এই সরকার আত্মস্বীকৃত দুর্নীতিবাজ: রিজভী

‘জ্যেষ্ঠ মন্ত্রীদের বক্তব্যের মধ্য দিয়েই প্রমাণ হয়ে যাচ্ছে, এই সরকার আত্মস্বীকৃত দুর্নীতিবাজ’ বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী।

সোমবার দুপুরে রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে নিয়মিত সংবাদ সম্মেলনে এসব মন্তব্য করেন তিনি।এ সময় তিনি শিক্ষামন্ত্রী ও অর্থমন্ত্রীর বক্তব্য তুলে ধরে সরকারের সমালোচনা করেন।

এ সময় দলের চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আব্দুস সালাম, যুগ্ম মহাসচিব খায়রুল কবির খোকন, প্রচার সম্পাদক শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানি, স্বেচ্ছাসেবক বিষয়ক সম্পাদক মীর সরাফত আলী সপু প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

এ সময় অর্থমন্ত্রীর দেওয়া ‘সরকারই চেয়েছে চালের দাম কিছুটা বাড়ুক’ বক্তব্যের প্রসঙ্গ টেনে রিজভী বলেন, প্রতি কেজি চালের দাম ৫০ টাকার বেশি হওয়াটা মানুষের জন্য বড় ধরনের সমস্যা হয়ে দাঁড়িয়েছে। এটা অসহনীয় হয়ে গেছে। চালের দামে স্থিতিশীলতার বিষয়ে কোনো ঠিক ঠিকানা নেই। বিনা ভোটের সরকারের অর্থমন্ত্রী অনেক সময় সত্য কথা প্রকাশ করে দেন।

বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিববলেন, ‘দেশে বিদ্যমান নৈরাজ্যকর অমানিশার মধ্যে এ বক্তব্য দেশের জন্য আরো ভয়াবহ উদ্বেগ, ভয় ও বিপদের কারণ হতে পারে’

তিনি আরো বলেন, ‘শিক্ষামন্ত্রীর বক্তব্যে প্রমাণিত হলো, বর্তমান সরকার আত্মস্বীকৃত চোর ও দুর্নীতিবাজ। দেশে যে জঙ্গলের রাজত্ব চলছে, বক্তব্যে সেটিরই বহিঃপ্রকাশ ঘটেছে।’

রুহুল কবির রিজভী বলেন,‘শিক্ষামন্ত্রীর কথায় মনে হচ্ছে, তিনিই এসব কেলেঙ্কারির উৎসাহদাতা। যে উদ্দেশ্য নিয়ে ১৪ ডিসেম্বর দেশের বরেণ্য বুদ্ধিজীবীদের হত্যা করেছিল হানাদার বাহিনী, সেই একই উদ্দেশ্য নিয়ে জাতিকে মেধাহীন করতে শিক্ষামন্ত্রী প্রশ্নপত্র ফাঁসসহ দেশের শিক্ষাব্যবস্থাকে ধ্বংসের জন্য অবিরাম গতিতে কাজ করে যাচ্ছেন।’

প্রসঙ্গত, রবিবার রাজধানীতে শিক্ষা অধিদপ্তরের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের উদ্দেশ করে শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ বলেন, ‘সব জায়গায় যে বলেছি অপচয়-দুর্নীতি আমরা কঠোর অবস্থান নেব এবং দুর্নীতির ক্ষেত্রে আমাদের জিরো টলারেন্স। এটা আমাদের বলতে হবে… কিন্তু আমি ইডির (ইঞ্জিনিয়ারিং ডিপার্টমেন্ট) সভায় বলছি, আপনারা দয়া করে ভালো কাজ করবেন। আপনাদের প্রতি আমার অনুরোধ, আপনারা ঘুষ খাবেন, তবে সহনশীল হইয়্যা খাবেন। অসহনীয় হয়ে বলা যায় আপনারা ঘুষ খাইয়েন না, এটা অবাস্তবিক কথা হবে।’

নুরুল ইসলাম নাহিদ আরো বলেন, ‘নানা জায়গায় এ রকম হইছে, সব জায়গাতেই এ রকম হইছে। খালি যে অফিসার চোর, তা না, মন্ত্রীরাও চোর, আমিও চোর। … এই জগতে এ রকমই চলে আসতেছে। সবাইকে আমাদের পরিবর্তন করতে হবে।’

মন্ত্রী আরো বলেন. আপনাদের অনুরোধ করেছি, আপনারা ঘুষ খান; কিন্তু সহনীয় হয়ে খান। কেননা আমার সাহসই নেই বলার যে, ঘুষ খাবেন না। তা অর্থহীন হবে।

এর আগে সিলেটে এক অনুষ্ঠানে ফারমার্স ব্যাংক নিয়ে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত বলেন, ‘যারা এই ব্যাংকটি প্রতিষ্ঠিত করেছিলেন, সেই উদ্যোক্তা পরিচালকরা লুটপাট করে ব্যাংকটি শেষ করে দিয়েছে।’

অর্থমন্ত্রী বলেন, কৃষকদের সুবিধার্থে সরকারই চেয়েছিল চালের দাম বাড়ুক। তবে তা যে হারে বেড়েছে, এটা অসহনীয়। তবে চালের দাম বাড়ার কারণে কত শতাংশ দারিদ্র্যের হার বেড়েছে সেটা এখনই নির্ধারণ করা সম্ভাব নয় বলে তিনি মনে করেন। কিন্তু এটা সঠিক চালের দাম বাড়ার কারণে সাধারণ মানুষের অনেক অসুবিধা হয়েছে।

উল্লেখ্য, গত শনিবার গবেষণা প্রতিষ্ঠান সানেম একপ প্রতিবেদনে উল্লেখ করেছে, সম্প্রতিক সময়ে চালের দাম বৃদ্ধি পাওয়ায় দেশের ৫ লাখ ২০ হাজার মানুষ নতুন করে দরিদ্র্য হয়ে পড়েছে।

rtnn

Check Also

‘হাজী’ পরিবারের বিস্ময়কর উত্থান

পিতার দুই সংসারের দ্বিতীয় পক্ষের সন্তান তিনি। অভাব-অনটনে বেড়ে ওঠা। অর্থভাবে লেখাপড়া করতে পারেননি। কিশোর …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Share
Pin