খালেদাকে জোর করে হাসপাতালে আনা হয়: রিজভী

বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী অভিযোগ করেছেন, বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে সম্পূর্ণ অপ্রস্তুতভাবে আজ জোর করে গাড়িতে উঠিয়ে হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়। তাঁর অভিযোগ, চিকিৎসার নামে সরকার খালেদা জিয়াকে মানুষিক ও শারীরিকভাবে কষ্ট দেওয়ার জন্য নাটক করেছে।

আজ শনিবার বিকেল সাড়ে চারটার দিকে নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে রুহুল কবির রিজভী এই অভিযোগ করেন।

আজ বেলা সাড়ে ১১টার দিকে খালেদা জিয়াকে নাজিমুদ্দিন রোডের পুরোনো কারাগার থেকে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ে এক্স-রে করার জন্য আনা হয়। দেড়টার দিকে চিকিৎসা শেষে ফের কারাগারে নিয়ে যাওয়া হয় তাঁকে।

রুহুল কবির রিজভী বলেন, ‘খালেদা জিয়া ভালো নেই। আমরা শুনেছি কারাগারে তাঁর কক্ষে গিয়ে সাত–আটজন বারবার তাঁকে তাগিদ দিয়েছেন। চিকিৎসার নামে খালেদা জিয়াকে হাসপাতালে নেওয়া প্রহসনের নামান্তর। কোনো চিকিৎসাই তাঁকে দেওয়া হয়নি। ব্যক্তিগত চিকিৎসকের পরামর্শ নেওয়ার সুযোগও দেওয়া হয়নি।’

সাবেক এই ছাত্রনেতা বলেন, তিনবারের প্রধানমন্ত্রীকে হাসপাতালে নিয়ে এসে টানাহেঁচড়া করা হয়েছে শুধু হেনস্তা ও হয়রানি করার জন্য। দেশনেত্রীর গাড়ি হাসপাতালে এসে পৌঁছালে তাঁকে একরকম টানাহেঁচড়া করে ওপরে ওঠানো হয়। গাড়ি থেকে নামার জন্য সিঁড়ি পর্যন্ত দেওয়া হয়নি। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর অতিরিক্ত বাড়াবাড়িতে হাসপাতালে ধাক্কাধাক্কির মতো পরিস্থিতিতে একরকম অপমানজনকভাবে তাঁকে হাসপাতালে ওঠানো-নামানো হয়েছে।

রিজভী বলেন, একজন মানুষ হিসেবে বেগম জিয়ার যে চিকিৎসা পাওয়ার অধিকার, সেটাকেও হরণ করতে ক্ষমতাতপস্বী সরকারপ্রধান বিষদাঁত লুকাতে পারছে না। নিজেকে সাধু দেখানোর জন্য সরকার বেগম জিয়ার চিকিৎসার নামে নাটক করেছে।

সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান এ জেড এম জাহিদ হোসেন, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা পরিষদ সদস্য হাবিবুর রহমান, আবদুস সালাম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

Check Also

২০২৩ সালে ক্ষমতায় যাওয়ার রোড ম্যাপ করছে বিএনপি?

‘আগামী দিনের বিএনপির নেতৃবৃন্দ’ এই শিরোনামে লন্ডনে বিএনপির পলাতক ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক জিয়া সারাদেশে নেতৃবৃন্দের …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Share
Pin