bnp-flag

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ে বিএনপি’র নেতারা

বিএনপি’র স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খানের নেতৃত্বে ৩ সদস্যের একটি প্রতিনিধি দল স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামালের সঙ্গে বৈঠক করার জন্য স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ে পৌঁছেছেন।

বৈঠকে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সাথে বিএনপি’র শীর্ষ নেতারা ঢাকায় সমাবেশের জন্য ভেন্যু বিষয়ে কথা বলবেন বলে ধারণা করা হচ্ছে।

বিস্তারিত আসছে …

সুপ্রিমকোর্ট আইনজীবী সমিতির নির্বাচনে বিএনপিপন্থীদের জয়

ঢাকা: সুপ্রিমকোর্ট আইনজীবী সমিতির নির্বাচনে সভাপতি পদে অ্যাডভোকেট জয়নুল আবেদীন ও সম্পাদক পদে ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন পুনরায় নির্বাচিত হয়েছেন।

নিবার্চনে বিএনপি-জামায়াত সমর্থিত নীল প্যানেল সভাপতি-সম্পাদকসহ ১০টি পদে বিজয়ী হয়েছে। অপরদিকে আওয়ামী লীগ সমর্থিত সাদা প্যানেল একটি সহ-সম্পাদকসহ ৪টি পদে জয়লাভ করেছে।

সভাপতি পদে নীল প্যানেলের অ্যাডভোকেট জয়নুল আবেদীন ৫৪ ভোট বেশি পেয়ে আবারো বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী হয়েছেন সাদা প্যানেলের অ্যাডভোকেট ইউসুফ হোসেন হুমায়ন।

সম্পাদক পদে নীল প্যানেলের ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন ৪৪১ ভোট বেশি পেয়ে টানা ৬ষ্ঠ বারের মত বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী সাদা প্যানেলের অ্যাডভোকেট এস কে মো: মোরসেদ।

বিএনপি-জামায়াত সমর্থিত নীল প্যানেল থেকে সহসভাপতি ড. মো: গোলাম রহমান ভুইয়া, এম গোলাম মোস্তফা, কোষাধ্যক্ষ নাসরিন আক্তার, সহ-সম্পাদক কাজী জয়নুল আবেদীন, সদস্য পদে মাহফুজ বিন ইউসুফ, সাইফুর আলম মাহমুদ, মো: আহসান উল্লাহ ও মোহাম্মদ মেহদী হাসান বিজয়ী হয়েছেন।

অপরদিকে সাদা প্যানেল থেকে সহ সম্পাদক পদে মোহাম্মদ আবদুর রাজ্জাক, সদস্য ব্যারিস্টার আশরাফুল হাদী, শাহানা ও শেখ মোহাম্মদ মাজু মিয়া জয়লাভ করেছেন।

এর আগে বৃহস্পতিবার (২২ মার্চ) ও বুধবার (২১ মার্চ) দু’দিনব্যাপী এই নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। বৃহস্পতিবার (২২ মার্চ) থেকে ভোট গণনা শুরু হয়।

নির্বাচনের শেষ দিনে (২২ মার্চ) ২ হাজার ২৫৬ জন আইনজীবী তাদের ভোটধিকার প্রয়োগ করেন। প্রথম দিনে (২১ মার্চ) ভোট পড়েছিলো ২ হাজার ৬০৯টি। দুই দিনে মোট ৬ হাজার ১৫২ জন ভোটারের মধ্যে মোট ৪ হাজার ৮৬৫ জন আইনজীবী ভোট দিয়েছেন।

বৃহস্পতিবার (২২ মার্চ) সন্ধ্যায় এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির নির্বাচন উপ-কমিটির আহ্বায়ক জ্যেষ্ঠ আইনজীবী এ ওয়াই মসিউজ্জামান।

