ershad

এরশাদ বললেন, রংপুরে লাঙল বিপুল ভোটে জিতবে

সাবেক রাষ্ট্রপতি ও জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান এইচ এম এরশাদ বলেছেন, রংপুরে সিটি করপোরেশন নির্বাচন হবে শান্তিপূর্ণ ও উৎসবমুখর পরিবেশে। কোনো অনিয়ম গণ্ডগোল হবে না। এখন পর্যন্ত যে আভাস পাচ্ছেন তাতে তিনি নিশ্চিত রংপুরের দূর্গ তিনি ফিরে পাচ্ছেন। জাতীয় পার্টির প্রার্থী মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফা বিপুল ভোটে জয়লাভ করবেন।

তার প্রতিদ্বন্দ্বি আওয়ামী লীগ না বিএনপি হবে সেটি তিনি জানেন না। মানুষের মধ্যে লাঙল প্রতীকের প্রতি স্বতস্ফূর্ত সমর্থন দেখা যাচ্ছে। এরশাদ সোমবার রংপুর গেছেন। সেখানকার ভোটার হিসেবে তিনি ভোট দেবেন। গণমাধ্যমের সঙ্গে কথা বলছেন তবে কোনো নির্বাচনী প্রচারণায় যাননি। জাতীয় পার্টির নেতাকর্মীরা বলছেন, এরশাদের উপস্থিতি তাদের শক্তিকে দ্বিগুন করেছে।

কর্মীদের মনোবল বাড়িয়ে দিয়েছে। মানুষের মধ্যেও পরোক্ষ প্রভাব পরেছে। জাতীয় পার্টির মহাসচিব এবিএম রুহুল আমিন হাওলাদার বলেছেন, তাদের প্রার্থী একলাখ ভোটের ব্যবধানে জয়লাভ করবেন। জাতীয় পার্টির বিশ হাজার কর্মী কেন্দ্র পাহারা দেবে। কেন্দ্রিয় নেতাকর্মীরা সিটি করপোরেশন এলাকার বাইরে বিভিন্ন হোটেল রিসোর্টে অবস্থান করছেন।

তারসঙ্গে জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য জিয়াউদ্দিন আহমেদ বাবলু, সৈয়দ আবু হোসেন বাবলা, এমপি ইয়াহিয়া চৌধুরীসহ অসংখ্য নেতা রয়েছেন। কর্মীদেরকে তারা এতোদিন প্রচারণার কৌশল শৃঙ্ক্ষলার সঙ্গে নির্ধারণ করে দিয়েছেন। রুহুল আমিন হাওলাদার আরো বলেছেন, তাদের প্রার্থী তুমুল জনপ্রিয় একজন রাজনৈতিক কর্মী যার সবার কাছে গ্রহণযোগ্যতা রয়েছে।

সাধারণ মানুষ তাকে ভালোবাসে। বিগত নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে তিনি ৮৭ হাজার ভোট পেয়েছিলেন। এবার জাতীয় পার্টির শক্তি, এরশাদের ইমেজ ও প্রার্থীর জনপ্রিয়তা মিলে লাঙলের পক্ষে ব্যালট বিপ্লব ঘটে যাবে। জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য জিয়াউদ্দিন আহমেদ বাবলু বলেছেন, রংপুরের বিজয়ের মধ্য দিয়ে প্রমাণ হবে জাতীয় পার্টির রাজনীতির জন্য শুভদিন আসছে। রংপুরের দূর্গ পুণরুদ্ধার হচ্ছে।

নির্বাচনে বিএনপির ভূমিকা নিয়ে কথা হয়েছে: ফখরুল

দেশের রাজনৈতিক পরিবেশ, আগামী নির্বাচনে বিএনপি ও সরকারের ভূমিকা এবং একটি সুষ্ঠু, অবাধ ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের বিষয়ে তুরস্কের প্রধানমন্ত্রী বিনালি ইলদিরিমের সঙ্গে বৈঠক করেছেন বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া।

