Tuesday , July 16 2019

রাজীব গান্ধীর মতো মোদিকে হত্যা করতে চেয়েছিল মাওবাদীরা: ভারতীয় পুলিশ

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে হত্যার ষড়যন্ত্র ফাঁস করেছে দেশটির পুলিশ বিভাগ। আদালতে দাখিল করা এক প্রতিবেদনে গতকাল বৃহস্পতিবার পুনের পুলিশ বিভাগ জানিয়েছে, সাবেক প্রধানমন্ত্রী রাজীব গান্ধীকে যেভাবে হত্যা করা হয়েছিল, সেই একই পদ্ধতিতে মোদিকে হত্যার ষড়যন্ত্র করছিল মাওবাদীরা। পুলিশের দাবি, এক সন্দেহভাজন মাওবাদী কর্মীর কাছ থেকে জব্দ করা চিঠিতে এমন ষড়যন্ত্রের আভাস পাওয়া গেছে।

এনডিটিভির খবরে বলা হয়েছে, গত বুধবার পাঁচ ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করেছিল পুলিশ। পুলিশ সন্দেহ করছে, তাঁরা নিষিদ্ধ দল সিপিআই-মাওবাদীর সঙ্গে যুক্ত। গ্রেপ্তার ব্যক্তিরা হলেন দলিত নেতা সুধীর ধাওয়ালে, আইনজীবী সুরেন্দ্র গাদলিং এবং আন্দোলন কর্মী মহেশ রাউত, সোমা সেন ও রোনা উইলসন। পুলিশের দাবি, এই ব্যক্তিরা শহুরে মাওবাদী নেটওয়ার্কের অন্যতম নেতা। গত জানুয়ারির একটি সহিংসতার ঘটনায় তাঁদের গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

পিটিআইয়ের খবরে বলা হয়েছে, দিল্লিভিত্তিক রোনা উইলসনের কাছ থেকে একটি চিঠি জব্দ করা হয়েছে। আর সেই চিঠিতেই জানা গেছে বর্তমান প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে হত্যার ষড়যন্ত্রের খবর। স্থানীয় আদালতে এই দাবি করেছে পুলিশ।

আদালতকে পুলিশ জানিয়েছে, ওই চিঠিতে নরেন্দ্র মোদিকে হত্যার জন্য আট কোটি রুপির অস্ত্র কেনার কথা বলা হয়েছে। অস্ত্রের মধ্যে বিশেষভাবে উল্লেখ করা হয়েছে এম-৪ রাইফেলের নাম। এ ছাড়া চার লাখ গুলি কেনার প্রস্তাবও দেওয়া হয়। চিঠিতে বলা হয়েছে ‘আরেকটি রাজীব গান্ধী ঘটনার’ কথা। সরকারি পিপি উজ্জ্বলা পাওয়ার আদালতকে বলেছেন, ‘এই লাইনটি নিয়ে ভাবছি আমরা। মনে হচ্ছে, আত্মঘাতী হামলার পরিকল্পনা হচ্ছিল এবং এতে ব্যর্থ হওয়ার আশঙ্কাও ছিল।’

এ বিষয়টি প্রকাশ্যে আসার পর মুখ খুলেছেন ভারতের মূলধারার রাজনৈতিক দলের নেতারা। বিজেপির নলিন কোহলি বলেন, ‘এটি খুব গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। নকশালপন্থীরা যে এখন চাপে আছে, তা জানা কথা। এটি খুবই ভয়ংকর ষড়যন্ত্র।’ সিপিএম নেতা সীতারাম ইয়েচুরি বলেন, ‘নিরাপত্তা এজেন্সিগুলো তাদের কাজ করবে। আদালতে শুনানি হচ্ছে। আদালতকেই সিদ্ধান্ত নিতে দিন।’

কথিত এই চিঠিটি এরই মধ্যে কিছু ভারতীয় সংবাদমাধ্যমে ফাঁস হয়ে গেছে। এএনআই নিউজ এজেন্সির খবরে বলা হয়েছে, চিঠিতে মূলত বিজেপির সাফল্যকে আটকানোর উপায় খোঁজা হয়েছে। মোদি যুগ শেষ করার জন্য বিভিন্ন পদক্ষেপ নেওয়ার তাগিদও ছিল চিঠিতে।

তবে অভিযুক্ত ব্যক্তিদের পক্ষের আইনজীবী আদালতে বলেছেন, এই চিঠি সাজানো এবং গ্রেপ্তার ব্যক্তিদের ফাঁসানোর চেষ্টা করা হচ্ছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.