al-aqsa

ইসরায়েলের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করা নাজায়েজঃ সৌদি আরবের গ্রান্ড মুফতি

জেরুজালেম নিয়ে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের ঘোষণার পর সৌদি রাজকীয় আদালত স্থানীয় মিডিয়ার ওপর এক ডিক্রি জারি করে বিষয়টি নিয়ে বিস্তারিত কোনো খবর প্রকাশ না করার জন্যে জানায়। এ তথ্য দিয়েছে আল-আরাবি আল-জাদিদ। এমনকি সৌদি ও বাহরাইনের দূতাবাস জর্ডানের আম্মামে স্থানীয় নাগরিকদের জেরুজালেমকে ট্রাম্পের ইসরায়েলের রাজধানী ঘোষণা নিয়ে কোনো ধরনের প্রতিবাদ কিংবা বিক্ষোভ না করার নির্দেশনা দিয়েছে।

এদিকে জেরুজালেমকে ইসরায়েলের রাজধানী ঘোষণা দিয়ে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প যে বিশ্ব জুড়ে প্রতিবাদ, বিক্ষোভ ও বিতর্কের মুখে পড়েছেন সেব্যাপারে জুম্মার খুৎবায় কোনো কথাই বলেননি মক্কা ও মদিনার ইমাম।

এর আগে সৌদি আরবের গ্রান্ড মুফতি ইসরায়েলের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করা নাজায়েজ ফতোয়া দিলে সারাবিশ্বে নিন্দার ঝড় উঠলেও ইসরায়েল একে স্বাগত জানিয়ে গ্রান্ড মুফতিকে দেশটি সফরে আমন্ত্রণ জানিয়ে বলে, তিনি গেলে সর্ব্বোচ্চ পুরস্কারে ভূষিত করা হবে।

পুর্ব জেরুজালেম ফিলিস্তিনের রাজধানী হিসেবে নির্ধারণ করে দুই রাষ্ট্র ভিত্তিক যে ফর্মুলায় মধ্যপ্রাচ্যে শান্তি প্রক্রিয়া থমকে আছে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের জেরুজালেমকে ইসরায়েলের রাজধানী ঘোষণার পর জাতিসংঘ থেকে বড় বড় রাষ্ট্রগুলো এর নিন্দা জানালেও মুসলিম বিশ্বের পবিত্র দুই মসজিদের ইমাম খুৎবায় কোনো কথাই বলেননি। অথচ খুৎবার রেওয়াজ চালুই হয়েছিল গুরুত্বপূর্ণ কোনো সমস্যার দিক নির্দেশনা দেওয়ার জন্যে।

মিডিল ইস্ট মনিটর আরবি অনলাইন মিডিয়া শিহাব.পিএস’এর উদ্ধৃতি দিয়ে এক প্রতিবেদনে বলেছে, জুম্মার খুৎবায় মক্কা ও মদিনা মসজিদের দুই ইমাম আল-আকসা মসজিদ বা জেরুজালেম প্রসঙ্গ নিয়ে কোনো কথাই বলেননি। মক্কা ও মদিনা মসজিদের পরই আল-আকসা মসজিদ ইসলামে তৃতীয় পবিত্রতম মসজিদ।

মক্কা মসজিদের ইমাম শায়েখ মাহের মুয়েকিলি যদিও তার জুম্মার খুৎবায় বলেন, সৌদি বাদশাহ ফিলিস্তিনি জনগণের আইনগত অধিকার পুনর্ব্যক্ত করেছেন।

তিনি বাদশাহ ও অন্যান্য মুসলিম দেশের নেতাদের ইসলামের জন্যে তাদের ভূমিকার প্রশংসা করেন। কিন্তু জেরুজালেম প্রসঙ্গ নিয়ে কোনো বক্তব্য দেননি।

এদিকে মদিনায় মসজিদে নববির ইমাম শায়েক আব্দুল্লাহ আল-বুয়েজান তার খুৎবায় জেরুজালেম নিয়ে কোনো বক্তব্য রাখেননি। এর পরিবর্তে তিনি সারাবছর জুড়ে ঋতু পরিবর্তনের মধ্যে আল্লাহর অলৌকিক ঘটনাগুলো নিয়ে আলোচনা করেন।

যেখানে আন্তর্জাতিক বিশ্বে ট্রাম্পের এধরনের ঘোষণায় তীব্র প্রতিবাদ চলছে তখন মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোর এধরনের নিরবতার পেছনে আসল রহস্যের কারণ হিসেবে বলা হচ্ছে মিসর ও সৌদি আরবের সমঝোতার মধ্যে দিয়েই ট্রাম্প জেরুজালেমকে ইসরায়েলের রাজধানী ঘোষণা দিয়েছেন।

এমনকি পূর্ব জেরুজালেমের বিকল্প কোনো গ্রামকে ফিলিস্তিনের রাজধানী হিসেবে গ্রহণ করার জন্যে প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাসের ওপর কঠোর চাপ প্রয়োগ করছে মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলো।

