bnp-flag

সারাদেশে বিএনপির মানববন্ধন রবিবার

আন্তর্জাতিক ‘মানবাধিকার দিবস’ উপলক্ষ্যে রবিবার ঢাকাসহ সারাদেশে মানববন্ধন কর্মসূচী পালনের ঘোষণা দিয়েছে বিএনপি। বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী এ খবর নিশ্চিত করেন। এর আগে সকালে কুড়িগ্রামে প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে কর্মসূচীর ঘোষণা দেন রিজভী।

তিনি বলেন, জাতিসংঘ ১৯৫০ সালে ১০ ডিসেম্বরকে ‘মানবাধিকার দিবস’ ঘোষণা করে। সেই থেকে প্রতি বছর ১০ ডিসেম্বর ‘মানবাধিকার দিবস’ পালিত হয়ে আসছে। এই দিনে আমি বিশ্বের বিভিন্ন দেশের মৌলিক মানবিক অধিকার হারা নির্যাতিত মানুষের প্রতি সহমর্মিতা জ্ঞাপন করছি।

যারা বাক, ব্যাক্তি, চিন্তা, প্রার্থনা, মূদ্রণসহ নাগরিক স্বাধীনতার জন্য সোচ্চার হতে গিয়ে ক্ষমতাসীন স্বেচ্ছাচারী গোষ্ঠির নৃশংস নিপীড়নে আত্মদান করেছেন তাদের প্রতি জানাই গভীর শ্রদ্ধা।

রিজভী বলেন, রবিবার ঢাকায় জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে দুপুর ১২ টায় এবং সারা দেশের জেলা সদরে বিএনপির উদ্যোগে আগামীকাল মানববন্ধন পালিত হবে। তিনি কর্মসূচী পালনে নেতা-কর্মীদের প্রস্তুত থাকার আহবান জানান।

সিইসি আওয়ামী সরকারের কৃপাধন্য: রিজভী

‘গত দু-তিন আগে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের সাহেব বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী চাইলে আগাম নির্বাচনের জন্য প্রস্তুত আওয়ামী লীগ। সিইসি সমস্বরে বলেছেন, সরকার চাইলে আগাম নির্বাচনের জন্য প্রস্তুত ইসি। আমরা বারবার বলেছি, বর্তমান সিইসি আওয়ামী সরকারের কৃপাধন্য’ বলে মন্তব্য করেন বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী।

সোমবার সকালে রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে নিয়মিত প্রেস ব্রিফিংয়ে রিজভী এ মন্তব্য করেন।

এসময় রুহুল কবির রিজভী আরো বলেন, ‘আওয়ামী দুঃশাসনকে টিকিয়ে রাখতে বিরোধী দল দমনে হামলা-মিথ্যা মামলা ও জেলজুলুমের পাশাপাশি খুনের রাজত্বে মেতে উঠেছে বর্তমান ভোটারবিহীন সরকার।গতকালও চট্টগ্রামের সদরঘাট থানা যুবদলের যুগ্ম আহবায়ক হারুন চৌধুরীকে নিজ ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে গুলি করে নির্মমভাবে হত্যা করেছে ছাত্রলীগের সন্ত্রাসীরা।’

তিনি আরো বলেন, ‘ষড়যন্ত্র, চক্রান্ত আর বড় বড় বুলির মায়াজাল সৃষ্টি করে গণতন্ত্রের ঘাতক প্রতিহিংসাপরায়ণ শেখ হাসিনা ও তার সরকারের অধীনে জাতীয় নির্বাচন এ দেশের জনগণ মেনে নেবে না। কারণ, জনগণের ললাটে একটি বিষাক্ত কাঁটার নাম আওয়ামী লীগ।’

বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব বলেন, ‘পেঁয়াজের কেজি ১০ টাকা থেকে এখন ১২০ টাকা কেজি, চালের দাম ১০ টাকা থেকে ৭০ টাকা কেজি, বিদ্যুতের দাম বর্তমান সরকারের আমলে আট বার বাড়ানো হয়েছে। নানা ট্যাক্সের চাপে মানুষের জীবন বিপন্ন এবং অশান্তি আগুনে ভিতরে ভিতরে মানুষ দগ্ধ হচ্ছে।’