ভোট কার্যক্রমের ব্যাপারে তিনি বলেন, ‘সুষ্ঠুভাবে ভোট গ্রহণ সম্পন্ন হয়েছে।

প্রসঙ্গত, সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির কার্যনির্বাহী কমিটির মোট ১৪টি পদে এ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। ১৪টি পদে এবার প্রতিদ্বন্দ্বীতা করেন ৩৩জন প্রার্থী। এ নির্বাচনে ভোটার ছিলেন সুপ্রিম কোর্টের ৬ হাজার ১৫২ জন আইনজীবী। এবারের নির্বাচন উপ-কমিটির আহ্বায়ক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন ‍সুপ্রিম কোর্টের জ্যেষ্ঠ আইনজীবী এ ওয়াই মসিউজ্জামান।

সরকার সমর্থিত সাদা প্যানেলের প্রার্থীরা হলেন: সরকার সমর্থিত আইনজীবীদের সংগঠন বঙ্গবন্ধু আওয়ামী আইনজীবী পরিষদ থেকে সভাপতি পদে প্রার্থী হয়েছেন সুপ্রিম কোর্টের জ্যেষ্ঠ আইনজীবী ইউসুফ হোসেন হুমায়ুন। তিনি সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি ও রাজনৈতিকভাবে আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা মণ্ডলীর সদস্য।

এছাড়াও অন্যান্য পদের মধ্যে সাধারণ সম্পাদক পদে শেখ মোহাম্মদ মোরশেদ, সহ-সভাপতি আলাল উদ্দীন ও ড. মো. শামসুর রহমান, কোষাধ্যক্ষ ড. মো. ইকবাল করিম, সহ-সম্পাদক মো. আবদুর রাজ্জাক ও ইয়াদিয়া জামান, সদস্য পদে ব্যারিস্টার আশরাফুল হাদী, হুমায়ুন কবির, চঞ্চল কুমার বিশ্বাস, শাহানা পারভীন, রুহুল আমিন তুহিন, শেখ মোহাম্মদ মাজু মিয়া ও মো. মুজিবর রহমান সম্রাট প্রার্থী হয়েছেন।

বিএনপি সমর্থিত নীল প্যানেলের প্রার্থীরা হলেন: বিএনপি সমর্থিত নীল প্যানেলের সভাপতি পদে জ্যেষ্ঠ আইনজীবী জয়নুল আবেদীন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। তিনি সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির বর্তমান সভাপতি ও বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান।

এছাড়াও নীল প্যানেলের মধ্যে সাধারণ সম্পাদক পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন বর্তমান সম্পাদক ও বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন। পাশাপাশি সহ-সভাপতি পদে ড. মো. গোলাম রহমান ভূঁইয়া ও মো. গোলাম মোস্তফা, কোষাধ্যক্ষ নাসরিন আক্তার, সহ-সম্পাদক কাজী জয়নুল আবেদীন ও আঞ্জুমান আরা বেগম এবং সদস্য পদে ব্যারিস্টার সাইফুর আলম মাহমুদ, জাহাঙ্গীর জমাদ্দার, এমদাদুল হক, মাহফুজ বিন ইউসুফ, সৈয়দা শাহীন আরা লাইলী, মো. আহসান উল্লাহ ও মোহাম্মদ মেহদী হাসান প্রার্থী হয়েছেন।

দু’টি বড় রাজনৈতিক দল ছাড়াও স্বতন্ত্রভাবে সভাপতি পদে আরও প্রার্থী হয়েছেন অ্যাডভোকেট ড. ইউনুছ আলী আকন্দ ও শাহ খসরুজ্জামান। এছাড়াও সহ-সভাপতি পদে মো. আব্দুল জব্বার ভূঁইয়া, সম্পাদক পদে মোহাম্মদ আবুল বাসার ও সদস্য পদে অ্যাডভোকেট তাপস কুমার দাস প্রার্থী হয়েছেন।

Check Also

fakhrulll

সরকারের পায়ের নিচের মাটি সরে গেছে : ফখরুল

‘সরকারের পায়ের নিচের মাটি সরে গেছে বলেই তারা দলীয় সন্ত্রাস ও দুষ্কৃতকারীদের ওপর ভর করেছে’ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Share
Pin