বিকিনি পরে নেটদুনিয়ায় কটাক্ষের শিকার রাধিকা!

রাধিকা আপ্তে। বলিউডের হালের হার্টথ্রব অভিনেত্রীদের একজন। সম্প্রতি মুক্তি পেয়েছে তার বহুল আলোচিত সিনেমা ‘প্যাডম্যান’। সিনেমায় অক্ষয় কুমারের পাশাপাশি ‘প্যাডম্যান’-এ নজর কেড়েছেন এ অভিনেত্রী।

এছাড়াও হিন্দি, ইংলিশ, তামিল মিলিয়ে একগুচ্ছ ছবির কাজ নিয়ে তিনি ব্যস্ত। কয়েকটির পোস্ট প্রোডাকশনের কাজ চলছে। কয়েকটির শুটিং এখনও বাকি। সে কাজ সারার আগে কয়েকটা দিন নিজের মতো করে কাটাতে চেয়েছিলেন রাধিকা আপ্তে। বন্ধুদের সঙ্গে পৌঁছে গিয়েছেন গোয়ার সমুদ্র সৈকতে। অবসর সময়ের সে মুহূর্ত ভাগ করে নিয়েছিলেন সোশ্যাল মিডিয়ায়। তাতেই বাধল বিপত্তি। বিকিনি পরার জন্য নেটদুনিয়ার একাংশের কটাক্ষের শিকার হতে হল রাধিকাকে।

সূর্যাস্তের মুহূর্ত ছবিটিতে তুলে ধরেছিলেন রাধিকা। যাতে নীল-সাদা বিকিনিতে দেখা যাচ্ছে তাঁকে। সঙ্গে রয়েছে এক বন্ধু। হাতে ওয়াইনের গ্লাস। এ ছবিতেই চটেছেন অনেকে। কেউ নায়িকাকে ভারতীয় সভ্যতার কথা স্মরণ করিয়ে দিয়েছেন, কেউ আবার এটা মনে করিয়ে দিয়েছেন যে সোশ্যাল মিডিয়ায় অনেক কিশোর-কিশোরীরাও থাকে। তাই তাদের কথা মাথায় রেখে এ ছবি পোস্ট করা উচিত নয় নায়িকার।

এতে অবশ্য রাধিকার কোনও প্রতিক্রিয়া নেই। কারণ গোয়ার সৈকতে পাখির সঙ্গে সূর্যাস্ত দেখতে ব্যস্ত তিনি। সে ভিডিও আপলোড করেছেন নিজের ইনস্টাগ্রাম প্রোফাইলে।

প্রতিদিন রাতে বাথরুমে গিয়ে দেখতাম…

”বেশ মজাতেই কাজটা করেছি। আর একটা-দুিটি এপিসোডও তো নয়, অনেকগুলো এপিসোড রয়েছে এই শো’তে। সেট’ও অনেকগুলো। বেয়ার গ্রিলসের ‘ম্যান ভার্সেস ওয়াইল্ড’ বলে কথা। তবে আমি আমার মতো করে অ্যাডভেঞ্চারে সামিল হয়েছি।”

আগামীকাল শুক্রবার থেকে ডিসকভারির নতুন চ্যানেল জিৎ-এ শুরু হচ্ছে বলিউড অভিনেত্রী সানি লিওনের নতুন শো ‘ম্যান ভার্সেস ওয়াইল্ড উইথ সানি লিওন’। এই প্রসঙ্গে মুম্বাইয়ে ভারতীয় গণমাধ্যম এবেলা’কে একটা দীর্ঘ সাক্ষাৎকার দিয়েছেন সাবেক এই পর্নস্টার। এদিন সাংবাদিকের প্রথমে করা এক প্রশ্নের জবাবে তিনি উপরোক্ত কথাগুলো বলেন।

এরপর সানিকে প্রশ্ন করা হয়, ‘শো’ না হয় হল, নিজের জীবনে কতটা অ্যাডভেঞ্চারাস আপনি? জবাবে একটু ভেবে নায়িকা বলেন, ”আরে, আমি বিমান থেকে ঝাঁপ দিয়েছি! আর কী চাই! তবে সেবারও মজাই হয়েছিল। এ বছর জিম করবেটে শ্যুটিং করেছি একটা শো’য়ের। সেটাও কিন্তু কম রোমাঞ্চকর ছিল না! প্রতিদিন যুদ্ধ! কখনও এই পোকা, কখনও সেই পোকার সঙ্গে! ব্যাটল উইথ বাগ্স! অ্যায়সে স্মল কিড়ে। (দুই আঙুলে আকারটা বুঝিয়ে দিয়ে) যতটা ভাবছেন, ততটাও ছোট নয়! বেশ বড়! এরপরও আছে…!

আরও!
(হেসে) হ্যাঁ, আছে তো! প্রায় প্রত্যেকদিন রাতে বাথরুমে গিয়ে দেখতাম, খান দু’এক টিকটিকি ঘোরাফেরা করছে। চেঁচিয়ে ফিরে আসতাম। তারপর লোকজন সেগুলো তাড়াতে গিয়ে দেখত, পুরো বেপাত্তা (জোরে হাসি)!

জঙ্গলে সারভাইভ করাটা বড় চ্যালেঞ্জ…? এমন প্রশ্নের জবাবে সানি বলেন, তা তো বটেই! আমাদের তো ছোট থেকে সারভাইভ্যাল স্কিল শিখিয়ে দেওয়া হয় না। কাজেই অজানা জায়গায় গিয়ে সারভাইভ করা আমাদের পক্ষে মুশকিল হয়। তখন আমাদের ট্রায়াল অ্যান্ড এররের মধ্যে দিয়ে যেতে হয়। কোনটা ঠিক, কোনটা ভুল আমরা জানি না। একটা সামান্য ভুলের জন্য মৃত্যুও হতে পারে।

বিডি-প্রতিদিন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.