khaleda_zia

খালেদার রায় নিয়ে আমেরিকায় উত্তেজনা

আসন্ন ৮ ফেব্রুয়ারির বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার দুর্নীতি মামলার রায় প্রদানের তারিখ ঘিরে আমেরিকার নিউইয়র্কে পরস্পর বিরোধী কর্মসূচিতে প্রবাসীদের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করছে।

যুক্তরাষ্ট্র বিএনপি আগামী ৫ ফেব্রুয়ারি নিউইয়র্কে জাতিসংঘের সামনে এবং ৭ ফেব্রুয়ারি সন্ধ্যা থেকে রাতভর জ্যাকসন হাইটসে অবস্থান কর্মসূচি ঘোষণার পরই যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগও প্রায় একই ধরনের কর্মসূচি ঘোষণা করেছে। উভয় পক্ষ থেকেই বড় ধরনের শো-ডাউনের প্রস্তুতি চলছে। এবং বিষয়টি ইতিমধ্যে সিটি প্রশাসন এবং পুলিশের গোচরেও গিয়েছে।

এদিকে, খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে চার্জশিট প্রদানের পর বিচার চলছে বলে মার্কিন প্রশাসনের বিভিন্ন পর্যায়কে অবহিত করেছেন যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সভাপতি। ‘বাংলাদেশের বিচার ব্যবস্থা সম্পূর্ণ নিরপেক্ষ এবং এই মামলার বিচারে সরকারের ন্যূনতম হস্তক্ষেপ নেই বলেও অবহিত করেছেন সংশ্লিষ্ট সকলকে’-এ তথ্য জানান যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আব্দুস সামাদ আজাদ।

এর আগে, যুক্তরাষ্ট্র বিএনপির পক্ষ থেকে ওয়াশিংটন ডিসিতে মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এবং ক্যাপিটল হিলে প্রদত্ত স্মারকলিপিতে ‘বেগম খালেদা জিয়া রাজনৈতিক প্রতিহিংসার শিকার’ বলে উল্লেখ করা হয়েছে।

১ ফেব্রুয়ারি বৃহস্পতিবার রাতে যুক্তরাষ্ট্র বিএনপির সংবাদ সম্মেলন থেকেও একই ধরনের অভিযোগ করা হয়েছে।

এদিকে, গত মঙ্গলবার (৩০ জানুয়ারি) যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের ‘মিট দ্য প্রেস’-এ উল্লেখ করা হয়েছে যে, এই প্রবাসে মিথ্যাচার চালালে তার দাঁতভাঙা জবাব দেয়া হবে। কারণ, খালেদা জিয়ার বিচার হচ্ছে দেশের প্রচলিত আইন অনুযায়ী।

বাংলাদেশি হত্যায় ওসবোর্নের ৪৩ বছরের কারাদণ্ড
লন্ডন: বৃটেনের উত্তর লন্ডনে মুসল্লিদের ভিড়ে গাড়ি উঠিয়ে বাংলাদেশিকে হত্যায় এক ব্রিটিশ নাগরিককে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছে দেশটির একটি আদালত।

ড্যারেন ওসবোর্ন (৪৮) নামের কার্ডিফের ওই বাসিন্দাকে ন্যূনতম ৪৩ বছর কারাগারে কাটাতে হবে বলে বিবিসির এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।

২০১৭ সালের ১৯ জুন লন্ডনের সেভেন সিস্টার্স সড়কের ফিন্সবুরি পার্ক মসজিদের কাছে মুসল্লিদের ভিড়ে গাড়ি (ভ্যান) উঠিয়ে দেন ওসবোর্ন। তারাবির নামাজ পড়ে রাত সাড়ে ১২টার দিকে মুসল্লিরা বেরোনোর পর ওই গাড়ি হামলায় মকরম আলী (৫১) নামে এক বাংলাদেশি নিহত হন। আহত হয়েছিলেন আরও ১২জন।

শুক্রবার (১ ফেব্রুয়ারি) রায় ঘোষণার সময় বিচারক চিমা ক্রুব বলেন, ওসবোর্ন আত্মঘাতী মিশনের পরিকল্পনা করেছিলেন এবং আশা করেছিলেন তাকে গুলি করে হত্যা করা হবে।

এটা একটা সন্ত্রাসী হামলা ছিল-তুমি হত্যা করতে চেয়েছিলে তাকে বলেন বিচারক।

হত্যা ও হত্যাচেষ্টায় দোষী সাব্যস্ত চার সন্তানের জনক ওসবোর্ন রায় শুনে আদালত থেকে বেরিয়ে যাওয়ার সময় বলেন, ঈশ্বর তোমাদের সবার মঙ্গল করুন, ধন্যবাদ।

উল্লেখ্য, ৯ দিন শুনানি নিয়ে বৃহস্পতিবার ওসবোর্নকে দোষী সাব্যস্ত করে উলউইচ ক্রাউন কোর্ট।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.