খালেদাভক্ত শাকিবের চিঠি জেলগেট থেকে ফেরত!

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে ‘প্রিয় মা জননী’ সম্বোধন করে ভক্ত আলিমেল হাকিম মুনশী শাকিবের পাঠানো চিঠি জেল থেকে ফেরত এসেছে। বৃহস্পতিবার ময়মনসিংহের গৌরীপুর পোস্ট অফিসের ডাকপিয়ন ফেরত চিঠিটা পৌঁছে দেন।

গৌরীপুর পৌরসভার সাবেক চেয়ারম্যান ও পৌর বিএনপির সাবেক সভাপতি আবদুল খালেক মুনশীর ছেলে আলিমেল হাকিম মুনশী শাকিব। তিনি গৌরীপুর পৌর ছাত্রদলের সহসভাপতি।

২০ ফেব্রুয়ারি খালেদা জিয়ার উদ্দেশে লেখা চিঠিটি রেজিস্ট্রি ডাকযোগে পাঠায় শাকিব। ৪২৫নং রেজিস্ট্রি রশিদমূলে প্রাপকের ঠিকানায় বেগম খালেদা জিয়া, সাবেক প্রধানমন্ত্রী, ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগার, পুরাতন নাজিমউদ্দিন রোড, ঢাকা লিখে পাঠানো হয়। ঢাকা পুরাতন কারা কর্তৃপক্ষ গ্রহণ না করায় ২২/০২/১৮ইং ফেরত দেয়। চিঠিটা রেজিস্ট্রিযুক্ত হওয়ায় প্রেরক মো. গোলাম আলিমে হাকিম মুন্সী শাকিব, পিতা- মো. আবদুল খালেক মুন্সী (সাবেক চেয়ারম্যান), গ্রাম- নয়াপাড়া, পো: + উপজেলা- গৌরীপুর, জেলা- ময়মনসিংহ এই ঠিকানায় বৃহস্পতিবার (১মার্চ/১৮) গৌরীপুর ডাক বিভাগের পিয়ন পৌঁছে দেন।

পাঠকের জন্য পুরো চিঠিটা তুলে ধরা হলো

প্রিয় মা জননী,

আসসালামু আলাইকুম, আজ আপনি দেশ, জনগণ ও ভোটের অধিকার প্রতিষ্ঠার জন্য মিথ্যা বানোয়াট মামলায় কারাবন্দি। শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান শাহাদতের পরেও দেশের সাধারণ জনগণকে সঙ্গে নিয়ে আপনি স্বৈরাচারবিরোধী আন্দোলনের নেতৃত্ব দিয়ে গণতন্ত্র পূর্ণ উদ্ধার করেছিলেন। ৯ মার্চ ১৯৯১ সালে দেশের প্রথম নারী প্রধানমন্ত্রী হয়েছিলেন। ১/১১ দেশ-বিদেশি ষড়যন্ত্রের পরেও আপনি জনগণকে নিয়ে তাহা মোকাবেলা করেছেন।

৫ জানুয়ারি নির্বাচনে জনগণের ভোটের অধিকার আদায়ে গৃহবন্দি হয়ে নিজের সন্তানের মৃত্যুর পরেও নীতিতে অটল ছিলেন, ঠিক তেমনি করে আমরাও আপনার পাশে আছি থাকব, সাজানো মিথ্যা মামলা দিয়ে আপনাকে কারাবন্দি রাখতে পারবে না। মুক্তির অপেক্ষা দেশের তৃণমূল সাধারণ জনগণ আজ ঐক্যবদ্ধ। নিজের স্বাস্থ্যের প্রতি যত্ন নেবেন, মুক্তি পেয়ে আবারও দেশের নেতৃত্ব দেবেন আপনি, ইনশাআল্লাহ, উঠবে নতুন আশার আলো, সোনালি ধানের শীর্ষে। আল্লাহ হাফেজ।

ইতি

বারবার কারা নির্যাতিত ছাত্রদল কর্মী

মওদুদ – জমির বাদ

বেগম জিয়ার দুর্নীতি মামলায় হাইকোর্টের লড়াইয়ের মূল টীমে নেই ব্যারিস্টার মওদুদ আহমেদ এবং ব্যারিস্টার জমির উদ্দিন সরকার। গতকাল বৃহস্পতিবার রাতে মামলার কার্যক্রম এবং কৌশল নিয়ে অনুষ্ঠিত আইনজীবীদের বৈঠকে এরা দুজন ছিলেন না। খন্দকার মাহবুব হোসেনের চেম্বারে অনুষ্ঠিত বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন এডভোকেট হাসান আরিফ , আমিনুল ইসলাম, জয়নাল আবেদিন, আবদুর রেজ্জাক খান ও সানাউল্লাহ মিয়া।

বৈঠক সূত্রে জানা গেছে, হাইকোর্টে আপীলের শুনানীর পয়েন্ট নিয়ে বৈঠকে আলোচনা হয়েছে। বেগম জিয়ার আইনজীবীরা আপীলে কোন পয়েন্ট উথাপন করবেন, রায়ে কি কি অসংগতি আছে, এসব বিষয়ে বৈঠকে আলোচনা হয়েছে। ব্যারিষ্টার মওদুদ কেন নেই, জানতে চাওয়া হলে, নাম প্রকাশ না করার শর্তে বৈঠকে উপস্থিত একজন আইনজীবী বলেছেন ‘এটা কোর টিমের বৈঠক। মওদুদ স্যার নিশ্চয়ই তার মতো প্রস্তুতি নিবেন। ‘

ঐ আইনজীবী অবশ্য জানিয়েছেন, জামিন মঞ্জুর করার পরপরই তারা বেগম জিয়ার দন্ড স্থগিত করার আবেদন করবেন। সেই শুনানিতে ব্যারিস্টার মওদুদ ও জমির উদ্দিন সরকার থাকবেন। অন্য একটি সূত্র জানিয়েছে, লন্ডন থেকে তারেক জিয়াই মামলার কৌশলগত মিটিংয়ে মওদুদ আহমেদকে না রাখার নির্দেশ দিয়েছেন।

বাংলা ইনসাইডার

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.