বেগম জিয়া ক্ষুদ্ধ : আমি কি খুনি, না ডাকাত?’

ক্ষুদ্ধ বেগম জিয়া বললেন, ‘আমি কি খুনি, না ডাকাত? এরকম অসভ্য আচরণ কেন আমার সাথে। এখনতো শুধু হাতকড়া আর পায়ে বেড়ী পরা বাকি রেখেছো, সেটাও পরাও।’ আজ শনিবার বঙ্গবন্ধু মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে গিয়ে তিনি রেগে এই মন্তব্য করেন।

বেলা সোয়া ১১টার দিকে তাঁকে হাসপাতালের কেবিন ব্লকের ৫১২ নম্বর কেবিনে নেওয়া হয়। বেগম জিয়াকে হাসপাতালে নেওয়ার খবর পেয়েই বঙ্গবন্ধু মেডিকেলে আসেন প্রয়াত কোকোর স্ত্রী সৈয়দা শর্মিলা রহমান এবং তাদের দুই কন্যা জাহিয়া ও জাইদা। জেল কর্তৃপক্ষের অনুমতি নেই জন্য তাদের কেবিনের ভেতরে ঢুকতে দেওয়া হয়নি।

শর্মিলা তার দুই কন্যাকে নিয়ে কেবিন ব্লকের করিডোরে অপেক্ষা করতে থাকেন। চিকিৎসকদের সঙ্গে আলাপের পর বেগম জিয়াকে কেবিন ব্লক থেকে রেডিওলজি ও ইমেজিং বিভাগে নেওয়া হয়। এসময় করিডোরে বেগম জিয়া শর্মিলা এবং নাতনীদের পান। কুশল বিনিময় করতেই কর্তব্যরত পুলিশ তাঁকে কর্ডন করে ফেলেন। এসময় ক্ষুদ্ধ বেগম জিয়া ওই মন্তব্য করেন।
বাংলা ইনসাইডার

খালেদার গাড়িবহরে নেতাকর্মীর ঢল, ব্যাপক লাঠিচার্জ…………………………..

কারাবন্দি অসুস্থ বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে চিকিৎসার জন্য রাজধানীর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) হাসপাতালে নিয়ে আসার সঙ্গে সঙ্গে তার গাড়িবহরে ঢল নামে নেতাকর্মীদের।

পুলিশের নিরাপত্তা বেষ্টনি ভেঙে হাসপাতালের গেটে খালেদা জিয়ার গাড়িবহরে যোগ দেয় নেতাকর্মীরা। এসময় স্লোগানে স্লোগানে মুখরিত করে তোলে বিএনপি নেতাকর্মীরা। সঙ্গে সঙ্গেই লাঠিচার্জ করে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ব্যাপক লাঠিচার্জে ছত্রভঙ্গ হয়ে যায় নেতাকর্মীরা।

এসময় বেশ কয়েকজনকে আটক করা হয়। তাদের শাহবাগ থানায় নিয়ে যেতে দেখা গেছে।

এর আগে শনিবার (৭ এপ্রিল) সকাল সাড়ে ১১টার দিকে খালেদা জিয়াকে বহনকারী গাড়িবহর বিএসএমএমইউ হাসপাতালে প্রবেশ করে।
ব্রেকিংনিউজ

ফের কারাগারে খালেদা…………………………………

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বিএসএমএমইউ) স্বাস্থ্য পরীক্ষা শেষে ফের পুরান ঢাকার নাজিমউদ্দিন রোডের কারাগারে নেয়া হয়েছে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে।

শনিবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে তাকে হাসপাতালে নেয়া হয়েছিল। দুপুর দেড়টার দিকে তাকে হাসপাতাল থেকে ফের কারাগারের উদ্দেশ্যে নিয়ে যাওয়া হয়। দুপুর পৌনে ২টায় তাকে বহনকারী গাড়িবহর কারাগারে পৌঁছায়।

খালেদার স্বাস্থ্য পরীক্ষায় কী কী করা হয়েছে সে সম্পর্কে এখনই কিছু জানা না গেলেও তার এক্সরে করানো হয়েছে বলে জানা গেছে। সাড়ে ১১টার দিকে বিএনপি চেয়ারপারসন হাসপাতালে ঢোকার সময় হাসপাতালের সামনে বিএনপি নেতাকর্মীদের সঙ্গে পুলিশের ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া হয়।

হাসপাতালে খালেদা জিয়ার সঙ্গে দেখা করার চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়েছেন মির্জা আব্বাসের স্ত্রী আফরোজা আব্বাস। তাকে তাকে কেবিন ব্লকের গেট থেকে ফেরত পাঠিয়ে দেয় পুলিশ।

শনিবার সকাল থেকেই গুঞ্জন ছিল খালেদা জিয়াকে স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্যবিএসএমএমইউ-এ নেয়া হতে পারে। তবে এ বিষয়ে নিশ্চিত করে কিছু জানা যাচ্ছিল না। এরআগে শুক্রবার খালেদা জিয়ার সঙ্গে দেখা করে বিএনপি মহাসচিব বলেছিলেন, খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্যের অবস্থা বেশি ভালো নয় তবে তার মনোবল শক্ত রয়েছে।

খালেদা জিয়ার চিকিৎসা তার ব্যক্তিগত চিকিৎককে দিয়ে করানোর দাবিও জানান তিনি। শনিবার খালেদা হাসপাতালে পৌঁছানোর আগে বিএসএমএমইউ-এর জনসংযোগ কর্মকর্তা প্রশান্ত কুমার মজুমদার জানিয়েছিলেন, কেবন ব্লকের ৫১২ নম্বর কেবিন প্রস্তুত করা হচ্ছে।

দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) দায়ের করা জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে গত ৮ ফেব্রুয়ারি ৫ বছরের কারাদণ্ড দেন আদালত। পুরান ঢাকার বকশীবাজারে স্থাপিত বিশেষ আদালতের বিচারক ড. আখতারুজ্জামান জিয়া এ রায় দেন।

মামলার রায় ঘোষণার পর খালেদা জিয়াকে নাজিমউদ্দিন রোডে পুরনো কেন্দ্রীয় কারাগারে নেয়া হয়। সেদিন থেকে খালেদা জিয়া কারাগারে আছেন।

উৎসঃ jagonews24

Check Also

khaleda_zia

খালেদা জিয়ার জামিনের অপ্রকাশ্য যত শর্ত

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর অন্তত দু`দিন বলেছেন যে, খালেদা জিয়া এখনও গৃহবন্দি আছেন। …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Share
Pin