hanif

নির্বাচনে এসে বিএনপি প্রমাণ করুক মানুষ তাদের পক্ষে: হানিফ

আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুবউল আলম হানিফ বলেছেন, বিএনপি অতীত অপকর্মের কারনে জনগন থেকে বিচ্ছিন্ন হয়েছে। তারা রাজনীতি থেকেও অনেকটা বিচ্ছিন্ন। এই মুহুর্তে নির্বাচন হলে কি হবে,না হবে সেটা ভাববার দরকার নেই। নির্বাচন যখন হবে তখন ভাবতে হবে কতভাগ ভোট পাবে। তারা এখন কাল্পনিক তুষ্টিতে ডুবে আছে।

আজ শুক্রবার সকালে কুষ্টিয়া শিল্পকলা একাডেমী চত্বরে প্রধান অতিথি হিসেবে যোগ দেয়ার আগে বলেন,এই মুহুর্তে নিরপেক্ষ নির্বাচন হলে বিএনপি ৮০ ভাগ ভোট পাবে বিএনপি নেতা মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের এমন মন্তব্যের প্রেক্ষিত সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন।

হানিফ বলেন, বিএনপির কতটুকু জনপ্রিয়তা আছে তা জনগন দেখেছে। তাদের জনপ্রিয়তা থাকলে ২০১৪ সালে তারা নির্বাচনে অংশ নিতো। নির্বাচনে জয়লাভ করার কোন সম্ভাবনা নেই বিধায় বিএনপি নির্বাচনে অংশ নেয় নাই, নির্বাচন প্রতিহত করার চেষ্টা করেছেন। নির্বাচনে অংশগ্রহণ করে বিএনপি প্রমাণ করুক কত ভাগ মানুষ তাদের পক্ষে আছে।

এ সময় কুষ্টিয়া জেলা প্রশাসক মো. জহির রায়হান, পুলিশ সুপার জয়নুল আবেদীন, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জুলিয়া সুকায়না, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান হাজী রবিউল ইসলাম, জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আজগর আলীসহ বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেক্ট্রনিক্স মিডিয়ার সাংবাদিকরা উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ও সংসদ সদস্য মাহাবুব উল আলম হানিফ হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেছিলেন, আামাদের নেতাকর্মীদের উপর যদি বিচ্ছিন্নভাবে আর একটিও হামলার ঘটনা ঘটানো হয়, তাহলে সেগুলো কিভাবে মোকাবেলা করতে হয় সেটা আমরা জানি এবং প্রশাসন সেভাবেই সেগুলো মোকাবেলা করবে। অন্যায় করে কেউ পার পাবে এটা হবে না।

গত সোমবার রাঙামাটি ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠি ইনষ্টিটিউট মিলনায়তনে জেলা আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, পাহাড়ের মানুষের নিরাপত্তা ও শান্তির জন্যে অত্রাঞ্চলের আইনশৃঙ্খলা বাহিনী আইনের যতটুকু প্রয়োগ করা দরকার তার সবটুকু অবশ্যই প্রয়োগ করবে। এসময় তিনি নামধারী আঞ্চলিক সশস্ত্র সন্ত্রাসী সংগঠনের নেতাকর্মীদের অবৈধ অস্ত্রের পথ পরিহার করে স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসার আহবান জানান।

মাহাবুব উল আলম হানিফ বলেন, সরকার পাহাড়ের অবৈধ অস্ত্রধারী সন্ত্রাসীদের কখনোই ছাড় দিবে না। সন্ত্রাস-জঙ্গিবাদের মূল উৎপাটন করতে যা যা করণীয় তার সবটুকুই করবে। এই ধরনের যেকোনা সমস্যার সমাধান করতে সরকার সক্ষম। এটা ইতোপূর্বে প্রমাণও করেছি। তাই যারা পাহাড়ে অবৈধ অস্ত্রের জোরে সন্ত্রাসী কর্মকান্ড অব্যাহত রেখেছে, তাদের অবশ্যই সে পথ পরিত্যাগ করতে হবে।

রাঙামাটি জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাবেক পার্বত্য প্রতিমন্ত্রী দীপংকর তালুকদারের সভাপতিত্বে এবং জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হাজী মো. মুছা মাতব্বরের সন্ঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত জেলা আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভায় আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক এ কে এম এনামুল হক শামীম, সাংগঠনিক সম্পাদক খালিদ মাহমুদ চৌধুরী এমপি, উপ প্রচার সম্পাদক আমিনুল ইসলাম, উপ-দপ্তর সম্পাদক ব্যারিষ্টার বিপ্লব বড়ুয়া, ছাত্রলীগের সাবেক সম্পাদক মাহফুজুল আলম, সংসদ সদস্য ফিরোজা বেগম চিনু বক্তব্য রাখেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.