rongpur-jamat

বিএনপিকে হিসাবে নিয়ে আ.লীগ-জাপার সমীকরণ

রংপুর সিটি করপোরেশন (রসিক) নির্বাচনের আর মাত্র পাঁচ দিন বাকি। প্রার্থীরা প্রচার চালাতে পারবেন আর দুই দিন। ২১ ডিসেম্বরের ভোটগ্রহণে বিএনপিকে মাথায় রেখে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ ও জাতীয় পার্টি জটিল সমীকরণ নিয়ে মাঠে নেমেছে। চুলচেরা বিশ্লেষণ করছে দল দুটি। কোন শ্রেণির ভোট অথবা কোন ওয়ার্ডে বেশি ভোট পাওয়া যাবে, তা নিয়ে চলছে হিসাব-নিকাশ।

জানা গেছে, বিএনপির প্রার্থী কাউছার জামান বাবলা জামায়াতে ইসলামী ও তরুণ ভোটারদের দিকে বেশি মনোযোগ দিচ্ছেন। জামাতের ৬০ হাজার, তরুণ প্রজন্মের ৩৬ হাজার এবং গত নির্বাচনে পাওয়া বিএনপির ২১ হাজার ভোটার ধরে রাখতে পারলে জয় তার হাতের মুঠোয় আসবে বলে মনে করছেন বাবলা।

বিভিন্ন ওয়ার্ড ঘুরে দেখা গেছে, কদিন আগেও নির্বাচনী মাঠে বিএনপির প্রার্থী অনেকটা পিছিয়ে ছিলেন। সম্প্রতি দলটির প্রচারে এগিয়ে গেছেন ধানে শীষের বাবলা। বিএনপির নেতাকর্মীরা ছোট ছোট দলে বিভক্ত হয়ে বিভিন্ন পাড়া-মহল্লায় ধানের শীষের পক্ষে প্রচার চালাচ্ছেন। তাদের প্রচারের কৌশল ভোটারদের দৃষ্টি আকর্ষণ করছে।

এদিকে জাতীয় পার্টি তাদের মূল প্রতিদ্বন্দ্বী ভাবছে আওয়ামী লীগের প্রার্থী ঝন্টুকে। আর আওয়ামী লীগও জাপা প্রার্থীকে মাথায় রেখে নির্বাচনী মাঠ চষে বেড়াচ্ছে। তিন প্রার্থীই নতুন প্রজন্মের ৩৬ হাজার, জামায়াতের ৬০ হাজার, সংখ্যালঘু ৬৫ হাজার ও অবাঙালি ২৫ হাজার ভোটার তাদের পক্ষে নেওয়ার চেষ্টা করছেন।

তরুণদের ভোট টানতে নৌকা ও লাঙলের নির্বাচন স্টিয়ারিং কমিটি নানা উদ্যোগ নিয়েছে। তরুণ এ প্রজন্ম ডিজিটালনির্ভর হওয়ায় ডিজিটাল মাধ্যমকেই সঠিক পদ্ধতি মনে করছেন তারা। দুপক্ষই ফেসবুক, টুইটার আর ইউটিউবে প্রচার চালাচ্ছে। ঝন্টুর উন্নয়ন কর্মকা- নিয়ে তৈরি ডকুমেন্টারি ‘উন্নয়নের মহাসড়ক’ তার সমর্থকরা ব্যাপকভাবে ফেসবুকে শেয়ার করছেন। একইভাবে তরুণ ভোটারদের কাছে টানতে মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফার সমর্থকরাও ফেসবুকে ব্যাপক প্রচার চালাচ্ছেন। সেখানে নানা উন্নয়ন পরিকল্পনার চিত্রসহ প্রতিশ্রুতিসংবলিত পেজ খোলা হয়েছে।

এদিকে গতকাল বিকালে জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য ও প্রতিমন্ত্রী মসিউর রহমান রাঙ্গার বিরুদ্ধে বিক্ষোভ মিছিল করেছেন ছাত্রলীগ ও যুবলীগের নেতাকর্মীরা। তাদের অভিযোগ, রাঙ্গা লাঙলের পক্ষে নির্বাচনী প্রচারে অংশ নিয়ে আচরণবিধি ভঙ্গ করেছেন।

তবে একই সময় রংপুর ডায়াবেটিক সমিতি ভবনের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন অনুষ্ঠানে বক্তব্যে রাঙ্গা তার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, আমি রংপুরের কৃতী সন্তান। রংপুরে আসাটা কি অন্যায়? আমি কেন রংপুরে আসব না?

উৎসঃ   আামদের সময়

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.