‘তত্ত্বাবধায়কের দাবিতে লাখ লাখ মানুষ রাজপথে নামবে’

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড.আব্দুল মঈন খান বলেছেন, নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে জাতীয় নির্বাচনের দাবিতে প্রয়োজনে লাখ লাখ মানুষ ঢাকার রাজপথে নেমে আসবে।

তিনি বলেন, আমরা বিএনপি চেয়াপরপারসন বেগম খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে এদেশে আবার বহুদলীয় গণতন্ত্র পুনঃপ্রতিষ্ঠা করব। যেমন করেছিলেন দলের প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমান।

শুক্রবার ‘মুক্তিযুদ্ধ ও শহীদ জিয়াউর রহমান’ শীর্ষক এক আলোচনা সভায় তিনি এ মন্তব্য করেন। জাতীয়তাবাদী নাগরিক দল জাতীয় প্রেসক্লাবে এর আয়োজন করে।

আয়োজক সংগঠনের সভাপতি শাহজাদা সৈয়দ ওমর ফারুক পীর সাহেবের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় আরও বক্তব্য দেন-বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আব্দুস সালাম, সাবেক এমপি আব্দুল গফুর ভূইয়া, আতাউর রহমান খান আঙ্গুর, জাসাসের সহ-সভাপতি শাহরিয়ার ইসলাম শায়লা, গাজীপুর জেলা বিএনপির যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ভিপি আ ন ম খলিলুর রহমান প্রমুখ।

আমরা রাজপথে আছি রাজপথে থাকব উল্লেখ করে মঈন বলেন, পৃথিবীর কোথাও কেউ অন্যায় ক্ষমতা স্বেচ্ছায় ছেড়ে দেয় না। আন্দোলনের মাধ্যমে প্রয়োজনে এই সরকারকে বাধ্য করা হবে। আমরা শান্তিপূর্ণ নির্বাচন প্রক্রিয়ার মাধ্যমে ক্ষমতার পালাবদল চাই। এই সত্যকে আজকে আমাদের প্রতিষ্ঠিত করতে হবে। প্রয়োজনে লাখ লাখ মানুষ ঢাকার রাজপথে নেমে আসতে হবে।

বিএনপির এই নীতিনির্ধারক বলেন, সকল রাজনৈতিক দল যাতে সমান সুযোগ সুবিধা পায় এমন নির্বাচন আমরা চাই। আওয়ামী লীগের পেছনে যেন প্রশাসন, জেলা প্রশাসন, কেন্দ্রীয় প্রশাসন সাপোর্ট না দেয় এমন নির্বাচন আমরা চাই। আসুন আমরা সমানে সমানে রাজনৈতিক খেলা বাংলাদেশে খেলব। কারও সাহায্য সহযোগিতা নিয়ে নয়। আমাদের শক্তি হচ্ছে জনগণের শক্তি।

তিনি বলেন, ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ সরকার যদি নিজেদের মঙ্গল চায় তাহলে তাদের জন্য একটি মাত্র পথ খোলা আছে। সেটি হলো বিরোধী রাজনৈতিক দলের সাথে আলোচনা করে সুষ্ঠু নির্বাচনের পরিবেশ তৈরি করা।

ড. মঈন বলেন, আওয়ামী লীগ যে মিথ্যাচারের ইতিহাস লিখছে তা টিকবে না। মানুষ জানে কোনটি সত্য। সত্য কখনো আড়াল করা যায় না। আগামী নির্বাচন করতে হলে বিএনপির সাথে সমঝোতায় আসতেই হবে। যে সংকট তৈরি হয়েছে তা সমাধান আওয়ামী লীগকেই করতে হবে। একটি নিরপেক্ষ নির্বাচন ছাড়া এই সংকট সমাধান হবে না।

rtnn

Check Also

fakhrulll

সরকারের পায়ের নিচের মাটি সরে গেছে : ফখরুল

‘সরকারের পায়ের নিচের মাটি সরে গেছে বলেই তারা দলীয় সন্ত্রাস ও দুষ্কৃতকারীদের ওপর ভর করেছে’ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Share
Pin