বলেও এসময় ঘোষণা দেন তিনি।

সিলেট মহানগর পুলিশের উপ কমিশনার (দক্ষিণ) আজবাহার আলী শেখ জানান, ওসমানীনগর থানার একটি মামলার এজাহারভূক্ত আসামি হিসেবে নগরীর দক্ষিণ সুরমার ঝালোপাড়া এলাকা থেকে রাসেল আহমদ এবং সুমন আহমদ নামে দুই ব্যক্তিকে আটক করেছে পুলিশ। তাদের আদালতে পাঠানো হয়েছে।

পুলিশ কার্যালয়ের সামনে আরিফুল হকের এভাবে বসে পড়াকে নাটক আখ্যায়িত করে সিসিক নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী বদরউদ্দিন আহমদ কামরান বলেন, ‘তিনি জনগণের সহানুভূতি আদায়ের জন্য একের পর এক নাটক করে চলছেন। আমি তাকে নাটক করা বাদ দিয়ে জনগণ মন জয়ের চেষ্টায় মনোনিবেশ করার আহ্বান জানাবো।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.