বিএনপি নেতা আমান ও নাজিমুদ্দিনের বাসা ঘেরাও করে রেখেছে গোয়েন্দা পুলিশ

বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান আমানউল্লাহ আমান ও নির্বাহী সদস্য নাজিমুদ্দিন আলমের রাজধানীর মহাখালী ডিওএইচএসের বাসা ঘেরাও করে রেখেছে গোয়েন্দা পুলিশ। শুক্রবার রাত ৮টার পর থেকে গোয়েন্দা পুলিশের একাধিক দল বিএনপির এই নেতাদের মহাখালী ডিওএইচএসের বাসা ঘেরাও করে রাখে।

এর আগে বাংলাদেশ পুলিশের নবনিযুক্ত মহাপরিদর্শক (আইজিপি) জাবেদ পাটোয়ারী বলেছিলেন, বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার রায়কে কেন্দ্র করে কোনো ধরনের সহিংসতা রুখতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী কঠোর অবস্থানে থাকবে।

বৃহস্পতিবার সকালে পুলিশ হেডকোয়ার্টার্সের মিডিয়া সেন্টারে এক সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকের প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন। তিনি বলেন, আগামী ৮ ফেব্রুয়ারি খালেদা জিয়ার রায়কে কেন্দ্র করে জনসাধারণের জানমাল রক্ষায় কঠোর অবস্থানে থাকবে পুলিশ। যেকোন ধরনের নাশকতা বা সহিংসতার চেষ্টা করা হলে তা রুখে দেয়া হবে।

নতুন আইজিপি বলেন, পুলিশের প্রধান দায়িত্ব জনগণের জানমালের নিরাপত্তা দেয়া। পুলিশ দৃঢ়তার সঙ্গে এ কাজ করে যাচ্ছে। আগামী দিনেও জনগণের জানমালের নিরাপত্তা দিতে প্রতিটি পুলিশ সদস্যই কঠোর অবস্থানে থাকবে।

আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন প্রসঙ্গে এক প্রশ্নের জবাবে আইজিপি বলেন, নির্বাচন পরিচালনা নির্বাচন কমিশনের দায়িত্ব। তবে জনগণের জানমালের নিরাপত্তায় সর্বোচ্চ দায়িত্ব পালন করবে পুলিশ। নির্বাচনের সময় অবস্থা বুঝে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

পুলিশ সদস্যদের অপরাধে জড়িয়ে পড়া প্রসঙ্গে তিনি বলেন, পুলিশের কিছু সদস্যের অপকর্মের জন্য গোটা বাহিনী বিব্রত হয়। এর দায় কখনোই বাহিনী নেবে না। যারা এ ধরনের কাজ করে তাদের বিরুদ্ধে প্রচলিত আইন ও পুলিশি আইন কানুনে ব্যবস্থা নেয়া হয়।

প্রসঙ্গত, অতিরিক্ত আইজিপি (এসবি) ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারীকে নতুন আইজিপি হিসেবে নিয়োগ দিয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করেছে সরকার। নতুন আইজিপির ফিরে দেখা এক অসাধারণ জীবন রয়েছে। আর পুলিশের প্রধান যেই হোন তাকে নিয়ে সাধারণ মানুষের আগ্রহটা একটু বেশিই থাকে।

নতুন আইজিপির বর্ণাঢ্য জীবনে সাংবাদিকসহ বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষের সাথে মধুর সখ্যতা বা বন্ধুত্ব গড়ে তুলেছেন। তিনি সবারই অনেক পছন্দের মানুষ।

দেশের সবচেয়ে বড় এবং সাধারণ মানুষের কাছাকাছি থাকা পুলিশ বাহিনীকে একটি শৃঙ্খল বাহিনী হিসেবে গড়ে তুলবেন এই প্রত্যাশা সবার। ‘পুলিশ ও জনগণের মধ্যে কোনও পার্থক্য নেই’ এমন দূরহ কাজ তার পক্ষে করা সম্ভব এমনটাই আশা।

ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী চাঁদপুর জেলার সদর থানাধীন মান্দারী গ্রামের এক সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন।

নিজ জেলায় মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা শেষ করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজ কল্যাণ বিষয়ে স্নাতক সম্মান ও প্রথম শ্রেণিতে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি লাভ করেন।

এরপর তিনি জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের লোক প্রশাসন বিভাগ থেকে পিএইচডি করেন। তার গবেষণার বিষয় ছিল Combating Terrorism in Bangladesh; Challenge and Prospects.

১৯৮৪ সালে ষষ্ঠ বিসিএস এর মাধ্যমে পুলিশ ক্যাডারে মেধা তালিকায় প্রথম স্থান অধিকার করে ১৯৮৬ সালে বাংলাদেশ পুলিশ বাহিনীতে যোগ দেন। ওই বছরের বিসিএসের সম্মিলিত মেধা তালিকায় তার অবস্থান চতুর্থ।

আইজিপি হিসেবে এ কে এম শহীদুল হকের স্থলাভিষিক্ত হতে যাওয়া ড. জাবেদ স্পেশাল ব্রাঞ্চের অ্যাডিশনাল আইজিপি হিসেবে দায়িত্ব পালন করছিলেন। নতুন আইজিপি হিসেবে আগে থেকেই আলোচনায় ছিল তার নাম।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.