m_r_minu

আন্দোলন শুরুর ২১ দিনের মধ্যে সরকার পতনের ঘোষণা মিনুর

২০১৪ সালের মতো আর দীর্ঘমেয়াদী নয়, আন্দোলন শুরুর ২১ দিনের মধ্যেই সরকারের পতন ঘটানো হবে বলে ঘোষণা দিয়েছেন বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা মিজানুর রহমান মিনু। বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারির প্রতিবাদে রবিবার রাজশাহীতে বিক্ষোভ সমাবেশ থেকে মিনু এসব কথা বলেন।

এর আগে বেলা ১১টার দিকে নগরীর মালোপাড়ায় মহানগর বিএনপি কার্যালয়ের সামনে থেকে বিক্ষোভ মিছিল বের করার চেষ্টা করেন নেতাকর্মীরা। এসময় পুলিশ বাধা দেয়। পরে তারা সেখানেই সমাবেশ করেন।

মিজানুর রহমান মিনু বলেন, বিএনপিকে নির্বাচন থেকে দুরে সরিয়ে রাখতে সরকার ষড়যন্ত্র করছে। বিএনপি সব সময়ই নির্বাচনমুখী দল। কিন্তু দমন-পীড়ন চালিয়ে আওয়ামী লীগ নির্বাচন থেকে বিএনপিকে বাদ দেওয়ার চেষ্টা করছে।

তিনি হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেন, ‘আওয়ামী লীগকে ক্ষমতা থেকে নামাতে এবার আর ২০১৪ সালের মতো দীর্ঘমেয়াদী আন্দোলন হবে না। আন্দোলন শুরুর ২১ দিনের মধ্যেই সরকারের পতন ঘটানো হবে। ’

এসময় রাজশাহী মহানগর বিএনপির সভাপতি ও সিটি মেয়র মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল ও সাধারণ সম্পাদক শফিকুল হক মিলনও বক্তব্য রাখেন।

বিডি প্রতিদিন

‘সরকারের একটি পথই খোলা’

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে সাজা দিয়ে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের ফসল সরকার ঘরে তুলতে পারবে না বলে মন্তব্য করেছেন দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী। রোববার দুপুরে রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশনে মহিলা দল, ঢাকা জেলার কর্মীসভায় তিনি এ মন্তব্য করেন।

আমীর খসরু বলেন, ‘অনির্বাচিত সরকারের ভাবনা-চিন্তায় একটি পথই উন্মুক্ত রয়েছে। সেটি হলো- খালেদা জিয়াকে আইনের মাধ্যমে সাজা দিয়ে ক্ষমতার দখল রাখা। কিন্তু, আমরা খুব স্পষ্ট করতে বলতে চাই- খালেদা জিয়াকে সাজা দিয়ে আপনারা নির্বাচনী ফসল ঘরে তুলতে পারবেন না। বরং এজন্য আপনাদের চড়া মূল্যে দিয়ে বিদায় নিতে হবে।’

তিনি বলেন, ‘আমরা চাই আওয়ামী লীগ দেশে রাজনীতি করুক। কিন্তু, তার আগে জনগণের অংশগ্রহণের মাধ্যমে একটি প্রতিনিধিত্বশীল সরকার গঠনের সুযোগ দিক।’

নির্বাচন এলেই খালেদার আতঙ্কে সরকার নার্ভাস হয়ে যায় উল্লেখ করে বিএনপির এই নেতা বলেন, ‘ক্ষমতাসীনদের ভয়-ভীতির বড় কারণ খালেদা জিয়া ও তার জনপ্রিয়তা। এজন্য সরকার ক্ষমতা ধরে রাখতে দেশকে ভীতির রাজ্যে পরিণত করছে।’

রোহিঙ্গা সংকট সমাধানে মিয়ানমারের সঙ্গে করা চুক্তিকে অসম আখ্যা দিয়ে তিনি বলেন, ‘রোহিঙ্গা ইসুতে বাংলাদেশ সরকার মানুষকে ধোকা দিয়েছে, প্রতারণা করেছে। আগামী নির্বাচনকে সামনে রেখে শেখ হাসিনার এ চুক্তি ধোকাবাজি ছাড়া আর কিছুই নয়।’

‘এই চুক্তির মাধ্যমে প্রতিবেশীকে খুশি করা হয়েছে। তাই চুক্তির সময় এবং এখন পর্যন্ত রোহিঙ্গা অনুপ্রবেশ বন্ধ হয়নি। শুধু তাই নয়, সরকার কেবলমাত্র বাংলাদেশ বিক্রি করছে না বরং দেশের আত্মা বিক্রি করে দিচ্ছে’, যোগ করেন আমীর খসরু।

আয়োজক সংগঠনের আহ্বায়ব সাবিনা ইয়াসমিনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য দেন- বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট নিতাই রায় চৌধুরী, ঢাকা জেলা বিএনপির সভাপতি ডা. দেওয়ান সালাহ উদ্দিন, মহিলা দলের সভাপতি আফরোজা আব্বাস, সাধারণ সম্পাদক সুলতানা আহমেদ, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হেলেন জেরিন খান প্রমুখ।

অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন- ঢাকা জেলা মহিলা দলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক রাবেয়া বেগম ও ইয়াসমিন আক্তার।

উৎসঃ   poriborton

Check Also

হাজী সেলিমের হাতে জিম্মি লালবাগ?

গতকাল রাতে হাজী সেলিমের পুত্রের হাতে একজন নৌ-বাহিনী কর্মকর্তার লাঞ্ছিত হওয়ার ঘটনার পর মুখ খুলেছে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Share
Pin