mirja_bnp

মির্জা ফখরুল হাসপাতালে ভর্তি

রাজধানীর ইউনাইটেড হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। অসুস্থতাবোধ করায় আজ সোমবার সকাল ১০টায় তিনি সেখানে যান।

বিএনপি চেয়ারপারসনের মিডিয়া উইং সদস্য শামসুদ্দিন দিদার প্রথম আলোকে এ তথ্য জানিয়েছেন। মির্জা ফখরুলের ব্যক্তিগত সহকারী ছাত্রদল নেতা ইউনুছ প্রথম আলোকে বলেন, স্যার শারীরিকভাবে অসুস্থবোধ করায় তাঁকে নিয়ে ইউনাইটেড হাসপাতালে এসেছি। চিকিৎসক মমিনুজ্জামানের তত্ত্বাবধানে আছেন বিএনপি মহাসচিব।

২০১৫ সালে কারাভোগের সময় বেশ কয়েকবার অসুস্থ হন মির্জা ফখরুল। পরে তাঁকে চিকিৎসার জন্য দেশের বাইরেও নেওয়া হয়।

নিশ্চয়ই এরা আওয়ামী ডাক্তার’

কারাবন্দী বেগম খালেদা জিয়া বলেন, ‘আপনাদের আমি বিশ্বাস করি না। আপনাদের দেয়া ঔষধ আমি নেবো না। আমি আমার পারসোনাল চিকিৎসক চাই।’ গত রোববার ঢাকার নাজিম উদ্দিন রোডের কেন্দ্রীয় কারাগারে চার বিশেষজ্ঞ চিকিৎসককে বেগম জিয়া এ কথা বলেন। জেল কর্তৃপক্ষের অনুরোধে ঢাকা মেডিকেল কলেজের চার বিশেষজ্ঞ ডাক্তার যান নাজিমউদ্দিন রোডের পুরনো কারাগারে। মেডিকেল টিমের সদস্যরা হলেন অর্থোপেডিক বিভাগের প্রধান ডা. মোহাম্মদ শামসুজ্জামান, নিউরোলজী বিভাগের প্রধান মনসুর হাবিব, ফিজিক্যাল মেডিসিন বিভাগের প্রধান সোহেলী রহমান এবং ইন্টারনাল মেডিসিন বিশেষজ্ঞ টিটো মিয়া।

কারাগারে তাদের বেগম জিয়ার কাছে নিয়ে যেতেই তিনি কিছুটা রাগান্বিত হন। জিজ্ঞেস করেন, ‘এরা করা? এজেন্সির লোক?’ ডেপুটি জেলার বলেন, ‘এনারা সবাই বিখ্যাত ডাক্তার।’ উত্তরে বেগম জিয়া বলেন, ‘নিশ্চয়ই এরা আওয়ামী ডাক্তার।’ এরপর চিকিৎসকরা এগিয়ে এসে তাঁর সঙ্গে কুশল বিনিময় করেন। তাঁর শারীরিক অবস্থার খোঁজ খবর নেন। তিনি কি কি ঔষধ খাচ্ছেন তা জানতে চান। মেডিকেল দলের প্রধান ডা. মো. শামসুজ্জামান বাংলা ইনসাইডারকে বলেছেন, ‘তাঁর কিছু সমস্যা রয়েছে। তবে শারীরিক ভাবে তিনি অতো খারাপ না।’ চিকিৎসকরা তাঁর কিছু পরীক্ষার জন্য বলেছে। দুটো ঔষধ বদলে দেয়ার কথা বললেও বেগম জিয়া রাজী হননি।

বিএনপি সূত্রে জানা গেছে, বেগম জিয়ার ব্যক্তিগত চিকিৎসককে কারাগারে তাঁর স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য বিএনপির আইনজীবীরা আজকালের মধ্যে একটি আবেদন হাইকোর্টে করতে পারেন।

দুই সিটি নির্বাচনে অংশ নেবে বিএনপি

আসন্ন খুলনা ও গাজীপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে বিএনপি অংশ নেবে বলে জানিয়েছেন দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

আজ রোববার রাত সাড়ে নয়টার দিকে বিএনপির সিনিয়র নেতাদের বৈঠকের পর মির্জা ফখরুল সাংবাদিকদের একথা জানান। তবে বিএনপি নির্বাচনে অংশগ্রহণ করলেও নির্বাচনী প্রচার প্রচারণার কতটুকু সুযোগ সরকার তাদের দেবে এ নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করেন তিনি।

গাজীপুর ও খুলনা সিটি করপোরেশনে আগামী ১৫ মে নির্বাচনের তারিখ ঘোষণা করেছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। নির্বাচনী তফসিল অনুযায়ী, দুটি সিটিতে নির্বাচন হবে ১৫ মে। এর আগে মনোনয়ন দাখিলের শেষ সময় ১২ এপ্রিল। আর মনোনয়ন যাচাই-বাছাই হবে ১৫ ও ১৬ এপ্রিল। মনোনয়ন প্রত্যাহারের শেষ দিন ২৩ এপ্রিল।

Check Also

fakhrulll

সরকারের পায়ের নিচের মাটি সরে গেছে : ফখরুল

‘সরকারের পায়ের নিচের মাটি সরে গেছে বলেই তারা দলীয় সন্ত্রাস ও দুষ্কৃতকারীদের ওপর ভর করেছে’ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Share
Pin