রিজভী আরো বলেন, ‘ভুল নীতির কারণে আওয়ামী সরকার মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের কাছ থেকে জিএসপি সুবিধা ফিরিয়ে নিতে পারছে না। বিদেশী অনুদান প্রায় বন্ধ হয়ে যাওয়ায় গ্রামীণ অবকাঠামো উন্নয়ন তছনছ হয়ে গেছে। সরাদেশের সড়ক-মহাসড়কগুলোর বেহাল দশায় সড়কে মৃত্যুর মিছিল থামছেই না। লন্ডভন্ড সড়কে মানুষের জীবনযাত্রা প্রায় থমকে গেছে।

আজকেও পত্রিকার হেডলাইন ব্যাংকগুলোর মূলধন খেয়ে ফেলা হয়েছে। সরকারি ও বেসরকারি সাত ব্যাংকের মূলধন ঘাটতি সতেরো হাজার কোটি টাকা। ক্ষমতাসীনদের লুটপাট-দুর্নীতি আর স্বেচ্ছাচারিতায় বাংলাদেশে এখন সর্বকালের সর্বোচ্চ বিষাদ ঘনঘোর নৈরাজ্য বিরাজ করছে। কারণ এর ভুক্তভোগী হচ্ছে সাধারণ জনগণ।’

রিজভী বলেন, ‘একটি স্বাধীন-সার্বভৌম নির্বাচন কমিশনের সাংবিধানিক দায়িত্ব দেশে অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন আয়োজন করা কিন্তু অবস্থাদৃষ্টে মনে হচ্ছে, চাকরি রক্ষার্থে বর্তমান সিইসি অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের বিষয়টি আমলে নেবেন না।’

বিএনপির নেতা রিজভী বলেন, ‘আগাম নির্বাচন নিয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের বক্তব্যের সঙ্গে প্রধান নির্বাচন কমিশনারের (সিইসি) সুর মেলানো প্রমাণ করে, তিনি সরকার-নির্মিত সেই পুরোনো পথ ধরেই হাঁটবেন’।

বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব এ সময় আওয়ামী সরকারের অশুভ ইচ্ছাপূরণের ‘খাঁচায় বন্দি তোতাপাখি’ না হওয়ার জন্যও সিইসির প্রতি আহ্বান জানান। এ সময় বিএনপির এই নেতা সংসদ ভেঙে দিয়ে নির্দলীয়-নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন দেওয়ারও দাবিও জানান।

এছাড়া বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে মিথ্যা ও ষড়যন্ত্রমূলক মামলায় গ্রেফতারী পরোয়ানা জারির প্রতিবাদে বিএনপির কেন্দ্র ঘোষিত বিক্ষোভ কর্মসূচি পালনকালে গতকাল শান্তিপূর্ণ মিছিলে হামলা ও মিছিল থেকে নেতাকর্মীদের গ্রেফতারের তীব্র নিন্দা জানিয়ে অবিলম্বে তাদের মুক্তি দাবি করেন রিজভী।

একইসাথে গত ১ ডিসেম্বর ধানমন্ডির ১নং রোডে অবস্থিত বিভিন্ন বাসায় সিকিউরিটি গার্ডদের নিয়ে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল মান্নানের সহধর্মীনি মরহুমা নিলুফার মান্নানের কুলখানি ও দোয়া মাহফিল শেষে তার বাসায় হামলার নিন্দা এবং অভিযুক্তদের গ্রেফতারের দাবি জানান রিজভী।

বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব আরো বলেন, ‘আমি বিএনপির পক্ষ থেকে যুবদল নেতা হারুন চৌধুরীকে হত্যাকারী সন্ত্রাসীদের অবিলম্বে গ্রেফতার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির জোর দাবি জানাচ্ছি। মরহুমের রুহের মাগফিরাত কামনা করে শোকাহত পরিবারবর্গের প্রতি জানাচ্ছি গভীর সমবেদনা।’

rtnn

Check Also

fakhrulll

সরকারের পায়ের নিচের মাটি সরে গেছে : ফখরুল

‘সরকারের পায়ের নিচের মাটি সরে গেছে বলেই তারা দলীয় সন্ত্রাস ও দুষ্কৃতকারীদের ওপর ভর করেছে’ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Share
Pin