টঙ্গী থেকে বিশ্ব ইজতেমা মালয়েশিয়ায় সরিয়ে নেয়ার সিদ্ধান্ত!

তাবলীগ জামাতের আমিরের পদ থেকে ভারতের মাওলানা মুহাম্মদ সা’দকে সরিয়ে দেয়া হলে টঙ্গী থেকে বিশ্ব ইজতেমা মালয়েশিয়ায় স্থানান্তর করা হবে বলে সিদ্ধান্ত নিয়েছে মালয়েশিয়া তাবলিগের শুরা কর্তৃপক্ষ।

রবিবার বাংলাদেশ তাবলিগ জামাতের শুরাকে লেখা এক চিঠিতে মালয়েশিয়া তাবলিগের শুরা কর্তৃপক্ষ এই হুঁশিয়ারি দিয়েছে।

এ বিষয়ে বাংলাদেশের তাবলীগের শুরা সদস্যরা জানান, ইজতেমায় মাওলানা সাদের আসা না আসা নিয়ে একটা সমস্যা হয়েছে। তবে এটি সমাধানও হয়ে গেছে।

তাবলীগ সূত্রে জানা যায়, এবারের ইজতেমায় দিল্লির নিজামুদ্দিনের মুরব্বি মাওলানা সাদ সাহেব আসতে পারবেন কিনা এ নিয়ে দীর্ঘ দিন ধরে তাবলীগের শুরা সদস্যদের মধ্যে আলোচনা চলছিল।

গত ২৪ ডিসেম্বর এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত জানতে বাংলাদেশ থেকে তাবলীগ ও উলামায়ে কেরামের সমন্বিত একটি প্রতিনিধি দল ভারতে অবস্থিত তাবলীগের মূলকেন্দ্র নিজামুদ্দিন ও দারুল উলুম দেওবন্দ সফর করেন। দেশে ফিরে তারা একটি প্রতিবেদন পেশ করেন।

সফরকারী দলের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, মাওলানা সাদ সাহেব প্রদত্ত আহলুসসুন্নাহ ওয়াল জামাতের মতাদর্শের সম্পূর্ণ পরিপন্থি কতক অসতর্ক বক্তব্যের প্রেক্ষিতে নিজের ভুল স্বীকার করেন। তবে যেভাবে উনাকে ভুল স্বীকার করতে বলা হয়েছিল তিনি সেভাবে তা করেননি।

প্রসঙ্গত, মাওলানা সাদ সাহেব আল্লাহর পয়গাম্বর হযরত মুসা আ. সম্পর্কে ভুল ব্যাখ্যা দিয়েছিলেন বলে অভিযোগ।

এবারের বিশ্ব ইজতেমায় মাওলানা সাদ কান্ধলভী আসতে পারবেন কিনা এ নিয়ে আলোচনা হয় কাকরাইলের শুরা উপদেষ্টা ও ভারতে সফরকারী প্রতিনিধি দলের সঙ্গে। বৈঠকের সিদ্ধান্ত গত রোববার রাতে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামালের হাতে হস্তান্তর করা হয়।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বিষয়টি অবগত হন তবে কিছু বলেননি। কিন্তু মাওলানা সাদ সাহেবের আসা না আসা নিয়ে পক্ষে বিপক্ষে মতামত আসায় সমাধানের নিমিত্তে সভার সভাপতি একটি প্রস্তাব পেশ করেন। সভাপতি মুহিউস সুন্নাহ আল্লামা মাহমুদুল হাসান অধিকাংশের মতামতের ভিত্তিতে মাওলানা সাদসহ ৪জন আলেম না এসে তাদের পক্ষ থেকে প্রতিনিধি আসারই সিদ্ধান্ত দেন।

অন্যদিকে মালয়েশিয়া তাবলীগ জামাতের চিঠি সূত্রে জানা যায়, আমরা আশঙ্কা করছি তাবলীগের ফায়সাল এবং আমিরের দায়িত্ব নিজামুদ্দিনের (তাবলিগের মারকাজ) প্রতিনিধিদের থেকে কেড়ে নেয়া হতে পারে। এটা শুধু বিশ্বব্যাপী তাবলিগ জামাতেই নয়, বাংলাদেশেও বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করবে। কারণ, সারা বিশ্বের অধিকাংশ তাবলিগ মারকাজ নিজামুদ্দিনকে বিশ্ব তাবলিগ মারকাজ এবং সংগঠন ও প্রশাসনের কেন্দ্র মনে করে। মাওলানা সা’দের বর্তমান পদ-পদবি নিয়ে বাংলাদেশ সরকারের সঙ্গে একটি বৈঠক হয়েছে।

এই অবস্থায় মালয়েশিয়া তাবলিগের শুরা সর্বসম্মতভাবে সবাইকে জানাচ্ছে যে, মাওলানা সা’দই হচ্ছেন তাবলিগ জামাতের বর্তমান আমির। সারা বিশ্বে তাবলীগের মাত্র ১ শতাংশের কম সদস্য এই সিদ্ধান্তের বিরোধী। চিঠিতে বলা হয়, যেভাবে আমরা মাওলানা সা’দকে সর্বোচ্চ শ্রদ্ধা ও মূল্যায়ন করছি, বাংলাদেশ সরকারও সেটা করবে বলে আমরা আশা করছি। কারণ, তিনি এবং তার পূর্বসূরিরা নিজামুদ্দিন থেকে এসেছেন যারা এর আগে দায়িত্ব পেয়েছিলেন।

টঙ্গী বিশ্ব ইজতেমার প্রস্তুতি ও আয়োজনের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট সবাইকে উদ্দেশ্য করে এতে বলা হয়, এই কর্মকা-কে পুনরুজ্জীবন দানে আল্লাহ নিজামুদ্দিনকে জন্মস্থান হিসেবে পছন্দ করেছেন। সেখান থেকেই বিশ্বের আনাচে-কানাচে এই কাজ ছড়িয়ে পড়েছে। একই সঙ্গে নিজামুদ্দিনের মুরুব্বিরা অত্যন্ত সম্মানিত হয়ে আসছেন।

চিঠিতে বলা হয়, আমরা দোয়া করি, এই দ্বীনি সমাবেশের মূল্যবোধ ও ঐতিহ্য মেনে এই ইজতেমায় নিজামুদ্দিনের প্রতিনিধিদের থেকে আমির ও ফায়সাল অনুমোদনে আল্লাহ আয়োজকদের পথনির্দেশনা দেবেন।

অন্যথায় এতে হুঁশিয়ারি দিয়ে বলা হয়, যদি আয়োজকরা নিজামুদ্দিনের প্রতিনিধিদের থেকে আমির ও ফায়সাল নির্বাচনের মূল্যবোধ ও ঐতিহ্য মানতে ব্যর্থ হন, তাহলে আমরা মালয়েশিয়া শুরা বাংলাদেশের পরিবর্তে বিশ্ব ইজতেমা আয়োজনে মালয়েশিয়াকে প্রস্তাব করতে একমত হয়েছি।

Check Also

২০২৩ সালে ক্ষমতায় যাওয়ার রোড ম্যাপ করছে বিএনপি?

‘আগামী দিনের বিএনপির নেতৃবৃন্দ’ এই শিরোনামে লন্ডনে বিএনপির পলাতক ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক জিয়া সারাদেশে নেতৃবৃন্দের …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Share
Pin