mirja_bnp

বড়রা দল ছাড়তে পারে, নেতা-কর্মীরা যায় না

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, বিএনপি এখন আগের চেয়েও শক্তিশালী। দল ভাঙা নিয়ে সরকারি দলের নেতাদের বক্তব্যের জবাব দিতে গিয়ে মির্জা ফখরুল বলেন, যতই এদিক-ওদিক থেকে টানাটানি করা হোক না কেন, বিএনপির সাধারণ নেতা-কর্মীরা কখনো দল ছেড়ে যায় না। বড়রা কেউ কেউ দল ছেড়ে যেতে পারে, নেতা-কর্মীরা কেউ যায় না।

স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে আজ সোমবার রাজধানীর ভাসানী মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে মির্জা ফখরুল এ কথা বলেন। বিএনপির অঙ্গ–সংগঠন জাতীয়তাবাদী সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংস্থা (জাসাস) এ আলোচনা সভার আয়োজন করে।

নেতা–কর্মীদের উদ্দেশে বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘সময় এখন আমাদেরই। বাংলাদেশ এখন একটি স্বৈরতান্ত্রিক দেশ হয়ে গেছে। এটা আমার কথা নয়, সারা পৃথিবী বলছে। এটাকে শক্ত করে ধরুন। সাহস সঞ্চয় করে নামুন। আসুন, আমরা জেগে উঠি।’ তিনি আরও বলেন, ‘সোচ্চার হতে হবে, বলতে হবে, আমরা গণতন্ত্র ফিরে চাই, গণতন্ত্রের মাতাকে (খালেদা জিয়া) ফিরে চাই।’

দেশের বর্তমান পরিস্থিতি তুলে ধরে বলেন, এখন দুঃসময় চলছে। তবে এটা কেবল বিএনপির জন্য নয়, গোটা জাতির জন্য দুঃসময়। তিনি বলেন, আগামী নির্বাচনে বিএনপি যেন অংশ না নেয়, সে জন্য ক্ষমতাসীনেরা চেষ্টা চালাচ্ছে। খালেদা জিয়ার সাজা এবং সারা দেশে নেতা-কর্মীদের গ্রেপ্তার ও মামলা সেই চেষ্টারই অংশ। তিনি বলেন, ৭৮ হাজার মামলায় বিএনপির ১৮ লাখ নেতা–কর্মী আসামি। এঁরা যেন নির্বাচনে কাজ করতে না পারেন, সে জন্য মামলা দেওয়া হয়েছে।

ফখরুল বলেন, দেশনেত্রী খালেদা জিয়া ও সব নেতা–কর্মীকে মুক্তি দিতে হবে। খালেদা জিয়াকে সামনে রেখে নিরপেক্ষ সরকারের অধীনেই বিএনপি নির্বাচনে যাবে।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন জাসাসের সভাপতি অধ্যাপক মামুন আহমেদ।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করবে বিএনপি

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামালের সঙ্গে দেখা করতে আজ মঙ্গলবার বেলা ১১টায় সচিবালয়ে যাবে বিএনপির একটি প্রতিনিধি দল। আগামী ২৯ মার্চ সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশের অনুমতির বিষয়ে এ সাক্ষাৎ বলে জানা গেছে।

বিএনপির জাতীয় কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খানের নেতৃত্বে প্রতিনিধি দলে থাকবেন দলের ভাইস চেয়ারম্যান আলতাফ হোসেন চৌধুরী এবং মেজর (অব.) হাফিজ উদ্দিন আহমেদ।

সকাল ১০টার দিকে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল প্রথম আলোকে বলেন, ‘তাঁরা (বিএনপির নেতারা) আসতে চেয়েছেন। আমি বলেছি, আসুন।’

বিএনপির নেতারা কী নিয়ে কথা বলবেন, সে বিষয়ে কিছু জানেন না বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।

বিএনপির চেয়ারপারসনের প্রেস উইয়ের কর্মকর্তা শায়রুল কবির খান প্রথম আলোকে বলেন, ২৯ তারিখ সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশের অনুমতি চাওয়ার জন্য দলের জ্যেষ্ঠ নেতারা স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করবেন। এ ছাড়া তাঁরা দলীয় কিছু গুরুত্বপূর্ণ বিষয় নিয়ে আলোচনা করতে পারেন।

এদিকে বিএনপির দলীয় সূত্র জানিয়েছে, বিএনপিকে যেন নির্বিঘ্নে সভা-সমাবেশ করতে দেওয়া হয়, সমাবেশ থেকে কর্মীদের হুটহাট গ্রেপ্তার না করা হয় এবং বিএনপিকে যেন স্বাভাবিক রাজনীতি করতে দেওয়া হয়-এসব বিষয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে অনুরোধ জানানো হতে পারে।

১২ মার্চ সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশ করতে চেয়েছিল বিএনপি। তখন জননিরাপত্তার কথা বলে সমাবেশ করতে দেয়নি পুলিশ। এরপর থেকে বিএনপি সমাবেশ করার জন্য পুলিশের কাছে একটি স্থান বরাদ্দ চাইছে।

Check Also

‘হাজী’ পরিবারের বিস্ময়কর উত্থান

পিতার দুই সংসারের দ্বিতীয় পক্ষের সন্তান তিনি। অভাব-অনটনে বেড়ে ওঠা। অর্থভাবে লেখাপড়া করতে পারেননি। কিশোর …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Share
Pin