গয়েশ্বর-আমানকে ডেকে খালেদার কড়া সতর্ক বাণী

১৫ মে,২০১৭ বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায় এবং চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আমান উল্লাহ আমানকে গভীর রাতে গুলশানে ডেকে সতর্ক করে দিয়েছেন দলটির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া।

রবিবার দিবাগত রাতে তাদেরকে ডেকে গুলশানে রুদ্ধদ্বার বৈঠক করেন বেগম জিয়া। সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যাচ্ছে, গয়েশ্বর চন্দ্র রায় এবং আমান উল্লাহ আমানকে ডেকে খালেদা জিয়া জিজ্ঞাস করেছেন কেন এ ধরনের ঘটনা ঘটেছে?

এখন দলতে সংগঠিত করার সময়, দলকে গোছানোর সময়। আপনাদের সিনিয়র নেতারা থাকতে অনুষ্ঠানে কেন এ ধরনের পরিস্থিতির সৃষ্টি হলো?

যত তাড়াতাড়ি সম্ভব নেতাকর্মীদের নিয়ে বসে ওই দিনের ঘটনা মিটমাট করে নিতে অন্যথা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলেও সতর্ক করেন দেন বেগম জিয়া।

প্রসঙ্গত, রবিবার রাজধানীর ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স অডিটরিয়াম মিলনায়তনে ঢাকা জেলা বিএনপির কর্মী সমাবেশ চলাকালে গয়েশ্বর চন্দ্র রায় এবং আমান উল্লাহ আমানের সমর্থকদের মধ্যে হাতাহাতি, মারামারি এবং ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া হয়। এসময় গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বক্তব্য না দিয়ে হল ত্যাগ করেন। এ নিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা চলে আসছিল।

ঢাকা: বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আমান উল্লাহ আমান জানিয়েছেন, তার কোনো ফেসবুক অ্যাকাউন্ট নেই। শুক্রবার গণমাধ্যমে পাঠানো এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে তিনি এ কথা জানান।

আমান বলেন, আমি কোনো ফেসবুক অ্যাকাউন্ট বা ফেসবুক আইডি ব্যবহার করি না। আমার নামে যদি কেউ কোনো ফেসবুক অ্যাকাউন্ট বা ফেসবুক আইডি ব্যবহার করে আর্থিক বা অন্য কোনো ধরনের প্রতারণা করে থাকে বা ভবিষ্যতে করার চেষ্টা করে, তা হলে আমি এর দায়-দায়িত্ব বহন করব না।

এ ব্যাপারে সবাইকে সতর্ক থাকার অনুরোধ জানিয়েছেন তিনি।

স্বেচ্ছাসেবক দল নেতা জুয়েলকে গ্রেপ্তারের ঘটনায় খালেদা জিয়ার তীব্র নিন্দা

জাতীয়তাবাদী স্বেচ্ছাসেবক দলের সাধারণ সম্পাদক আবদুল কাদের ভূইয়া জুয়েলকে তার বাসা থেকে গ্রেপ্তারের ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন বিএনপি চেয়ারপারসন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়া।

শুক্রবার রাতে এক বিবৃতিতে বিএনপি চেয়ারপারসন বলেন, সারা দেশে বিএনপিসহ বিরোধী দলের নেতাকর্মীদের গ্রেপ্তারের ধারাবাহিকতায় আজ জাতীয়তাবাদী স্বেচ্ছাসেবক দলের সাধারণ সম্পাদক আবদুল কাদের ভূইয়া জুয়েলকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

খালেদা জিয়া বলেন, মূলত দুঃশাসনের বিরুদ্ধে বলিষ্ঠ প্রতিবাদী নেতৃত্বকে ধ্বংস করতেই সরকার বিএনপি এবং অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাদের গ্রেপ্তার করছে, আর তারই শিকার হলো আবদুল কাদের ভূইয়া জুয়েল।

তিনি বলেন, আমি দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করি, জাতীয়তাবাদী স্বেচ্ছাসেবক দলের সাধারণ সম্পাদক আবদুল কাদের ভূইয়া জুয়েলকে গ্রেপ্তার করা হলেও স্বেচ্ছাসেবক দলের নেতাকর্মীরা কেউ বিপর্যস্ত হবে না, বরং আরো বলীয়ান হয়ে বর্তমান ভোটারবিহীন শাসকগোষ্ঠীর চলমান নিপীড়ন-নির্যাতনের বিরুদ্ধে আরো বেশি প্রতিবাদী হয়ে উঠবে।

onlinenews24

Check Also

soudi_badhsa

বিনা ফিতে সৌদিতে তিন মাসের জন্য ইকামা নবায়ন শুরু

বিনা ফিতে তিন মাসের জন্য প্রবাসীদের ইকামা (রেসিডেন্ট পারমিট) নবায়ন শুরু করেছে সৌদি সরকার। ঘোষিত …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Share
Pin