জরিপ : বিএনপি ৮৬% , আওয়ামী লীগ ১৪%

আগামী একাদশ সংসদ নির্বাচন সুষ্ঠুভাবে অনুষ্ঠিত হওয়া না হওয়া নিয়ে নানা দোলাচলের মাঝেই কে কত ভোট পাবে, কে আগের চেয়ে কত শতাংশ বেশি ভোট পাবে এসব নিয়ে রাজনৈতিক অঙ্গনে চলছে নানা হিসাব নিকাশ। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তিবিষয়ক উপদেষ্টা ও তার ছেলে সজীব ওয়াজেদ জয় সম্প্রতি দাবি করেছেন আগামী নির্বাচনে ২০০৮ সালের নির্বাচনের চেয়েও বেশি ভোট পাবে আওয়ামী লীগ।

সোমবার আওয়ামী লীগের ধানমণ্ডি কার্যালয়ে দলের কেন্দ্রীয় নেতাদের সঙ্গে বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের জয় তার ব্যক্তিগত জরিপের কথা উল্লেখ করে বলেছেন, আমার জরিপের রেজাল্ট এত ভালো আসছে যে আজকে যদি নির্বাচন হয় আওয়ামী লীগ ২০০৮ সালের চেয়েও বেশি ভোট পাবে। ২০০৮ সালের চেয়েও বিপুল ল্যান্ডস্লাইড হবে আওয়ামী লীগের পক্ষে।

এটা একদম সায়েন্টিফিকলি জরিপ করে আমরা বের করেছি। জরিপটা আমি প্রত্যেক বছরই করি। সেটা আমার একটা প্রফেশনাল কোম্পানি আছে, তাদেরকে দিয়েই করাই। জরিপটা আমি নিজেই ডিজাইন করি, মনিটর করি।

এর ওপর আমি স্টাডি করেছি, ক্লাসও করেছি। আমার দৃঢ় বিশ্বাস, আমাদের জরিপ হচ্ছে ওয়ান অব দ্য মোস্ট একিউরেট সারা দেশে। আওয়ামী লীগ আগামী নির্বাচনে ক্ষমতায় আসবেই। আওয়ামী লীগকে ভোটে হারানোর মতো দল আর বাংলাদেশে নাই।

জয়ের এই ব্যক্তিগত জরিপ নিয়ে রাজনৈতিক অঙ্গনে নানা পর্যালোচনা ও তর্ক-বিতর্ক হচ্ছে। কেউ হাস্যরস করছেন। কেউ বলছেন দলের নেতাকর্মীদের সাহস জোগাতে ও তাদেরকে ধরে রাখতেই জয়ের এমন কথিত জরিপ তত্ত্ব। আবার ক্ষমতাসীনদের সমর্থকরা এই জরিপ বিশ্বাসও করছেন।

এমন বিতর্কের মাঝেই অ্যানালাইসিস বিডির পক্ষ থেকে বুধবার একটি জরিপ পরিচালনা করা হয়। জরিপে ৮৬% ভোট পড়েছে বিএনপির পক্ষে ও ১৪% ভোট পড়েছে আওয়ামী লীগের পক্ষে। জরিপে দুটিমাত্র অপসন থাকায় অন্য দলগুলোর পক্ষে মতামত নেয়া সম্ভব হয়নি।

অ্যানালাইসিস বিডির অফিসিয়াল ফেসবুক পেজে ২৪ ঘন্টা ধরে চালানো এই জরিপের একমাত্র প্রশ্ন ছিলো- ‘আগামী নির্বাচনে আপনি কোন দলকে সমর্থন দিবেন?’। ফেসবুকের নিয়ম অনুযায়ী সেখানে দুটিমাত্র অপসন দেয়ার সুযোগ ছিলো। একটি ছিলো আওয়ামী লীগ অপরটি ছিলো বিএনপি। জরিপে অংশগ্রহন করেছেন মোট ৯৬২ জন। এরমধ্যে ৮২৩ জন বিএনপির পক্ষে মত দিয়েছেন। বাকি ১৩৯ জন মত দিয়েছেন আওয়ামী লীগের পক্ষে।

এদিকে অ্যানালাইসিস বিডির জরিপে জয়ের জরিপের সম্পূর্ণ বিপরীত ফলাফল আসায় জয়ের জরিপের বিশ্বাসযোগ্যতা নিয়ে উঠেছে প্রশ্ন। একটি অনলাইন পত্রিকার পেজের ফলোয়াররা সবসময়ই মিশ্র মতের হয়ে থাকে।

অ্যানালাইসিস বিডির ফেসবুক পেজেও মিশ্র মতের অর্থাৎ সকল দল ও মতের ফলোয়ারদের উপস্থিতি রয়েছে। তাই এখানে একটি দলের পক্ষের ফলোয়াররাই বেশি ভোট দিয়েছেন এমন প্রশ্ন আনাও ঠিক হবে না।

এমন অবস্থায় অনেকেই মনে করছেন বাস্তবতার সঙ্গে জয়ের এই তথ্যের কোনো মিল নেই। ২০১৪ সালের বিতর্কিত নির্বাচনের আগেও জয় এভাবেই এক জরিপের কথা উল্লেখ করে বলেছিলেন যে তার কাছে তথ্য আছে, আগামী নির্বাচনে আওয়ামী লীগ জিতবে।

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর জয়ের জরিপকে উদ্দেশ্য করে মঙ্গলবার বলেছেন, ২০১৪ সালের নির্বাচনের আগে এসে বলেছিলেন, নির্বাচনে আওয়ামী লীগ জিতবেই—তথ্য আছে। আজকে আবার সেই তথ্য এসে গেছে।

এবার বলছেন, আগামী নির্বাচনে আওয়ামী লীগ জিতবে, বেশি ভোটে জিতবে। তিনি বলেন, ‘আমাদের প্রশ্ন হচ্ছে, কোন তথ্যের ওপর ভিত্তি করে এই কথা বলেন?’ ফখরুল আরো বলেন, ‘যিনি বলছেন, তিনি বেশির ভাগ সময় বিদেশেই সময় কাটান, একেক সময় এসে একেক কথা বলেন। দেন না একটি নির্বাচন, তাহলে তো প্রমাণ হয়ে যায়। ’

অ্যানালাইসিস বিডির জরিপে আওয়ামী লীগ ও বিএনপির বাইরে অন্যান্য দলকে ভোট দেয়ার অপসন না থাকায় অনেকেই কমেন্টে অন্য দলগুলোর পক্ষে মত দিয়েছেন। কমেন্টে দেয়া মতের মধ্যে বেশি ভোট পড়েছে জামায়াতের পক্ষে। এছাড়া ভোট পড়েছে জাতীয় পার্টি ও চরমোনাইয়ের(ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ) পক্ষে। অরাজনৈতিক দল হলেও কেউ কেউ হেফাজতে ইসলামের পক্ষেও ভোট দিয়েছেন।

অ্যানালাইসিস বিডি ডেস্ক

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.