bnp-flag

আলফাডাঙ্গা পৌর নির্বাচন বয়কটের ঘোষণা বিএনপির

ফরিদপুরের আলফাডাঙ্গা পৌর নির্বাচন বয়কটের ঘোষণা দিয়েছে পৌর ও উপজেলা বিএনপি। মঙ্গলবার দুপুরে আলফাডাঙ্গা উপজেলা বিএনপি কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এ ঘোষণা দেওয়া হয়। তবে বিএনপির মেয়র প্রার্থী আতাউর রহমান নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার কথা নিশ্চিত করেছেন।

আলফাডাঙ্গা পৌর বিএনপির আহ্বায়ক আবদুল ওহাব মিয়ার পক্ষে সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পড়ে শোনান বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক আবদুল মান্নান আব্বাস।

সংবাদ সম্মেলনে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির অন্যতম সদস্য, সাবেক এমপি শাহ মোহাম্মদ আবু জাফর, মধুখালী পৌর বিএনপির সভাপতি শাহাবুদ্দিন আহমেদ সতেজ, বোয়ালমারী পৌর বিএনপির সভাপতি আফসারউদ্দিন আহমেদ, আলফাডাঙ্গা পৌর বিএনপির আহ্বায়ক আবদুল ওহাব মিয়া প্রমুখ।

সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগ করা হয়, বিএনপি প্রার্থী ও তাদের সমর্থকদের বিভিন্নভাবে ভয়ভীতি দেখানো হচ্ছে। প্রচারণায় বাধা দেওয়ার পাশাপাশি বিএনপির নেতাকর্মীদের হামলা মামলা দিয়ে হয়রানি করা হচ্ছে। এসব বিষয়ে প্রশাসনের কাছে অভিযোগ করেও কোনো প্রতিকার পাওয়া যায়নি।

স্থানীয় প্রশাসন সম্পূর্ণভাবে ক্ষমতাসীন দলের প্রার্থীর পক্ষে কাজ করছে। এ অবস্থায় নির্বাচন করা হলে বিএনপির নেতাকর্মী ও সমর্থকরা জুলুম নির্যাতনের শিকার হবেন। এসব কারণে বিএনপির পক্ষ থেকে পৌর নির্বাচন বয়কট করা হলো।

আতাউর রহমান জানান, নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার উদ্দেশ্যে তার সমর্থকরা ভোট প্রার্থনা করছেন।

আগামী ২৮ ডিসেম্বর প্রথমবারের মতো নবগঠিত আলফাডাঙ্গা পৌরসভা নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

ফরিদপুরে দুই সহোদরকে কুপিয়ে হত্যা

ফরিদপুরের আলফাডাঙ্গায় পূর্বশত্রুতার জেরে দুই সহোদরকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করেছে প্রতিপক্ষরা। বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে আলফাডাঙ্গা বাজারের শ্মশান ঘাট এলাকায় তাদের ওপর হামলা হয়। এসময় স্থানীয়রা আহতদের উদ্ধার করে প্রথমে আলফাডাঙ্গা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়, পরে সেখান থেকে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসাপাতালে পাঠানো হলেও চিকিৎসাধীন অবস্থায় তারা শুক্রবার ভোরে মারা যান।

নিহতরা হলেন কাপড় বিক্রেতা ইদ্রিস মোল্লা (৪৮) ও কাঠ বিক্রেতা লাভলু মোল্লা (৪২)। তারা বোয়ালমারী উপজেলার শেখর ইউনিয়নের মাগুরা গ্রামের জহুর মোল্লার ছেলে।

শেখর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মো. ইসরাফিল মোল্লা পূর্বশত্রুতার জেরে দুই সহোদরকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে হত্যাকান্ডের বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

নিহতদের অপর ভাই মো: আবুল কাসেম মোল্লা জানান, রাতে দুই ভাই আলফাডাঙ্গা বাজারে ব্যবসায়িক কাজ শেষে বাড়ি ফিরছিলেন। এসময় পূর্বশত্রুতার জেরে ১ নম্বর ওয়ার্ডের সাবেক ইউনিয়ন পরিষদ সদস্য মো. কওসার শেখ তার লোকজন নিয়ে তাদের ওপর হামলা চালায়।

তারা তাদের ধারালো অস্ত্র দিয়ে এলোপাতাড়ি কুপাতে থাকলে দুই সহোদরের আত্মচিৎকারে স্থানীয় বাসিন্দারা এগিয়ে আসলে হামলাকারীরা পালিয়ে যায়। এসময় স্থানীয়রা আহতদের উদ্ধার করে প্রথমে আলফাডাঙ্গা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়, পরে সেখান থেকে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসাপাতালে পাঠানো হলেও চিকিৎসাধীন অবস্থায় তারা শুক্রবার ভোরে মারা যান।

বোয়ালমারী থানার ওসি মিজানুর রহমান হত্যাকান্ডের বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, আলফাডাঙ্গা বাজারের শ্মশান ঘাট এলাকায় বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে তাদের ওপর হামলা হয়। আহতদের উদ্ধার করে প্রথমে আলফাডাঙ্গা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে, পরে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসাপাতালে পাঠানো হলেও চিকিৎসাধীন অবস্থায় শুক্রবার ভোরে তারা মারা যান। ওসি মিজানুর আরো বলেন, হত্যাকাণ্ডের পর এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। পুলিশ খুনি ধরতে অভিযান চলমান রয়েছেে আর মামলার প্রস্তুতি চলছে।

হত্যাকাণ্ডের শিকার দুই সহোদরের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য ওই ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসাপাতালের মর্গে রাখা হয়েছে বলে তিনি জানিয়েছেন।

rtnn

Check Also

‘হাজী’ পরিবারের বিস্ময়কর উত্থান

পিতার দুই সংসারের দ্বিতীয় পক্ষের সন্তান তিনি। অভাব-অনটনে বেড়ে ওঠা। অর্থভাবে লেখাপড়া করতে পারেননি। কিশোর …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Share
Pin