আজ মঙ্গলবার সন্ধ্যায় এক বৈঠকের পর দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর সাংবাদিকদের সঙ্গে বৈঠকের বিষয়ে কথা বলেন। তুরস্কের প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে বিএনপি চেয়ারপারসনের প্রায় পৌনে এক ঘণ্টা কথা হয়েছে বলে জানান ফখরুল ইসলাম।

মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, বাংলাদেশের রাজনীতি কেমন চলছে, আসন্ন নির্বাচনে কী অবস্থা দাঁড়াবে এবং নির্বাচনে বিএনপির ভূমিকা কী থাকবে—এসবের পাশাপাশি বর্তমানে সরকারের ভূমিকা কেমন আছে এবং দেশ কেমন চলছে, তা নিয়ে আলোচনা হয়েছে।

এ ছাড়া একটি সুষ্ঠু, অবাধ ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের জন্য সরকার কী ভূমিকা পালন করছে, তা নিয়েও কথা হয়েছে। এসব বিষয় ছাড়া তুরস্কের সঙ্গে পারস্পরিক বিষয়গুলো নিয়ে আলোচনা হয়েছে।

এ সময় সাংবাদিকের প্রশ্নের জবাবে ফখরুল ইসলাম বলেন, রোহিঙ্গা ইস্যুতে তুরস্ক মনে করে, রোহিঙ্গাদের সসম্মানে তাদের নিজ দেশে ফিরিয়ে নিয়ে যেতে হবে। এ বিষয়টির পুরোপুরিভাবে একটি স্থায়ী সমাধান করা প্রয়োজন বলে মনে করে তুরস্ক। এ ছাড়া বিশ্বের অন্যান্য দেশ ও আন্তর্জাতিক সংস্থার সঙ্গে তুরস্ক যোগাযোগ রক্ষা করছে।

মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, তুরস্কের প্রধানমন্ত্রী বাংলাদেশে এসেছেন রোহিঙ্গা ইস্যুতে যে সমস্যার উদ্ভব হয়েছে, সে সমস্যাগুলোর সরেজমিনে দেখার জন্য। রোহিঙ্গাদের কীভাবে তাদের নিজ দেশে সম্মানের সঙ্গে, নিরাপত্তার সঙ্গে ফেরত পাঠানো যায়—সে জন্য বাংলাদেশ সরকারের সঙ্গে কথা বলতে তাঁরা এখানে এসেছেন।

তিনি বলেন, ‘প্রথম থেকেই তুরস্কের জনগণ রোহিঙ্গাদের ব্যাপারে অত্যন্ত সহানুভূতিশীল। রোহিঙ্গারা যেন তাদের দেশে ফিরে যেতে পারে, সে জন্য তুরস্ক প্রথম থেকে কাজ করছে। এ কারণে তুরস্কের ফার্স্ট লেডি বাংলাদেশে এসেছিলেন এবং তারপর বিষয়টি গোটা বিশ্বে নাড়া দিয়েছে।’

সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্র জেরুজালেমকে ইসরায়েলের রাজধানী ঘোষণা করেছে। এর পাল্টা প্রতিক্রিয়ায় ইসলামি সহযোগিতা সংস্থা (ওআইসি) জেরুজালেমকে ফিলিস্তিনের রাজধানী ঘোষণা করে। এ বিষয়ে তুরস্কের মতামত কী, সাংবাদিকদের এ প্রশ্নের জবাবে ফখরুল ইসলাম বলেন, ফিলিস্তিনের রাজধানী জেরুজালেম—এই প্রশ্নে তুরস্ক সম্পূর্ণভাবে ফিলিস্তিনের পক্ষে রয়েছে। সে অনুসারে তুরস্ক কাজ করছে।

বৈঠকে বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার সঙ্গে ছিলেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মঈন খান, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা সাবিহউদ্দিন আহমেদ, ইনামুল হক চৌধুরী প্রমুখ।

prothom-alo

Check Also

khaleda_tareq-45645

পরিবারেই বিএনপির নেতৃত্ব চান খালেদা জিয়া

রাজনীতিতে আগ্রহ হারিয়ে ফেলেছেন বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া। আর তাই বিএনপি চেয়ারপারসন পদে তিনি …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Share
Pin