faruk

‘অক্ষরে অক্ষরে ক্ষমতাসীন দলের লুটপাটের বিচার করা হবে’

বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা সাবেক হুইপ অ্যাডভোকেট জয়নুল আবদিন ফারুক বলেছেন, দেশে যদি সত্যিকার অর্থে নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন হয় বেগম খালেদা জিয়া আবার বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী হবেন। তখন অক্ষরে অক্ষরে ক্ষমতাসীন দলের লুটপাটের বিচার করা হবে।

আজ শনিবার সকালে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে বিএনপির গণশিক্ষাবিষয়ক সম্পাদক অধ্যক্ষ সেলিম ভূঁইয়ার মুক্তির দাবিতে এক মানববন্ধনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে প্রধানমন্ত্রীর উদ্দেশে তিনি এ কথা বলেন।   এই মানববন্ধনের আয়োজন করে দেশ বাঁচাও মানুষ বাঁচাও আন্দোলন ঢাকা মহানগর দক্ষিণ শাখা।

তিনি আরো বলেন, ২০১৪ এর ৫ জানুয়ারির মতো আরেকটি নির্বাচন করা আর সম্ভব না। জনগণ বিএনপির জনসমর্থন দেখেছে।   নির্বাচন অবশ্যই আপনাকে দিতে হবে। সেই নির্বাচনে বাংলাদেশের প্রত্যেকটি রাজনৈতিক দল অংশগ্রহণ করবে। সেই নির্বাচন নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে হবে। দেশের প্রতিটি মানুষ ভোট দিতে পারবে।

বিএনপির এই নেতা বলেন, আমি প্রধানমন্ত্রীকে একটা কথা জিজ্ঞাস করতে চাই গত সাড়ে আট বছর আপনি দেশের সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠান গুলো ধ্বংস করে দিয়েছেন, নির্বাচন কমিশন ধ্বংস করে দিয়েছেন, দুদকের মত প্রতিষ্ঠানকে নিজের পক্ষে আনার জন্য ধ্বংস করে দিচ্ছেন, শেয়ার বাজারের হাজার কোটি টাকা লুটপাট হচ্ছে এসব ঘটনা কি বিএনপি সরকারের আমলে হইয়েছিল?

আয়োজক সংগঠনের সভাপতি মো. রাসেলের সভাপতিত্বে মানববন্ধনে এছাড়া বক্তৃতা করেন বিএনপির সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট আব্দুস সালাম আজাদ, তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সহ-সম্পাদক কাদের গণি চৌধুরী, ন্যাপের মহাসচিব এম গোলাম মোস্তফা ভূইয়া এবং সংগঠনের কেন্দ্রীয় সভাপতি রকিবুল ইসলাম প্রমুখ।

বিডি-প্রতিদিন

সহায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচন চাই : মির্জা ফখরুল

বর্তমান সরকারের অধীনে কোনো নির্বাচন সুষ্ঠু হবে না মন্তব্য করে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, তাই আমরা একটি সহায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচন চাই।

শনিবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাব মিলনায়তনে বাংলাদেশ কল্যাণ পার্টির প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

মির্জা ফখরুল বলেন, আমরা এমন সরকারের অধীনে নির্বাচন চাই, যে সরকার নির্বাচনকে প্রভাবিত করবে না। জনগণ তাদের ভোটাধিকার সঠিকভাবে প্রয়োগ করতে পারবে।

মির্জা ফখরুল বলেন, গণতন্ত্রের জন্য আওয়ামী লীগও অনেক লড়াই করেছে। অথচ তারাই আবার যখনই ক্ষমতায় গেছে তখনই গণতন্ত্রকে হত্যা করেছে। ক্ষমতায় গেলেই আওয়ামী লীগের চেহারা পাল্টে যায়, ফ্যাসিস্ট হয়ে যায় তারা।

কল্যাণ পার্টির সাধারণ সম্পাদক আমিনুর রহমান নিখোঁজের ৯৭ দিন পেরিয়ে গেলেও তাকে খুঁজে পাওয়া যায়নি কেন? এমন প্রশ্ন রেখে তিনি বলেন, অন্যদের কথা বাদই দিলাম, একটা দলের সাধারণ সম্পাদক হারিয়ে গেলো, তাকে খুঁজে পাওয়া যাবে না, এটা কী করে সম্ভব?

বিডি-প্রতিদিন

Check Also

khaleda_zia

খালেদা জিয়ার জামিনের অপ্রকাশ্য যত শর্ত

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর অন্তত দু`দিন বলেছেন যে, খালেদা জিয়া এখনও গৃহবন্দি আছেন। …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Share
Pin