জাতীয় পার্টির মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফা মেয়র পদে বিজয়ী

রংপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে জাতীয় পার্টি মনোনীত লাঙ্গল প্রতিকের প্রার্থী মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফা বেসরকারি ফলাফলে বিপুল ভোটের ব্যবধানে মেয়র পদে বিজয়ী হয়েছেন।

সর্বশেষ রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয় সূত্রে রাত ১২টার দিকে এ সিটি করপোরশনের ১৯৩টি কেন্দ্রের ফল পাওয়া গেছে। বেসরকারিভাবে প্রাপ্ত ফলাফলে জাতীয় পার্টি মনোনীত প্রার্থী মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফা পেয়েছেন ১৬০৪৮৯ ভোট, আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী সরফুদ্দিন আহমেদ ঝন্টু পেয়েছেন ৬২৪০০ ভোট এবং বিএনপির মনোনীত প্রার্থী বাবলা পেয়েছেন ৩৫১৩৬ ভোট।

রংপুর সিটি করপোশনে এবারই প্রথম দলীয় প্রতীকে ভোট গ্রহণ হয়। এ সিটি করপোরেশনে মোট ভোটার তিন লাখ ৯৩ হাজার ৯৯৪ জন। যার মধ্যে পুরুষ হচ্ছে এক লাখ ৯৬ হাজার ৩৫৬ ও নারী ভোটার এক লাখ ৯৭ হাজার ৬৩৮ জন। ১৯৩ কেন্দ্রে ২ লাখ ৯২ হাজার ৭২৩ জন ভোটার নিজেদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করেছেন। মোট ৭৪ দশমিক ৩০ শতাংশ ভোট পড়েছে বলে রিটার্নিং কর্মকর্তা জানিয়েছেন।

এর আগে বহুল প্রত্যাশিত রংপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে পাল্টাপাল্টি অভিযোগের পর নানারকম শঙ্কা আর ভয়ের মধ্যে দিয়ে শেষ হয়েছে ভোট গ্রহণ।

বৃহস্পতিবার সকাল ৮টা থেকে শুরু হয়ে ৪টা পর্যন্ত বিরতিহীনভাবে চলে ভোট গ্রহণ। দেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম ২০৩ বর্গকিলোমিটার এলাকা নিয়ে গঠিত রংপুর সিটি করপোরেশনে ওয়ার্ড রয়েছে ৩৩টি।

রংপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনের শুরু থেকে দিনভর মেয়র প্রার্থী ও তাদের দলের পক্ষ থেকে মিশ্র প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করা হয়েছে।

কারচুপির অভিযোগে রাতে দলীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন করে ফলাফল প্রত্যাখ্যান করেছেন বিএনপির প্রার্থী কাওছার জামান বাবলা। তিনি বলেন, ‘টেস্ট কেস হিসেবে বিএনপি এই নির্বাচনে অংশগ্রহণ করেছে। কিন্তু প্রমাণিত হয়েছে এই নির্বাচন কমিশনের অধীনে সুষ্ঠু নির্বাচন সম্ভব নয়।’

এর মধ্যে ঢাকায় সংবাদ সম্মেলন করে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী অভিযোগ করেন, ‘তাদের পোলিং এজেন্টদের কেন্দ্রে যেতে দেয়া হয়নি, অনেককে কেন্দ্র থেকে ক্ষমতাসীনরা বের করে দিয়েছেন।’

এই অভিযোগের পাল্টা জবাব দিয়েছেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মাহবুবউল আলম হানিফ। তিনি বলেন, ‘ভোটে জিততে পারবে না জেনেই বিএনপি এমন অভিযোগ করছেন।’

তবে সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ ভোট অনুষ্ঠিত হয়েছে জানিয়ে নির্বাচন কমিশনার রফিকুল ইসলাম বলেন, ‘রংপুরে উৎসবমুখর পরিবেশে ভোট হয়েছে। আমরা মডেল নির্বাচন চেয়েছিলাম, মডেল নির্বাচন হয়েছে।’

প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কেএম নূরুল হুদা বিএনপির অভিযোগ নাকচ করে সাংবাদিকদের বলেন, ‘রসিকে শান্তিপূর্ণ ভোট হয়েছে। ভোটাররা নির্ভয়ে তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে পেরেছেন। কোথাও কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি।’

জানা গেছে, সাধারণ কেন্দ্রে ২২ জন এবং ঝুঁকিপূর্ণ কেন্দ্রে ২৪ জন করে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্য মোতায়েন রয়েছে। নির্বাচনে ২৫ নম্বর ওয়ার্ডের ১৪১ কেন্দ্রে (বেগম রোকেয়া মাহবিদ্যালয়) ইভিএমে ভোট গ্রহণ হয়েছে।

এ ছাড়া ১৪১ নম্বর কেন্দ্রসহ ৩টি কেন্দ্রে সিসি ক্যামেরা স্থাপন করা হয়েছে। বাকি দুটি হলো লায়ন্স স্কুল অ্যান্ড কলেজ (ওয়ার্ড নং-২৪) ও সরকারি উচ্চ বালিকা বিদ্যালয় (ওয়ার্ড নং-২০)।

সাধারণ কাউন্সিলর পদে ২১২ ও সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর পদে ৬৫ জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

প্রসঙ্গত, মেয়র পদে প্রার্থী ছিলেন সাতজন। আওয়ামী লীগের নৌকা প্রতীকে সরফুদ্দিন আহম্মেদ ঝন্টু, জাতীয় পার্টির লাঙ্গল প্রতীকে মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফা, বিএনপির ধানের শীষ প্রতীকে কাওসার জামান বাবলা, জাপার বিদ্রোহী প্রার্থী হাতি প্রতীকে আসিফ শাহরিয়ার, ইসলামী আন্দোলনের হাতপাখা মার্কায় গোলাম মোস্তফা বাবু, বাসদের আব্দুল কুদ্দুছ মই মার্কা এবং এনপিপির সেলিম আক্তার আম মার্কায় প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছেন।

RTNN

Check Also

bnp-flag

গতিশীল হচ্ছে বিএনপি, তারেক রহমান চাইলেই সব সিদ্ধান্ত নিজে নিতে পারছেন না

বিএনপিতে একটা সময় ছিল, যখন স্থায়ী কমিটির বৈঠক কবে অনুষ্ঠিত হয়েছে, দলের নেতারা পর্যন্ত তা …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Share
Pin